বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ – সার্বিয়া

বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ - সার্বিয়া

২০০৬ সালের আগ পর্যন্ত যুগোশ্লাভিয়া নাম নিয়ে খেলা সার্বিয়া নিজ নামে বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া শুরু করেছে ২০১০ সাল থেকে। যদিও ২০০৬ সালে মন্টিনিগ্রোর সাথে এক হয়ে বিশ্বকাপে লড়েছিল তারা। তবে মন্টিনিগ্রোর সাথে হোক বা নিজেরা আলাদা হোক, দলে যথেষ্ট প্রতিশ্রুতিশীল খেলোয়াড় থাকলেও ২০০৬ বা ২০১০ বিশ্বকাপ কোনবারই প্রথম রাউন্ডের গন্ডি পেরোতে পারেনি সার্বিয়া। বিশ্বকাপে নিজেদের অস্তিত্ব ভালোভাবে প্রমাণ করতেই এবার পুরনো অনেক সৈনিককে বাদ দিয়ে প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ খেলোয়াড়দের নিয়ে দল ঘোষণা করেছে সার্বিয়া। কোচ ম্লাদেন ক্রস্টাইচ নিজে ২০০৬ বিশ্বকাপ খেলেছিলেন, তাই সবার চেয়ে বেশী তিনিই বোঝেন দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠাটা তাঁদের ফুটবল ইতিহাসের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ। এই লক্ষ্যেই সার্বিয়া এর মূল স্কোয়াড ঘোষণা করেছেন তিনি।

গোলরক্ষক

  • ভ্লাদিমির স্টয়কোভিচ (পার্টিজান বেলগ্রেড)
  • প্রেদ্রাগ রাজকোভিচ (ম্যাকাবি তেল আবিব)
  • মার্কো দিমিত্রোভিচ (এইবার)

ডিফেন্ডার

  • অ্যালেক্সান্দার কোলারভ – অধিনায়ক (এএস রোমা)
  • ব্রানিস্লাভ ইভানোভিচ (জেনিত সেইন্ট পিটার্সবার্গ)
  • আন্তোনিও রুকাভিনা (ভিয়ারিয়াল)
  • দুসকো তোসিচ (গুয়াংঝু রেনহে)
  • নিকোলা মিলেঙ্কোভিচ (ফিওরেন্টিনা)
  • মিলোস ভেলকোভিচ (ওয়ের্ডার ব্রেমেন)
  • মিলান রোদিচ (রেড স্টার বেলগ্রেড)
  • ইউরোস স্পাইচ (কুবান ক্রাসনোদার)

মিডফিল্ডার

  • সার্গেহ মিলিঙ্কোভিচ-সাভিচ (লাজিও)
  • আন্দ্রিয়া জিভকোভিচ (বেনফিকা)
  • নেমানিয়া মাতিচ (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড)
  • দুসান তাদিচ (সাউদাম্পটন)
  • লুকা মিলিভোয়েভিচ (ক্রিস্টাল প্যালেস)
  • ফিলিপ কস্টিচ (হ্যামবুর্গ)
  • মার্কো গ্রুইচ (লিভারপুল)
  • আদেম লিয়ায়িচ (তোরিনো)

স্ট্রাইকার

  • আলেক্সান্দার মিত্রোভিচ (নিউক্যাসল ইউনাইটেড)
  • আলেক্সান্দার প্রিয়োভিচ (পিএওকে)
  • লুকা ইয়োভিচ (আইনট্র্যাখট ফ্র্যাঙ্কফুর্ট)

যারা বাদ পড়েছেন

  • মাতিয়া নাসতাসিচ (সেন্টারব্যাক, শালকে ০৪)
  • নিকোলা মাকসিমোভিচ (সেন্টারব্যাক, নাপোলি)
  • দুসান বাস্তা (রাইটব্যাক, লাজিও)

সার্বিয়া এর এই দলটার মূল শক্তি লুকিয়ে আছে মিডফিল্ডে। অভিজ্ঞ নেমানিয়া মাতিচের সাথে যুক্ত হয়েছেন সার্গেহ মিলিঙ্কোভিচ-সাভিচ, যিনি এই বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় তারকা হবার যোগ্যতা রাখেন, তাছাড়া রয়েছেন দুসান তাদিচ, আদেম লিয়ায়িচ, আন্দ্রিয়া জিভকোভিচ ও ফিলিপ কস্টিচের মত প্রতিশ্রুতিশীল উইঙ্গার। সার্বিয়া দলের সবচেয়ে বড় সুবিধা হল তারা যেকোন ফর্মেশনের সাথেই মানিয়ে খেলতে পারে, সেটা ৩-৪-৩ ফর্মেশন হোক কিংবা ৪-৩-৩, যদিও ৪-২-৩-১ ফর্মেশনেই তাদেরকে বেশী খেলতে দেখা যায়। গোলরক্ষক হিসেবে মূল দলে খেলবেন ভ্লাদিমির স্টয়কোভিচ যার বিকল্প হিসেবে দলে রাখা হয়েছে প্রেদ্রাগ রাজকোভিচ ও মার্কো দিমিত্রোভিচকে। চারজন ডিফেন্ডারের মধ্যে রাইটব্যাক হিসেবে থাকবেন ভিয়ারিয়ালের বর্ষীয়ান রাইটব্যাক আন্তোনিও রুকাভিনা, লেফটব্যাকে খেলবেন দলের অধিনায়ক আলেক্সান্দার কোলারভ। দুই সেন্টারব্যাক হিসেবে জেনিতের ব্রানিস্লাভ ইভানোভিচ ও গুয়াংঝুর দুসকো তসিচের খেলা নিশ্চিত।

বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ - সার্বিয়া
gollachhut.com

যা বলছিলাম একটু আগে, মিডফিল্ডেই সার্বিয়া দলটার মূল শক্তি নিহিত। যা তাদেরকে তিনজন সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার বা দুইজন সেন্ট্রাল মিডফিল্ডারবিশিষ্ট যেকোন ফর্মেশনে খেলতে সহায়তা করে। ৪-২-৩-১ ফর্মেশনে সেন্ট্রাল মিডফিল্ডে জুটি বেঁধে খেলার সম্ভাবনা সবচাইতে বেশী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের নেমানিয়া মাতিচ ও ক্রিস্টাল প্যালেসের লুকা মিলিভোয়েভিচের। আর সেন্ট্রাল অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার হিসেবে তখন খেলবেন লাজিওর সুপারস্টার সার্গেহ মিলিঙ্কোভিচ-সাভিচ। কিন্তু দলের ফর্মেশন যদি ৪-৩-৩ হয় তাহলে মিলিঙ্কোভিচ-সাভিচ আরেকটু পিছনে এসে মিলিভোয়েভিচ ও মাতিচের সাথে জুটি বাঁধবেন। সেন্ট্রাল মিডফিল্ড পজিশনে দলে আরও আছেন লিভারপুলের মার্কো গ্রুইচ, বেনফিকার আন্দ্রিয়া জিভকোভিচ প্রমুখ। দুই ঊইঙ্গার হিসেবে তোরিনোর আদেম লিয়ায়িচ ও সাউদাম্পটনের দুসান তাদিচের খেলার সম্ভাবনা প্রবল। বিকল্প উইঙ্গার হিসেবে দলে আছেন হ্যামবুর্গের ফিলিপ কস্টিচ। আর একমাত্র স্ট্রাইকার হিসেবে খেলবেন আলেক্সান্দার মিত্রোভিচ।

বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ - সার্বিয়া

এও দলটা নিজেদের সঠিক কম্বিনেশন ভালোভাবে খুঁজে পেলে নিজেদের দিনে যে কাউকে হারাবার সামর্থ্য রাখে। গ্রুপ ‘ই’ তে সার্বিয়ার প্রতিপক্ষ এবার ব্রাজিল, ক্রোয়েশিয়া আর সুইজারল্যান্ড।

স্কোয়াড প্রিভিউ দেখুন আরও –

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

4 × 4 =