সকল বাংলাদেশি অভদ্রতার শিকল থেকে মুক্তি পাক

পাকিস্তানের সাথে হোমসিরিজে তামিমের সেঞ্চুরির পরে তামিমের সেলিব্রেশনের কথাটা মনে আছে ? একটু বাঁধনহারা আর অনেকটা আক্রমণাত্মক ! অনেক বেশি আক্রমণাত্মক !

পরে তামিম যখন সেই সেলিব্রেশনের ব্যাখ্যা দিলেন, লজ্জায় পরে যেতে হয় সমগ্র ক্রিকেট কমিউনিটিকে আর দেশের প্রত্যেকটা বাংলাদেশিকে। তামিমের অফফর্মের সময় নাকি মানুষ তামিম ইকবালের ওয়াইফের নাম্বারে ফোন দিয়ে আজেবাজে কথা বলাও বাদ রাখে নাই ! ঠিক কতোটা নিচের লেভেলে নামলে মানুষ আসলে এই ধরনের কাজগুলো করতে পারে ?

সেদিনের ভিক্টিম তামিম ইকবাল আর আজকের ভিক্টিম শুভাগত আর মিথুন আলীরা । ভিক্টিম বদলে যায় ! কিন্তু এই অভদ্রগুলো ঘুরেফিরে বাংলাদেশের বুকে থেকে যায় । ৭০,০০০ মেম্বারওয়ালা গ্রুপে শুভাগত আর মিঠুন আলীর ওয়াইফের আইডি লিংক চাওয়া ছেলেটাকে আপনি আর যাই বলেন Harmless Creature বলতে পারবেন না । এরা সুযোগের অপেক্ষায় থাকে আর সুযোগ পেলে খারাপ থেকে খারাপতম রূপটা বের করে দেয় ।

তাসকিন না ফেরা পর্যন্ত ক্রিকেট যথাসম্ভব কম ফলো করবো শপথ নিয়েছিলাম এবং ক্রিকেট নিয়ে কথাবার্তা যথাসম্ভব কম বলবো শপথ নিয়েছিলাম । কিন্তু বিশ্বাস করুন এটা ক্রিকেটের চেয়ে অনেক বেশি ভাইটাল । Believe me this is beyond just the game of Cricket !

একটা ক্রিকেট ম্যাচ হারার ক্ষত একদিন-দুইদিন কিংবা এক মাসের । কিন্তু জাতি হিসেবে অস্বাভাবিক লেভেলের অভদ্রতার দিকে নেমে গেলে তার ক্ষত আমাদের বয়ে বেড়াতে হবে যুগের অরে যুগ ।

স্বাধীনতা দিবসে সকল বাংলাদেশি অভদ্রতার শিকল থেকে মুক্তি পাক ! জয় বাংলা !

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

8 − seven =