শেষ হইয়াও হইল না শেষ: অদ্ভুত মেসিহীনতায় ভুগেছে ম্যাচ…

রবি বাবু ছোট গল্পের সংজ্ঞা দেয়ার জন্য যে উক্তিটি করেছিলেন বলে তা ফুটবল খেলার এনালাইসিস এ ব্যবহার করা যাবে এমন কোন নিষেধাজ্ঞা তিনি জারি করে গেছেন বলে আমি শুনি নাই। উল্টো উনি একটা গানে ফুটবল খেলাকে উৎসাহিত করেছেন। লোক মুখে শোনা যায় গানটা নাকি উনি পাড়ার মাঠে ফুটবল খেলার সময় লিখেছেন ছিলেন। উনি সেন্টার ফরোয়ার্ডে দাঁড়িয়ে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো স্টাইলে হাত উচাইয়া উইংগারদের বলতেছিলেন, বল দাও মোরে বল দাও… আমি গোল দেই! (ঘটনার রেফারেন্স চাহিয়া লজ্জা দিবেন না 😛 )

তো আজকে লিওনেল মেসিরও সেই অবস্থা হইছিল। সেন্টার ফরোয়ার্ডে দাঁড়াইয়া ছিলেন। আর সুয়ারেজ তার নিজের গোলটা মেসির পায়ে ঠেলে দিল। মেসি গোল দিল। পার্থক্য ছিল শুধু মেসি রোনাল্ডোর মত থুক্কু রবি বাবুর মত ‘বল দাও মোরে বল দাও’ বলে ছ্যাঁচড়ামি করে নাই! 😉

অনেকে এই গোলকে অফসাইড বানানোরও অপচেষ্টা করে যাচ্ছে…

 

এছাড়া পুরা মাঠে মেসির মন বসতেছিল না। একটা গোল দিলেও মেসি আজকে মেসি লেভেলে খেলতে পারে নাই। এই জন্য পুরা ম্যাচটাই অদ্ভুত মেসিহীনতায় ভুগেছে। আমার মনে হয় নোমান ভাইও আমার সাথে একমত হবেন! ইদানিং ওর মুডটা কেন জানি ভালো যাচ্ছে না। ঐ আবার শুনলাম ভাবি নাকি পোয়াতি। আরে পোয়াতি হইছে তো কি হইছে? আমাদের শাকিরা ভাবিও তো পোয়াতি ছিল। সে সুযোগে পিকে যে খেলাটাই না দিছিল!

যাই হোক। ১-৩ গোলে জিতলেও ম্যাচটা বার্সা লেভেলের হয় নাই। র‍্যাকিটিচ চেষ্টা করছে। বেশ ভালো ভালো পাস দিছে। একেবারে ক্লাস যাকে বলে আর কি। ডিফেন্স বার্ত্রা বেশ ভালো খেলছে। পিকের অভাব বুঝতে দেয় নাই। তবে সেকেন্ড হাফে একটা পেনাল্টি কনসিড করে পোলাডা চুপসাইয়া গেছিল।

তবে যাই হোক। লীগের গত ম্যাচের কেলেঙ্কারির পর ১-৩ গোলে জিতছে এটাই বড় কথা। আশাকরি ম্যানসিটির সাথে ম্যাচে যে স্পীড দেখছিলাম সেটা খুব তাড়াতাড়িই দেখতে পারব।

আর লিও মেসি,

ভাই তোর গোলের চিন্তা করা লাগবে না। জাস্ট তুই খেলে যা। আমরা আছি।

bb
তিন পাগলে হইল মেলা…

 

ভিস্কা এল বার্সা।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

four × one =