রমিজদের প্রলাপঃ শীৎকার নাকি ম্যাৎকার?

মারা খাওয়া পুটু চেক করছেন রমিজ রাজা

রমিজদের দোষ আর কি দিব? বেচারারা সেই ৭১ থেকে মারা খেয়ে আসতেছে। মারা খেয়ে বুড়িগঙ্গার পাড় থেকে যখন নিয়াজী নামের শয়তান কুকুরগুলা ভেগে করাচিতে গেল তখন পুটু ব্যথায় পুরা পাকিস্তান কঁকিয়ে উঠেছিল। এরপর যখন সময় সুযোগ হয়েছে বাঙ্গালী পাকিদের মারা পুটু আরেকটু মেরে পায়খানা কিলিয়ার করে দিছে।

আর অন্য দিকে সারা দুনিয়া চান্স পাইলেই সেই মারা পুটুর উপর লবণ রেখে বড়ই, কামরাঙ্গা খাইছে। সেই জন্য রমিজ রাজাদের একটু ক্ষোভ তো থাকতেই পারে। এই জন্য রমিজ রাজা সৌম্য সরকারের নাম বলে সুমাইয়া সরকার। অবশ্য নিন্দুকেরা কাহিনী অন্য রকম হতে পারে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেছে। তাদের বেত্তমিজ দিল বলে যেহেতু পাকিস্তানি জুয়াড়িরা অনেকেই অনেক বার অনেক নারীকে উত্তক্ত করেছে এবং রমিজ রাজাও যেহেতু পাকিস্তানি জুয়াড়ি তাই তারও এমন করা অস্বাভাবিক কিছু না। এমন হতেই পারে যে রমিজ সুমাইয়া নামের কোন মেয়েকে উত্তক্ত করতে গেলে তার বল বরাবর কষে লাথি মারে সুমাইয়া। সেই ব্যথা এখনও আমাবস্যা পূর্ণিমার রাতে উঠে রমিজের। তাই সৌম্যকেও সুমাইয়া বলে।

 

এভাবে সবাই পুটু মারলে হপে?: জাকা আশরাফ

সে যাই হোক। পাকিস্তানিদের পুরানা রাগ তো আমাদের উপর আছেই। সাথে যোগ হইছে নতুন কিছু মারা খাওয়ার কাহিনীও। এই তো সেদিন লোটা কামালও জাকা আশরাফদের পুটু মেরে দিল। লোটা কামাল পাকিস্তানের ব্যাটল ফিল্ডে খেলোয়াড় পাঠানির লোভ দেখাইয়া ICC এর ভাইস প্রেসিডেন্ট পদটা ভাগাইয়া নিল। পদ ভাগাইয়া নিয়া লোটা এরপর পগারপাড়। মাঝ দিয়া আকমলদের জুয়া খেলার ফাকে ফাকে কিরিকেট খেলাও হইল না আর পাকিস্তানিরা Indian Cricket Council এর ভাইস প্রেসিডেন্ট হওয়ার চান্সটাও পাইল না। বেচারারা পদ-পোঁদ দুটাই হারাল!

তারপর অতিসম্প্রতি পাপনও কষে একটা থাপ্পড় মারল। পিসিবি মনে করছিল বাংলাদেশ এখনও পাকিস্তানের অংশ। তাই এখানে খেলে ট্যাকা টুকার অর্ধেক ভাগ চাইছিল। পাপন কি করল? বেরসিকের মত বলল যে ওদের যদি বিমান ভাড়া দেয়া ট্যাকা টুকা না থাকে তাইলে ওটা আমরা দিতে রাজি আছি। আর কোন ট্যাকা টুকা দিব না।

তাইতো! আমরা কেন ওদের অর্ধেক ভাগ দিব? ওরা যখন জুয়া খেলে, ম্যাচ ফিক্সিং করে ট্যাকা টুকা কামায় তখন কি আমাদের ভাগ দেয়?

আহ! আহ! উহ!: শোয়েব আখতার

কালকে নাকি বেয়াদপ বলে খ্যাত শোয়েব আখতার বলছে, সবাই আমাদের কেন বাংলাদেশের সাথে তুলনা করছে? বাংলাদেশ কখনই কোন জয়ের জন্য কারো কাছে পছন্দের ছিল না, পাকিস্তানীরাই বরং সবার প্রিয়! দুয়ের মাঝে বিশাল ব্যবধান।

আবালডা সবসময় গাঁজায় বুঁদ হয়ে থাকে বলে এবার সত্য বলে ফেলছে। আসলেই তো! বাংলাদেশের সাথে পাকিস্তানের তুলনা হয়? কই রাজরানী আর কই বুইড়া চোতমারানি! আর পাকিস্তান তো সবার প্রিয় দল হবেই! এত পুটু মেরে দেয়ার পরও ওরা কি কামুক ভাবে বলে, প্লিজ আরেকবার মারো না! আর উল্টা দিকে বাংলাদেশের আছে পাকিস্তানের পুটু মারার সুদীর্ঘ ইতিহাস। একদেশ পুটু মারে আরেকদেশ মারা খায়। তো দেখাই যাচ্ছে দুদেশের মাঝে বিশাল ব্যবধান রয়েছে!

 

পুটুর ফুটো বেশি বড় হয় নাই! মাত্র এইটুক হইছে!: ওয়াসিম আকরাম

সবার শেষে ওয়াসিম আকরামের একটা জোকস বলে শেষ করি। কদিন আগে ওয়াসিম আকরাম জ্যাসন হোল্ডার সম্পর্কে বলছিল, হোল্ডারের জন্যে মায়া হয়, এত কম বয়সে বাকিদের সম্মান পাওয়া কঠিন।

হোল্ডার এই কথা শুনে বেজায় নাখোশ হইছিল। তাই নিয়ম ভেঙ্গে মারা পুটুর উপর লবণ রেখে বড়ই খাওয়ার পরিবর্তে নতুন উদ্দমে পুটু মেরে দিছে।

 

শালার পাকিস্তান। এত পুটু মারা খায় তাও ওদের লজ্জা হয় না। পুটু মারা খাওয়ার পর ওরা যেসব প্রলাপ বকে ওগুলাকে ওদের শীৎকার বলব নাকি ম্যাৎকার বলব সেটা নিয়ে মাঝে মাঝে কনফিউজড হয়ে যাই…

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

5 + 17 =