ম্যাচ প্রিভিউ: ক্রিস্টাল প্যালেস বনাম আর্সেনাল

বিশ্লেষণে – আহসানুল হক

লিগের প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট হ্যাম এর কাছে অপ্রত্যাশিত পরাজয়ের ধাক্কা সামলে উঠতে না উঠতেই আরেকটা লন্ডন ডার্বি তে মাঠে নামছে আর্সেনাল। আগামীকাল বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬-৩০ এ প্যালেস এর মাঠ সেলহার্স্ট পার্কে মুখোমুখি হবে উত্তর ও দক্ষিন লন্ডনের দুই ক্লাব।

অন্যদিকে অ্যালান পার্ড্যু এর ঈগলস রা ভালো সুচনা করেছে নরউইচ কে তাদের মাঠে ১-৩ গোলে হারিয়ে।

=> পরিসংখ্যানে :

দুই দলের মধ্যকার ৩০ দেখায় আর্সেনালের জয় ২০ টিতে ড্র ৮ টি এবং ২ টিতে হারের রেকর্ড বলছে ক্রিস্টাল প্যালেস আর্সেনালের জন্য কঠিন প্রতিপক্ষ হওয়ার কথা না। সাম্প্রতিক রেকর্ডও আর্সেনালের পক্ষেই কথা বলছে.. সর্বশেষ টানা ৫ ম্যাচ জিতেছে আর্সেনাল, ১৯৯৪-৯৫ এর পর গানারদের হারাতে পারেনি ঈগলসরা। কিন্তু গত সপ্তাহেই ওয়েস্টহ্যাম প্রমান করে দিয়েছে এগুলো কোনো ব্যাপারই না.. খেলার ফলাফল নির্ধারিত হবে ৯০ মিনিটের পার্ফমেন্সের উপর, অতীত রেকর্ডের উপর নয়।

ম্যাচটা পার্ড্যু বনাম ওয়েঙ্গারও
ম্যাচটা পার্ড্যু বনাম ওয়েঙ্গারও

=> টিম নিউজ :

আর্সেনালের জ্যাক উইলশেয়ার ধারনার চাইতেও দ্রুত সেরে উঠছেন, তবে এখনও ট্রেইনিং এ ফিরতে পারেন নি। ওয়েলব্যাক ট্রেইনিং এ ফিরলেও এ ম্যাচে ইনভলভড হবার সম্ভাবনা নাই। টমাস রসিচকি হাঁটুর অস্ত্রোপচার এর পর পুরোপুরি ফিট হতে অক্টোবর এর শেষ পর্যন্ত সময় নিবেন ধারনা করা হচ্ছে। সুসংবাদ হল বেলেরিন ফুল ফিট, তার সাথে সানচেজের ফিটনেস নিয়েও আর্সেনে ওয়েঙ্গার সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তবে ম্যাথিউ ফ্লামিনি পুরোপুরি ফিট থাকলেও ১৮ সদস্যের দলে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা খুব কম।

ক্রিস্টাল প্যালেসের গোলকি জুলিয়ান স্পেরোনি, ফরোয়ার্ড ফ্রেজার ক্যাম্পবেল এবং সাবেক গানার মারুয়্যান শামাখ ইনজুরির কারনে স্কোয়াডে থাকছেন না।

=> ট্যাকটিকাল প্রিভিউ :


লিগে প্রথম ম্যাচে আর্সেনাল দলের ট্যাকটিকস পরিষ্কার ভাবেই আক্রমনভাগে খুব কার্যকর হতে পারে নি। ওয়েস্টহ্যাম তাদের ডিফেন্সিভ শেপ টা টাইট করে রেখেছিল, এরকম সময়ে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ডিফেন্স দেয়ালকে স্থানচ্যুত করতে দরকার হয় দুইপাশেই প্রথাগত উইঙ্গার এর। অক্স রাইট উইং এ ভালো খেললেও যথেষ্ট সাপোর্ট পায়নি, ডেবুছি ও ভালো করতে পারেনি। আর লেফট সাইডে সান্টি কাজোরলা বারংবার কাট ইন করায় হ্যামার্সদের সেন্ট্রাল ডিফেন্সের সামনের জায়গাটি অতিরিক্তি জনবহুল হয়ে যাচ্ছিল, যেটা আর্সেনালের ওয়ান-টু-ওয়ান বিল্ডাপে অনেক ঝামেলা তৈরি করেছে এবং ওয়েস্ট হ্যাম ডিফেন্সের পরীক্ষা নিতে ব্যর্থ হয়েছে।

মিডফিল্ডে রামজে কোকুলানকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পারেন নি, ফলশ্রুতিতে কোকুলানের বল ডিস্ট্রিবিউশন এর উপর নির্ভর করতে হয়েছে এবং এর ফলে বল নিজেদের কন্ট্রোলে রাখার পাশাপাশি আক্রমন রচনা করতে গিয়েও অনেক ঝামেলায় পড়েছে আর্সেনাল।

অথচ তার সপ্তাহ খানেক আগেই একই ফর্মেশন ব্যাবহার করে চেলসিকে হারিয়ে শিল্ড জিতেছে আর্সেনাল। তাই প্রশ্ন থেকেই যায় আর্সেনে ওয়েঙ্গার কি তার ফর্মেশন চেঞ্জ করবেন না কি! যাকে আমরা অনেক বারই দেখেছি নিজের ধরনের প্রতি আস্থা রেখে ঝুঁকি নিতে… যদি তিনি ফর্মেশন পরিবর্তন করেন তাইলে একটা পজিশনেই গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আসতে পারে, তা হল সেন্ট্রাল মিডফিল্ডে কোকুলানের পাশে অ্যারন রামজের বদলে সান্টি কাজোরলা। কাজোরলা থাকলে দেখা যায় কোকুলানের উপর বল ডিস্ট্রিবিউশন এর প্রেশার কম পড়ে, একই সাথে কাজোরলা ছোট স্পেস এ দ্রুত টার্ন করতে পারার ক্ষমতা এবং ট্রিকি ফুটওয়ার্ক দিয়ে বের হয়ে আসার ক্ষমতার কারনে বিপক্ষ দলের হাই কাউন্টার প্রেসিং ও অকার্যকর হয়ে যেতে পারে।

ডিফেন্সে একমাত্র নিশ্চিত পরিবর্তন ডেবুছির বদলে বেলেরিন।


=> আর্সেনালের সম্ভাব্য প্রথম একাদশ হতে পারে :


পিওতর চেক, হেক্টর বেলেরিন, পার মার্টসেকার, লরাঁ কসিয়েলনি, নাচো মনরেয়াল, ফ্র্যান্সিস কোকুলান, সান্টি কাজোরলা, মেসুত ওযিল, অ্যারন রামজে, অ্যালেক্স-অক্সলেড চেম্বারলিন, অলিভিয়ের জিরু

1315021_Arsenal

অন্যদিকে অ্যালান পার্ড্যু কে বেশিরভাগ সময়েই টিপিক্যাল ৪-৪-২ ফর্মেশনে দল সাজাতে দেখা গেলেও এ বছরের শুরুতে ক্রিস্টাল প্যালেসের দায়িত্ব নেবার পর আমরা দেখেছি অনেকবারই ৪-৩-৩ ফর্মেশন ব্যাবহার করতে, বিশেষ করে বড় দল গুলোর বিপক্ষে। তার সাবেক নিউক্যাসল শিষ্য ইওহান কাবায়েকে পিএসজি থেকে প্যালেসে নিয়ে এসেছেন এই গ্রীষ্মে। মুলত ডিপ লাইং প্লে মেকার কাবায়ের নতুন দলে প্রথম ম্যাচ শুরু হয়েছে গোল পেয়ে। প্রিমিয়ার লিগ ছেড়ে যাওয়ার ঠিক আগের ৭ ম্যাচেও ছিল তার ৫ গোল। কাজেই বোঝা যায় ইংলিশ ফুটবলের সাথে আবার নতুন করে মানিয়ে নেয়ার জন্য কোনো সময়ই নেন নি কাবায়ে।
নিঃসন্দেহে দলের খেলা আবর্তিত হবে কাবায়ে কে ঘিরে। নরউইচের সাথে সেন্ট্রাল মিডফিল্ডে ম্যাকার্থার এর সাথে জুটি বাঁধলেও আর্সেনালের বিপক্ষে তাকে আরো কিছুটা অ্যাডভান্সড রোলে দেখা যেতে পারে। তার পেছনে হোল্ডিং মিডফিল্ডার হিসেবে থাকতে পারেন ম্যাকার্থার এবং ক্লাব ক্যাপ্টেন মাইল ইয়েদিনাক। নিশ্চিত ভাবেই এ দুইজনের দায়িত্ব থাকবে আর্সেনালের প্লে মেকারদের দ্রুত বল দেয়া নেয়া না করতে দেয়া। মিডফিল্ডে অন্য অপশন থাকতে পারেন লেডলি এবং জর্ডান মাচ।

আক্রমনভাগে নরউইচের সাথে প্রথম একাদশে ছিলেন গ্লেন মারে.. আর্সেনালের সাথে ম্যাচে দেখা যেতে পারে কনর উইকহ্যাম কে। অন্য অপশন হতে পারে চেলসি থেকে লোনে থাকা প্যাট্রিক ব্যামফোর্ড।
তবে গত মৌসুমের শেষভাগের কথা মাথায় রাখলে পার্ড্যু অন্যভাবে দল সাজাবেন না বলা যাবে না। একাধিকবার আমরা দেখেছি উইঙ্গার ইয়ানিক ব্যোলাসি কে সেন্ট্রাল রোলে খেলাতে। দ্রুত গতি সম্পন্ন এবং ট্রিকস্টার ব্যোলাসি কাউন্টার অ্যাটাক নির্ভর গেমপ্ল্যানের জন্য আদর্শ হতে পারেন। দুই পাশে ওয়াইড রোল মেনটেন করবেন উইলফ্রেড জাহা এবং জেসন পাঞ্চেওন। এদের মধ্যে জাহাও অসাধারন ড্রিবলার, যদিও দুই দলের শেষ দুই দেখায় তার তুলনায় ধীর গতি সম্পন্ন নাচো মনরেয়াল তাকে অকার্যকর করে রেখেছিলেন শুধুমাত্র পজিশনিং সেন্স ব্যবহার করে।

ক্রিস্টাল প্যালেসের ডিফেন্সে সেন্টার ব্যাক থাকবেন স্কট ডান এবং ডেলাইনি। টিপিক্যাল ইংলিশ সেন্টারব্যাক, দীর্ঘদেহী এবং বাতাসে দক্ষ। রাইট ব্যাক থাকবেন ওয়ার্ড এবং লেফটব্যাকে থাকবেন জানুয়ারিতে প্যালেসে যোগ দেয়া পাপ সাওরে। আর নিয়মিত গোলরক্ষক স্পেরোনি এর অনুপস্থিতিতে গোলবার সামলাবেন ম্যাকার্থি।

=> সম্ভাব্য ক্রিস্টাল প্যালেস প্রথম একাদশ :


অ্যালেক্স ম্যাকার্থি, ড্যানি ওয়ার্ড, স্কট ডান, ড্যামিয়েন ডেলাইনি, পাপে সাওরে, মাইল ইয়েদিনাক, জেমস ম্যাকার্থার, ইয়োহান কাবায়ে, উইলফ্রিয়েড জাহা, জেইসন পাঞ্চেওন, ইয়ানিক ব্যোলাসি

1315023_Crystal_Palace

সেলহার্স্ট পার্কের অাঁটসাট পরিবেশ সবসময়ই ঈগলসদের অনুকুলে এবং অতিথি দলের প্রতিকুলে থাকে। অ্যালান পার্ড্যু চাইবেন তার সর্বশেষ ১৯ লিগ ম্যাচে ১১ জয়ের রেকর্ডটাকে আরেকটু সমৃদ্ধ করতে আর বিপরীতে আর্সেনে ওয়েঙ্গার চাইবেন ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি। আর্সেনাল লিগের প্রথম ম্যাচ হেরেছে সর্বশেষ এমন তিনবারই দ্বিতীয় ম্যাচে লন্ডন প্রতিপক্ষের সাথে জিতেছে..
একটা চমৎকার লন্ডন ডার্বির প্রত্যাশায়..
#COYG #AFC_BD

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

9 − six =