ম্যাচিওর হতে শিখুন

মুস্তাফিজকে নিয়ে যা হচ্ছে তা একটু বাড়াবাড়ি ই বটে। আরে ভাই, ছেলেটা আইপিএল জয় করে আসছে, জাতীয় কোন বড় টুর্নামেন্ট নয়। এয়ারপোর্টে মন্ত্রী নিজে গিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছে জানানো, মুস্তাফিজ কে জাতীয় বীর বলে আখ্যায়িত করা নিজেদের অপরিপক্ক মস্তিষ্কের পরিচয়। কেউ কেউ তো বলছে তাকে নাকি জাতীয় কোন পুরষ্কারে ভূষিত করা হবে। এইসব ভাঁড়ামি না করলেই কি নয়!!!
মুস্তাফিজের সাথে যা করা হচ্ছে এটা যদি অন্যান্য দেশও করত, তাহলে চ্যাম্পিয়ন টিমের ক্যাপ্টেন হিসেবে ওয়ার্নার কে নিয়ে অস্ট্রেলিয়া জতীয় উৎসব পালন করত!!!

আইপিএল শুধুই একটা ফ্রেঞ্চাইসি টুর্নামেন্ট ছাড়া আর কিছু না। ওখানে মুস্তাফিজ ভাল পারফর্ম করসে তাই তাকে সব খেলায় নিসে, সে সেরা উদীয়মান খেলোয়ার হইসে, টাকা পয়সা পাইসে, সামনে আবার যাবে, আরো কামাবে।
ফ্রেঞ্চাইসি ক্রিকেটে আবেগ দেখাইয়া লাভ নাই। যে ভাল পারফর্ম করবে, যাকে দিয়ে টিমের লাভ হবে তাকেই নিবে। ভাল না খেললে পরের অকশনেই কেউ পাত্তা দিবে না। সো, বি প্রফেশনাল। অন্যান্য দেশর যেসব খেলোয়ার খেলতে আসে, তাদের কে নিয়ে তো তাদের দেশে এত মাতামাতি হয় না।
নাকি আমরা এই লেভেলের খেলোয়ার ডিজার্ভ করি না? নিজেদের কাছেই কি অস্বাভাবিক লাগে যে বাংলাদেশি একটা প্লেয়ার এত ভাল হয় কেমনে? তাহলে বিদেশি পেইজ গুলাতে গিয়ে ছেচড়াদের মত নিজের ঢোল নিজে পেটানোর মানে কি??? এতদিন ইন্ডিয়া আর আইপিএল কে গালি দিয়া এখন সেই আইপিএল জয় নিয়া এত লাফালাফি করার মানে কি?? কিছু আবাল কথা বলার সুযোগ করে দেয় বলেই ওরা আমাদের ছোট করার সুযোগ পায়।

আমাদের ক্রিকেট ম্যাচিওর হচ্ছে, ফ্যান হিসেবে আপনারাও ম্যাচিওর হতে শিখুন। নিজেদের পার্সোনালিটি বাড়ান। আমাদের প্লেয়ার আছে, তাকে দলে নেওয়া হয়েছে, সে জিতেছে। একটা ফ্রেঞ্চাইসি টুর্নামেন্ট জয়টাকে স্বাভাবিক ভাবে নিতে শিখুন। এটা জাতীয় কোন প্রপ্তি নয় যে তাকে জাতীয় বীর বলে আখ্যায়িত করতে হবে। আর নিজেকে প্রমাণ করার জায়গা ফ্রেঞ্চাইসি টুর্নামেন্ট নয়। বরং নিজেকে প্রমাণ করেই ফ্রেঞ্চাইসি টুর্নামেন্টে জায়গা করে নিতে হয়। সেক্ষেত্রে মুস্তাফিজ অনেক আগেই সফল হয়েছে। ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই দেশের নাম উজ্জ্বল করে যাচ্ছে।

বাচ্চা একটা ছেলে। ক্যারিয়ারের শুরু মাত্র। প্রমাণ করার এখনো অনেক বাকি। আইপিএলের বাণিজ্যিক আসরের চেয়ে অনেক বড় বড় বিশ্বক্রিকেট আসর সামনে অপেক্ষমান। এইসব নেইম ফেইম দিয়ে ওর টার্গেট থেকে ওকে বিচ্ছিন্ন করবেন না। নেইম ফেইমের কারনে ধ্বংস হয়ে যাওয়ার সবচেয়ে বড় উদাহরণ ব্রাজিলের রোনালদিনহো। গডগিফটেড প্রতিভায় ভরপুর ছিল তবুও ক্যারিয়ার টা খুব তারাতারিই শেষ হয়ে গেল।

তাই বলছি, আপনাদের আবলামি দিয়ে ছেলেটার ক্যারিয়ার টা নষ্ট করবেন না সাথে সাথে নিজের ও দেশের ভাবমুর্তি নষ্ট করবেন না।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

two × one =