ব্যান্টারের লেবাসে আক্রমণাত্মক নোংরামি বন্ধ কবে হবে?

ব্যান্টারের লেবাসে আক্রমণাত্মক নোংরামি বন্ধ কবে হবে?

কিছু ব্যাপারে সুশীল সাজার কোনই দরকার নাই আসলে। যেমন rivalry জিনিসটা এমন অপোজিট টিম হারলে খুশি লাগবেই। এবং ব্যাপারটা এমন যে নিজের টীম ও যদি না জেতে তাইলে অপজিট টীমটা যদি হারে তাইলেও একটা স্বান্তনা কাজ করে যাক তারা অন্তত জেতে নাই , নাইলে আরো বেশি কষ্ট লাগতো। ফুটবল এ ব্যাপারটা এমন ই। রিয়াল বার্সা/লিভারপুল-ইউনাইটিড/আর্জেন্টিনা ব্রাজিল সবক্ষেত্রেই এক ই অবস্থা। এবং সেইটাই স্বাভাবিক . অনেককে দেখি বলে অমুক এ এতগুলা ট্রফি পাইসে তমুকে ততগুলা ট্রফি পাইসে তুলনা কেমনে হয়! ব্যাপারটা ট্রফির না। অনেক সময় পাশাপাশি দুইটা দেশ বা পাশাপাশি দুইটা শহর অথবা একই শহরের দুইটা ক্লাবের ভেতর এমন rivalry থাকে। আবার লিভারপুল এভারটনের ভেতর ও চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীতা থাকে। যদি কেউ একটা দলের passionate ফ্যান হয় তাইলে তার রাইভালের বিপক্ষে সহজাত একটা বিতৃষ্ণা জন্মাবে , এবং ব্যাপারটা খুব ই স্বাভাবিক .

এতগুলো এইজন্যই বললাম যে খেলা শেষেই দেখি যে বিজয়ী দলের ফ্যানেরা পোস্ট দেয় ” আজ যারা আমাদের বিপক্ষে ছিলো তারা কই!!” বা ” খুব তো মোনাজাত ধরলা। হারাতে তো পারলানা ” বা অ্যাগ্রেসিভ অ্যাটিটিউড দেখায়। আর্জেন্টিনা ব্রাজিল দুদলের ফ্যান ই এই কাজ করে। আমার কথা হচ্ছে আরেহ ব্যাটা আমি ব্রাজিল ফ্যান , আমি কোন যুক্তিতে চাবো আর্জেন্টিনা জিতুক? খুব স্বাভাবিক আমি চাবো আর্জেন্টিনা হারুক , তো আমাকে খুজে বের করার দরকার কি? আবার আর্জেন্টিনা ফ্যানরাও চাবে ব্রাজিল হারুক , মনেপ্রাণে ই চাবে ব্রাজিল হারুক , তো সেইটা নিয়ে এত বাড়াবাড়ির কি আছে? এত অশ্লীলতা আর নোংরামি কেন তাই ই বুঝিনা!

আবার আরেকদল সুশীল আছে আমি অমুক দলের ফ্যান বাট অমুক প্লেয়ার এর দল (রাইভাল টীমের প্লেয়ার) বিশ্বকাপ জিতলে ভালো লাগতো , এইটা কোনোভাবেই সম্ভব না! তাইলে বুঝতে হবে তার নিজের টিমের প্রতি সমর্থনেই ঘাপলা আছে , একটা ম্যান ইউনাইটিড চাবে ” জেরার্ড চ্যাম্পিয়নস লীগ জিতলে আমার ভাল্লাগবে!” বা একটা লিভারপুল ফ্যান কোনদিন বলেছিলো ” রুনি লীগ বা ইউসিএল জিতুক। আমি খুব খুশি হবো! ” এইটা কোনদিন ও সম্ভব না। নিজের দলকে ভালোবাসা যেমন একটা passion আর রাইভালকে অপছন্দ করাটাও একটা প্যাশান। (এদের সবাইকে Gary Neville এর আত্নজীবনী পড়ানো উচিত। Oh wait সবাই গ্যারিকে চেনে তো?) এইখানেই সৌন্দর্য ফুটবলের্। আর এইজন্যই ফুটবলে banter/ mocking এইসব চলে। এইসব সহ্য না করতে পারলে ফুটবল বাদ দিয়ে কুতকুত দেখাই ভালো।

তবে হ্যাঁ banter এক জিনিস আর অ্যাগ্রেসিভলি রাইভাল ফ্যানকে খোচা দেয়া আরেক জিনিস। বাংলাদেশের মানুষ দ্বিতীয়টাই বেশি করে। আরেহ বাপ দল হারসে , দলের ফ্যানদের কি দোষ? তার দল হারাই তো সে নিজেই কষ্ট পাচ্ছে , তাই না? আর সে ব্রাজিল ফ্যান তোমার আর্জেন্টিনা হারলে খুশি হবে না তো পুতুপুতু করবে? সে আর্জেন্টিনা ফ্যান ব্রাজিল এর হার দেখার জন্য দোয়া করবে না তো কোলে তুলে নাচবে? কাজেই ফ্যানদের ভেতর এইসব কাদা ছোড়াছুড়ি বা আক্রমনাত্বক নোংরামি গুলা বন্ধ হওয়া উচিত!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

four − three =