বেদ্দপের ফ্যান হতে পেরে গর্বিত!

সে দেশসেরা ব্যাটসম্যান, দেশসেরা বোলার। সে খেললে দলে ১২ জন খেলে। তবুও কারণে অকারণে তাকে ব্যান-জরিমানা করতে ক্রিকেটের কর্তাব্যক্তিরা দ্বিতীয়বার ভাবেন না। তার আয়-রুজির পথ বন্ধের ধান্ধায় থাকেন, তার অর্থ সম্পদ দেখে জ্বলে পুড়ে মরেন। মেসি-রোনালদোরা হাজারো সমালোচনার মুখে পরলে তাদের ক্লাব তাদের ডিফেন্ড করতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে। সুয়ারেজের কামড় কান্ডের পর ফিফার ব্যানের বিপক্ষে গলা তুলে প্রতিবাদ করে উরুগুয়ে ফুটবল ফেডারেশন। আর সেখানে আমাদের ক্রিকেট বোর্ড তাদের দেশসেরা প্লেয়ারকে দাম দে না, তার ভাবমূর্তি ক্ষূর্ণ করার চেষ্টা চালিয়ে যায়।

দেশের হয়ে সেরা পারফরম্যান্স উপহার দিয়েও, বিদেশে দেশের নাম উজ্জ্বল করার পরও, দলের অধিকাংশ জয়ে অবদান রাখার পরও তার হেটারের সংখ্যা নেহাত কম নয়। তারা তাকে সহ্য করতে পারে না, সে দেশের হয়ে পারফর্ম করুক তা চায় না। বাংলাদেশ হারুক বা জিতুক তাতে মাথা ব্যাথা নেই, সে খারাপ খেললেই তাদের ঈদ। তাই প্রথম টেস্টের পর হেটারদের বলতে শুনেছি যাক, “কেউ বলবে না যে সাকিবের কারণে জিতলাম”। তাদের চোখে সে বেদ্দপ, অহংকারী, বউপাগল।

আমরা আজ সাকিব ফ্যানরা যেখানে আজ তার ও বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে খুশিতে আত্মহারা, সেখানে উপরোক্ত দুই শ্রেণীর কি অবস্থা একবার ভাবুন। না পারে আনন্দ করতে, না পারে সইতে, না পারে সাকিবের দুইদন্ড প্রশংসা করতে। তাদের জন্য একরাশ সমবেদনা

‪#‎proud_to_be_a_beddop_fan_of_Shakib‬

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

six − 4 =