জার্মান বুন্দেসলিগা : অগসবুর্গ এর হাল-হকিকত

জার্মান বুন্দেসলিগা : অগসবুর্গ এর হাল-হকিকত

জার্মান বুন্দেসলিগার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ক্লাব হল অগসবুর্গ। গতবার দ্বাদশ অবস্থানে থেকে লিগ শেষ করা অগসবুর্গ এবার স্বভাবতই আরও ভালো করতে চায়। এই ভালো করার পথে ক্লাবের কে কে সারথি হতে পারেন? আসুন দেখে নেওয়া যাক!

  • ফিলিপ ম্যাক্স

অগসবুর্গ এর অন্যতম বড় তারকা এই ২৪ বছর বয়সী জার্মান লেফট ব্যাক। বায়ার্ন ও শালকে এর যুবদলে খেলা এই আক্রমণাত্মক ফুলব্যাক শালকের মূল দলে খেলে তেমন সুবিধা করতে পারেননি। তবে এরপর অগসবুর্গে যোগ দেয়ার পর তিনি তার প্রতিভার প্রতি সুবিচার করেছেন। গত সিজনে তিনি বুন্দেসলিগায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলসহায়তা করেন (১২)। দেখে নিন তার গত মৌসুমের পরিসংখ্যান –

৩৩ ম্যাচ, ২ গোল, ১২ গোলসহায়তা , এরিয়াল ডুয়েল -০.৮, সফল পাস দেওয়ার হার  – ৭০%,  গোলে শট প্রতি ম্যাচে – ০.৫, রেটিং – ৭.০৯

  • মার্টিন হিন্টেরেগার

বাভারিয়ান দল অগসবুর্গ এর আরেক বড় তারকা হলেন তাদের এই ২৫ বছর বয়সী অস্ট্রিয়ান সেন্টার ব্যাক। হিন্টেরেগার রেড বুল সালজবুর্গের যুব ও মূলদলে খেলেছেন। মূল দলে ১৪১ ম্যাচ খেলার পর তিনি বুন্দেসলিগায় পাড়ি জমান। ২০১৬ সালে বরুশিয়া মনশেনগ্ল্যাডবাখ থেকে অগসবুর্গে ধারে আসেন এবং এরপরের বছর তা পূর্ণাঙ্গ চুক্তিতে রূপান্তরিত হয়। এই পর্যন্ত জাতীয় দলের হয়ে ৩০ ম্যাচ খেলে তার গোলসংখ্যা ৩।

  • আলফ্রেড ফিনবোগাসন

WWK এরিনার সবচেয়ে বড় তারকা এই ২৯ বছর বয়সী আইসল্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল স্ট্রাইকার। ২০১২-১৪ সালগুলোয় তিনি ডাচ লিগ এরেডিভিসিতে ৬৫ ম্যাচে ৫৩ গোল করেন! এরপর রিয়াল সোসিয়াদাদ তার প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করে তাকে দলে ভেড়ায়। তবে স্পেনে বেশি সুবিধা করতে না পেরে তিনি ২০১৬ সালে বুন্দেসলিগায় পাড়ি জমান। অগসবুর্গের হয়ে ৪৬ ম্যাচে তার গোল সংখ্যা ২২! আর জাতীয় দলের হয়ে ৫০ ম্যাচ খেলা এই স্ট্রাইকারের গোলসংখ্যা ১৪। ২০১৩-১৪ মৌসুমের এরেডিভিসি টপ স্কোরার আইসল্যান্ডের প্লেয়ার অব দ্যা ইয়ার এর খ্যাতি লাভ করেন সেবার।

লেখা – নাঈম আহমেদ

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

five × 1 =