বিশ্বকাপ ২০১৮ : অচেনা কারা মাতাবেন এবার?

বিশ্বকাপ ২০১৮ : অচেনা কারা মাতাবেন এবার?

বিশ্বকাপ মানেই নতুন কিছু। বিশ্বকাপ মানেই নতুনের আবাহন। প্রত্যেক বিশ্বকাপেই নতুন কোন না কোন তারার জ্বলে ওঠা দেখে ফুটবল বিশ্বকাপ। এই যেমন ধরুন গত বিশ্বকাপে কেইলর নাভাস, গিলের্মো ওচোয়া, ডেলেই ব্লিন্ড বা মার্কোস রোহোর কথা। একদম পাঁড় ফুটবল ভক্ত না হলে ও ক্লাব ফুটবল অনুসরণ না করলে তাদের চেনার কথা না আপনার। এরাই গত বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে বিশ্বকাপের পর জায়গা করে নিয়েছিলেন রিয়াল মাদ্রিদ, ম্যানচেস্তার ইউনাইটেডের মত ক্লাবে। বা ধরুন ২০১০ বিশ্বকাপের কথা। ‘অখ্যাত’ মেসুত ওজিল বা স্যামি খেদিরা দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে জায়গা করে নিলেন রিয়াল মাদ্রিদে। এবার এরকম কোন কোন ‘অখ্যাত’ বা ‘নাম-না-জানা’ তারকারা মাতাবেন বিশ্বকাপ? আসুন দেখে নেওয়া যাক!

আলেক্সান্দার গোলোভিন

  • দল : রাশিয়া
  • ক্লাব : সিএসকেএ মস্কো
  • পরিচয় : আর্সেনাল ও জুভেন্টাস গত বছর ধরেই রাশিয়ার উদীয়মান এই মিডফিল্ডারটিকে নেওয়ার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে, এতেই বোঝা যায় গোলোভিনের প্রতিভার ব্যাপারে। রাশিয়ার এই মিডফিল্ডারের মধ্যে আধুনিক বক্স-টু-বক্স মিডফিল্ডার হবার সকল উপাদান আছে

আহমেদ হেগাজি

  • দল : মিশর
  • ক্লাব : ওয়েস্ট ব্রমউইচ আলবিওন
  • পরিচয় : ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ যারা অনুসরণ করেন তারা হেগাজিকে চিনবেন, কিন্তু একটা ভালো বিশ্বকাপ কাটাতে পারলে আরো পরিচিত ক্লাবে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে “মিশরীয় নেস্তা” নামে খ্যাত এই আহমেদ হেগাজির। মোহামেদ সালাহর ভালো বন্ধু হবার কারণে এর মধ্যেই লিভারপুলের সাথে তার নাম জড়ানো হয়েছে

নাহিতান নান্দেজ

  • দল : উরুগুয়ে
  • ক্লাব : বোকা জুনিয়র্স
  • ক্লাব ও জাতীয় দল উভয় জায়গাতেই মূল একাদশের খেলোয়াড় এই নান্দেজ। নির্ভরযোগ্য এই মিডফিল্ডারকে পাওয়ার জন্য বিশ্বকাপের পর বড় ক্লাবগুলোর কাড়াকাড়ি লেগে গেলে আশ্চর্য হবেন না যেন!

লুকাস তোরেইরা

  • দল : উরুগুয়ে
  • ক্লাব : সাম্পদোরিয়া
  • ছোটখাট গড়নের উরুগুইয়ান এই মিডফিল্ডারের খেলার স্টাইলের মধ্যে এর মাঝেই আদর্শ ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডারের ছোঁয়া পাওয়া গেছে। নাপোলি, ম্যানচেস্টার সিটি এই মৌসুমেই দলে নিতে চাচ্ছিল সাম্পদোরিয়ার হয়ে দুর্দান্ত মৌসুম কাটানো তোরেইরাকে। তবে ৩০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে এই তোরেইরা চলে যেতে পারেন আর্সেনালে

রুবেন দিয়াজ

  • দল : পর্তুগাল
  • ক্লাব : বেনফিকা
  • বেনফিকার এই তরুণ সেন্টারব্যাক গত এক বছরে নিজেকে বেশ ভালোভাবেই প্রতিষ্ঠিত করেছেন, নজরে পড়েছেন আর্সেনালের মত ক্লাবের। রক্ষণে দুর্দান্ত খেলার কারণে সতীর্থদের মাঝে তিনি পরিচিত বডিগার্ড নামে!

গনক্যালো গুয়েদেস ও জেলসন মার্টিনস

  • দল : পর্তুগাল
  • ক্লাব : ভ্যালেন্সিয়া ও স্পোর্টিং লিসবন
  • এই দুইজনকে একইসাথে রাখার কারণ, এই দুই উদীয়মান উইঙ্গারেকেই মনে করা হচ্ছে পরবর্তী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। গুয়েদেস ইতোমধ্যে পিএসজির মত বড় ক্লাবে গিয়ে আবার ভ্যালেন্সিয়াতে গেলেও জেলসন মার্টিনসকে এখনো ইউরোপের বড় কোন ক্লাব কেনেনি, এই পরিস্থিতির পরিবর্তন হতে পারে বিশ্বকাপে পরে

ব্রুনো ফার্নান্দেজ

  • দল : পর্তুগাল
  • ক্লাব : স্পোর্তিং লিসবন
  • পর্তুগিজ এই মিডফিল্ডার কিংবদন্তী আরেক পর্তুগিজ মিডফিল্ডারকে আদর্শ মেনে বড় হয়েছেন, খেলার স্টাইলও দুজনের মোটামুটি একই। স্পোর্টিং এর হয়ে দুর্দান্ত মৌসুম কাটানোর পর নজরে পড়েছেন লিভারপুল, চেলসি, টটেনহ্যামের মত ক্লাবের

হাকিম জিয়েচ

  • দল : মরক্কো
  • ক্লাব : আয়াক্স আমস্টারডাম
  • তর্কাতীতভাবেই বিশ্বকাপগামী মরক্কো দলের সেরা খেলোয়াড় এই জিয়েচ। বাম পায়ের আক্রমণভাবাপন্ন এই মিডফিল্ডার বিশ্বকাপে ভালো পারফরম্যান্স দিয়েই চলে যেতে পারেন বড় কোন ক্লাবে, যেখানে তাকে পাওয়ার জন্য আগে থেকেই লিভারপুল, জুভেন্টাস আগ্রহ নিয়ে বসে আছে!

আমিন হারিত

  • দল : মরক্কো
  • ক্লাব : শালকে ০৪
  • ফ্রান্সের হয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ ইউরোজয়ী হারিত খেলছেন মরক্কোর হয়ে। ইতোমধ্যে শালকের হয়ে প্রতিভার ঝলক দেখানো হারিত প্রস্তুত বিশ্বকাপে মরক্কোর হয়ে আলো ছড়াতে!

সেরদার আজমুন

  • দল : ইরান
  • ক্লাব : রুবিন কাজান
  • ইরানের এই মূল স্ট্রাইকার এর মধ্যেই পরিচিত হয়ে গিয়েছেন “ইরানিয়ান মেসি” নামে। ইউর্গেন ক্লপ খুব চেয়েছিলেন আজমুনকে লিভারপুলে নিয়ে আসতে, কিন্তু আজমুন নিজেই কম বয়সে যেতে চাননি, চেয়েছেন রুবিন কাজানের হয়ে আরেকটু পরিপক্ক হতে। বিশ্বকাপের পর বড় ক্লাবগুলোর লাইন লেগে যেতে পারে তাঁকে পাওয়ার জন্য!

বেঞ্জামিন পাভার্ড

  • দল : ফ্রান্স
  • ক্লাব : ভিএফবি স্টুটগার্ট
  • এই ফ্রান্স দলে রাইটব্যাক পজিশনে জিব্রিল সিদিবের বিকল্প হিসেবে নেওয়া হয়েছে এই পাভার্ডকে। স্টুটগার্টের হয়ে এই মৌসুমে প্রতি ম্যাচে প্রতি মিনিট খেলা পাভার্ডের প্রতি আগ্রহী লিভারপুল ও টটেনহ্যাম

প্রেসনেল কিমপেম্বে

  • দল : ফ্রান্স
  • ক্লাব : পিএসজি
  • এমনিতেই এখন বেশ বড় ক্লাবেই আছেন, কিন্তু এখনো পিএসজিতে থিয়াগো সিলভা, মার্কুইনহোসদের বিকল্প সেন্টারব্যাক হিসেবে ভাবা হয় কিমপেম্বেকে। বিশ্বকাপের পর এই পরিস্থিতির পরিবর্তম আসতেই পারে!

নাবিল ফেকির

  • দল : ফ্রান্স
  • ক্লাব : অলিম্পিক লিওঁ
  • লিওঁর অধিনায়কের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখে লিভারপুল এই মৌসুমেই তাকে আনতে চাইলেও মেডিকাল রিপোর্ট সন্তোষজনক না হওয়ায় পিছু হটেছে লিভারপুল। বিশ্বকাপে নাবিল ফেকিরের পারফরম্যান্স দেখে লিভারপুলকে পরে আবার আফসোস করতে হতেও পারে!

ইয়ানিক ভেস্টারগার্ড

  • দল : ডেনমার্ক
  • ক্লাব :
  • ড্যানিশ এই সেন্টারব্যাক ১৭ বছর বয়স থেকে জার্মান লিগে খেলে খেলে নিজেকে পোক্ত করেছেন। এবার ড্যানিশ ডিফেন্সের অন্যতম ভরসা এই সেন্টারব্যাক বিশ্বকাপের পর বড় দলে চলে যেতে পারেন

পিওনে সিসতো

  • দল : ডেনমার্ক
  • ক্লাব : সেল্টা ভিগো
  • লা লিগা যারা অনুসরণ করেন তারা জানেন সেল্টাভিগোর এই উইঙ্গার কতটা ভয়ঙ্কর। বিশ্বকাপের মঞ্চে নিজেকে মেলে ধরতে পারলে কাড়াকাড়ি লেগে যেতে পারে সিসতোকে নিয়েও

ম্যাক্সিমিলিয়ান মেজা

  • দল : আর্জেন্টিনা
  • ক্লাব : ইন্দিপেন্দিয়েন্তে
  • ম্যানুয়েল লানজিনির ইনজুরির কারণে আর্জেন্টিনার মূল একাদশে সুযোগ হয়ে যেতে পারে উইঙ্গার ম্যাক্সি মেজার। ভালো খেললে নজরে পড়তে পারেন বড় ক্লাবের, যদিও এখনই শোনা যাচ্ছে তার প্রতি আগ্রহী ইন্টার মিলান

ক্রিস্টিয়ান পাভন

  • দল : আর্জেন্টিনা
  • ক্লাব : বোকা জুনিয়র্স
  • আর্জেন্টিনার আরেক উইঙ্গার, যিনি এর মধ্যেই নিজের স্টাইল দিয়ে মুগ্ধ করেছেন মেসিকে। শোনা যাচ্ছে তাঁকে বার্সেলোনাতেও আনতে পারেন মেসি!

ফ্র্যান্সিস উজোহো

  • দল : নাইজেরিয়া
  • ক্লাব : দেপোর্তিভো লা করুনিয়া
  • নাইজেরিয়ার এই গোলরক্ষক লা লিগার ইতিহাসের কনিষ্ঠতম বিদেশী গোলরক্ষক। দেপোর্তিভো করুনিয়ার হয়ে খেলা এই গোলরক্ষকের জন্য আগ্রহী হতে পারে অনেক ক্লাব, যেমনটা গতবার বিশ্বকাপে নাভাস বা ওচোয়াকে নিয়ে হয়েছিল অনেকে!

ব্রিল এমবোলো

  • দল : সুইজারল্যান্ড
  • ক্লাব : শালকে ০৪
  • সুইজারল্যান্ডের ইতিহাসের সবচেয়ে দামী এই খেলোয়াড় ২২.৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে দুই বছর আগে যোগ দেন শালকে ০৪ এ। এই সুইস দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ এমবোলো তাঁর প্রতিভা দিয়ে বিশ্বকাপের পর জায়গা করে নিতে পারেন বড় কোন দলে!

লুকা ইয়োভিচ

  • দল : সার্বিয়া
  • ক্লাব : বেনফিকা
  • বেনফিকার এই স্ট্রাইকার এর মধ্যেই “সার্বিয়ান রাদামেল ফ্যালকাও” হিসেবে পরিচিত হয়ে গিয়েছেন নিজের দেশে, কলম্বিয়ান স্ট্রাইকারের সাথে খেলার স্টাইল প্রায় এক হবার কারণে

হুলিয়ান ব্র্যান্ট

  • দল : জার্মানি
  • ক্লাব : বেয়ার লেভারক্যুজেন
  • জার্মান এই মিডফিল্ডারকে এর মধ্যেই চেয়েছিল লিভারপুল, কিন্তু সেখানে না গিয়ে নিজের ক্লাবের চুক্তি নবায়ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। বিশ্বকাপে প্রতিভার ঝলক দেখাতে পারলে লেভারক্যুজেনে আর কেউ আটকে রাখতে পারবেনা ব্র্যান্টকে এটা নিশ্চিত!

হেসুস কোরোনা

  • দল : মেক্সিকো
  • ক্লাব : পোর্তো
  • ফর্মে থাকলে বিশ্বের যেকোন ডিফেন্সকে নাকানিচুবানি খাওয়ানোর সামর্থ্য আছে হেসুস কোরোনার। পোর্তোতে খেলা এই উইঙ্গার এবার মেক্সিকোর বড় ভরসা।

হিরভিং লোজানো

  • দল : মেক্সিকো
  • ক্লাব : পিএসভি আইন্দহোভেন
  • মেক্সিকোর “লুইস সুয়ারেজ” বলা হয়ে থাকে তাকে। কেননা, লুইস সুয়ারেজের মত ইনসাইড ফরোওয়ার্ডের খেলার স্টাইলের সাথেও তার যেমন মিল রয়েছে, সুয়ারেজের মত তারও বিতর্ক নিত্যসঙ্গী। পিএসভির হয়ে দুর্দান্ত মৌসুম কাটানো লোজানোকেও বাগিয়ে নিতে পারে বড় কোন ক্লাব।

এমিল ফোর্সবার্গ

  • দল : সুইডেন
  • ক্লাব : র‍্যাসেনবলস্পোর্ত লাইপজিগ
  • যারা নিয়মিত জার্মান বুন্দেসলিগা দেখেন তারা জানেন এক বছর আগে আরবি লাইপজিগ যখন বুন্দেসলিগায় দ্বিতীয় হল, ফোর্সবার্গ তখন কিরকম ফর্মে ছিলেন! এবারের সুইডেনের মহাতারকা বলতে গেলে তিনিই।

ইউরি তিয়েলেমান্স

  • দল : বেলজিয়াম
  • ক্লাব : মোনাকো
  • বেলজিয়ান ফুটবলের নতুন স্বর্ণবালক মানা হচ্ছে তাকে। আণ্ডারলেখটের হয়ে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে মোনাকোতে জায়গা করে নেওয়া তিয়েলেমান্স বেলজিয়ামের মূল দলে সুযোগ না পেলেও সাবস্টিটিউট হিসেবে নেমেও ঝলক দেখাতে পারেন।

লিয়ান্ডার ডেনডোনকার

  • দল : বেলজিয়াম
  • ক্লাব : আন্ডারলেখট
  • ইংলিশ অনেক ক্লাব এর মধ্যেই ডেনডোনকারের ব্যাপারে আগ্রহী। বিশ্বকাপে ভালো পারফরম্যান্স সেই আগ্রহের পারদটাকে বারাতেই পারে কেবল!

ক্যারল লিনেত্তি

  • দল : পোল্যান্ড
  • ক্লাব : সাম্পদোরিয়া
  • পোল্যান্ডের মিডফিল্ডের মূল ভরসা তিনি। মিডফিল্ড থেকে খেলা গড়ে দেওয়ার পাশাপাশি সামনে এগিয়ে গিয়ে স্ট্রাইকার রবার্ট লেফান্ডোফস্কির সাথে বল আনা-নেওয়াও করেন তিনি।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

5 + one =