বিপিএল ইজ ব্যাক

BPL is back !

৫ বলে ৩ লাগত । মাশরাফির জন্যে হিট এন্ড গো অপশন ছিলো কোনভাবে উইকেট নেওয়া । ইয়র্কারটা ম্যাশের সেভাবে আসে না । তাই বাউন্সারই ভরসা ছিলো । বাউন্সারটাও ভালো ছিলো । কিন্ত ভাগ্য সাথে ছিলো না । এফোর্ট ছাড়া নাসির জিতিয়ে বেরোলো ।

আজকের দিনে দুটো দল জিতলো । দুই দলের শক্তি দুই রকম । সৌম্য-সিমন্সের কথা ড্রাফটের দিনই মানুষ বলেছে । এর বাইরে তাদের সাকিব-স্যামি আর থিসারায় এক্সপ্লোসিভ মিডল অর্ডারের কথাও মানুষের মুখে মুখে ফিরেছে । শেষমেষ এটাই সত্য হলো । মিডল অর্ডারটা স্রেফ ধ্বংসাত্মক ওদের ! আর মিসবাহ উল হক যে ভালো ক্লিনহিটিংটা পারেন সেটা দেখতে হলে ২০০৭ এ ফিরে যেতে হবে । হাফ শট খেলে না টেস্টেও । যেটা মারে , সেটা বড় করেই মারে এবং কব্জিতে জোরটাও আছে ।

মুস্তাফিজ-ইয়াসির শাহের সাথে মোশাররফ রুবেল । অনেক কার্যকর একটা টি২০ বোলিং লাইনআপ । ফরহাদ রেজা আর আবুল হোসেনের ভরসা নেই । আসলেই নাই । তবে ঢাকার জন্যে মোস্তা আর ইয়াসির শাহ থাকাতে বোলিং বড় ইস্যু হবে না । ইস্যু হবে তাদের স্ট্রোকমেকারের অভাবটা ।

নাসির ভালো স্ট্রাইক রোটেটর । এক হাতে ম্যাচ বের করে দেওয়ার লোকটা নাসির না । ডোশেট সবচেয়ে ভালো জেনুইন ব্যাটসম্যান এই লাইন আপে সাঙ্গাকারার পরে । বিগ স্কোরিং ম্যাচে ধুমধাড়াক্কা করতে ঢাকার একটু সমস্যা আসলেই হবে । ডোশেটের ব্যাক আপ ইংলিশ ডেভিড মালান । এই ফরম্যাটের পরীক্ষিত হলেও আসলে এখানে কতোটা ভালো করতে পারবে তা নিয়ে ডাউট একটু থেকেই যায় ।

বরিশালকে কাগজে কলমে সবচেয়ে ভগ্নশক্তির দল মনে হয়েছে (অবশ্যই গেইলকে প্রথম কয়েক ম্যাচ মিস করাকে আমলে নিয়ে ) । তারা কি চমকে দিতে পারবে ?

চমকে দিক !

তবে অনেকগুলো কথা বলতে হবে ব্রডকাস্টিং নিয়েও । তামিম আর দিলশান ওপেন করে । সাকিব করে বোলিং এর ওপেনিং । বিপিএলের মত একটা টুর্নামেন্টের শুরুটা এর চাইতে তারায় ঠাসা হতে পারতো না । এক্সাইটমেন্ট চরমে উঠার কথা ক্রিকেটের লোকদের ।

কিন্তু কীসের কি ?

হে চ্যানেল নাইন !
আপনাদের কে বোঝাবে সালমান খানের কনসার্ট কভার করা আর বড় লেভেলের একটা টি২০ টুর্নামেন্ট কভার করা এক কথা না ? সাকিবের জায়গায় বোলিং এ প্রথমে নাম দেখালো সজীব … একজনের রান গেলো আরেকজনের নামে ।
স্কোরার সাহেব !
ইহা সিরিয়াল নাটকের শেষে নাম উঠার কাজ না যে চিত্রগ্রাহকের জায়গায় সহকারী পরিচালকের নাম আর শিশুশিল্পীর জায়গায় সহকারী সম্পাদকের নাম দিয়ে দিলে মানুষ খেয়াল করবে না ! সাকিবের নাম ভুল উঠাটা ক্ষমার অযোগ্য রকমের ভুল ।
ক্যামেরা কাঁপে !
ভিভ রিচার্ডসের সময়কার খেলা দেখতাম আগে স্টার ক্রিকেটে । সাউন্ড কোয়ালিটি ঠিক সেই যুগের মত । বিরক্তিকর ! খসখসে ! ঘ্যাড়ঘেড়ে !
থার্ড আম্পায়ার ডিসিশন পেন্ডিং এর সময় রাস্তার ট্রাফিক বাত্তির মত লাল আর সবুজ বাত্তি ।
মানুষকে এন্টিক কোন কিছুর স্বাদ দেওয়ার লক্ষ্য থাকলে ঠিক আছে । কিন্তু তা না থাকলে এই ব্রডকাস্টার না বদলাইলে স্বয়ং মেসি এসে বিপিএলে ক্রিকেট খেললেও মানুষ দেখবে না ।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

3 − two =