বিদায়, আর্সেন ওয়েঙ্গার!

বিদায়, আর্সেন ওয়েঙ্গার!

আর্সেনাল একেকটা ম্যাচ হারলে, বা ড্র করলেই শেষ কয়েক মৌসুমে প্রায়ই একটা স্লোগান শোনা যেত – WENGER OUT… মোটামুটি সবাই হালকাপাতলা মেনে নিয়েছিলেন আধুনিক যুগে আর্সেনালের সবচেয়ে সফল ও দীর্ঘস্থায়ী ম্যানেজার আর্সেন ওয়েঙ্গারের আর নতুন কিছু দেওয়ার নেই আর্সেনালকে। বর্তমান সময়ে কোন ক্লাবে এত বেশী বছর ধরে আর অন্য কোন ম্যানেজার থাকতে পেরেছিলেন কি? মনে হয় না। জাপানের নাগোয়া গ্রাম্পাস এইট থেকে ১৯৯৬ সালেও আর্সেনালে আসা এই প্রফেসর অবশেষেও নিজের পদ থেকে ইস্তফা দিতে যাচ্ছেন। ২২ বছর থাকার পর, দলকে তিনবার লিগ শিরোপা, সাতবার এফএ কাপসাতবার কমিউনিটি শিল্ড জিতিয়ে আর্সেনালের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিতে যাচ্ছেন কিংবদন্তী কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গার, এই মৌসুমের পরেই আর্সেনালের কিংবদন্তী এই ম্যানেজারকে ডাগআউটে দেখা যাবেনা আর। চলমান চুক্তি শেষ হয়ে যাওয়ার পর তিনি আর নতুন চুক্তি সই করছেন না।

প্রিমিয়ার লিগে এই আর্সেন ওয়েঙ্গার ই একমাত্র ম্যানেজার যিনি কিনা লিগে একটাও ম্যাচ না হেরে লিগ জিতেছিলেন আর্সেনালের হয়ে, ২০০৩-০৪ মৌসুমে। এই ওয়েঙ্গারের তত্ত্বাবধানেই তারকা হয়ে উঠেছিলেন থিয়েরি অঁরি, সেস ফ্যাব্রিগাস, রবিন ভ্যান পার্সি, রবার্ট পিরেস, প্যাট্রিক ভিয়েরা, ইয়েন্স লেম্যান, বাকারি স্যানিয়া, সল ক্যাম্পবেল, লরাঁ কসিয়েনি, কোলো ট্যুরে, মার্ক ওভারমার্স, অ্যাশলি কোল রা। অনেক কম দামে প্রতিভা খুঁজে বের করার একটা অসাধারণ ন্যাক ছিল ওয়েঙ্গারের। ওয়েঙ্গারের শেষ কয়েক মৌসুমে মেসুত ওজিল, অ্যালেক্সিস স্যানচেজ, অ্যালেক্সান্দ্রে ল্যাকাজেটে ও পিয়েরে এমেরিক অবামেয়াং এর আগমনের হিসাব বাদ দিলে এই বাইশ বছরে বলতে গেলে নিজের দলের তারকাদের নিজের হাতেই গড়েছেন তিনি। অনেক খেলোয়াড়কে কুঁড়িতে থাকা অবস্থাতেই আর্সেনালে আনতে চেয়েছিলেন, বিভিন্ন কারণে পারেননি, পরে তারাই বিশ্ব মাতিয়েছে বিভিন্ন সময়ে। প্রিমিয়ার লিগে আর্সেনালের ম্যানেজার হিসেবে ৮২৩ ম্যাচে ৪৭৩ বার জয় পেয়েছেন ওয়েঙ্গার, ১৫১ ম্যাচ হেরেছেন। তাঁর অধীনে আর্সেনাল গোল করেছে ১,৫৪৯ টি।

চলমান মৌসুমে আর্সেনাল ষষ্ঠ হয়ে লিগ শেষ করছে, যা ওয়েঙ্গারের অধীনে লিগে আর্সেনালের সবচাইতে বাজে ফলাফল। ফলে এই নিয়ে টানা দুই বছর চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলতে পারবেনা তারা। তবুও, যদি এবারের ইউরোপা লিগ জিততে পারে তারা, তবে সামনের মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলতে পারার সম্ভাবনা আছে, নচেৎ নেই। সামনে ইউরোপা লিগের সেমিফাইনালে অ্যাটলেটিকোর বিরুদ্ধে লড়বে তারা। অ্যাটলেটিকো বাঁধা পার হলে ফাইনালে দেখা হবে রেড বুল সালজবার্গ বা অলিম্পিক মার্শেই এর মধ্যে যেকোন এক দলের সাথে। আর্সেনাল খেলোয়াড়েরা কি পারবেন ইউরোপা লিগ জিতে কিংবদন্তী এই কোচকে বিদায়ী উপহার দিতে?

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

one × three =