বিদঘুটে নিয়মে বাদ পড়লো সেনেগাল!

বিদঘুটে নিয়মে বাদ পড়লো সেনেগাল!

গ্রুপ এইচ এর দলগুলোর প্রথম রাউন্ডের শেষ ম্যাচগুলো ছিল আজকে। জাপান মুখোমুখি হয়েছিল পোল্যান্ডের, আর সেনেগাল মুখোমুখি হয়েছিল কলম্বিয়ার। আজকের ম্যাচের আগে জাপান আর সেনেগাল, দুই দলেরই পয়েন্ট ছিল ৪ করে। ওদিকে কলম্বিয়ার পয়েন্ট ছিল ৩। প্রথম দুই ম্যাচ থেকে কোন পয়েন্ট না পাওয়া পোল্যান্ডের বিদায় প্রথম দুই ম্যাচেই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। তাই আজকের ম্যাচ দুটো ছিল মূলত বাকী তিনদলের লড়াই, গ্রুপ ‘এইচ’ এর চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ হবার জন্য। আর এতেই কপাল পুড়লো সেনেগালের।

আজকের ম্যাচে বার্সেলোনার সেন্টারব্যাক ইয়েরি মিনার গোলে সেনেগালকে ১-০ গোলে হারিয়েছে কলম্বিয়া। ওদিকে সেন্টারব্যাক ইয়ান বেদনারেকের গোলে ১-০ গোলে জাপানকে হারিয়েছে পোল্যান্ড। ফলে কলম্বিয়ার পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬, জাপান ও সেনেগালের পয়েন্ট ৪ এ থেকেছে, আর পোল্যান্ডের পয়েন্ট হয়েছে দুই। ফলে এই গ্রুপ থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়েই দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠছে হামেস রড্রিগেজ, রাদামেল ফ্যালকাওদের কলম্বিয়া।

কিন্তু ঝামেলাটা লেগেছে এই গ্রুপের রানার্সআপ নিয়ে। জাপান আর সেনেগালের মধ্যে এই একটা পজিশনের জন্য হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে শেষ পর্যন্ত। আর এই লড়াইয়ে জিতেছে এশীয় দেশ জাপান। কিভাবে জিতেছে? জানলে চোখ কপালে উঠবে আপনার!

জাপান, সেনেগাল দুই দলেরই পয়েন্ট একই – ৪। এই অবস্থায় যেই দলের গোল ব্যবধান বেশী সে অপেক্ষাকৃত উপরের অবস্থানে থাকবে। এখন ব্যাপার হল জাপান আর কলম্বিয়া দুই দলেরই গোল ব্যবধানও একই – শূণ্য ; অর্থাৎ এই দুই দলই যতটা গোল দিয়েছে, ততটা গোল খেয়েছেও।

দুই দলের পয়েন্ট ও গোল ব্যবধান সমান হলে দেখা হয় কোন দল বেশী গোল দিয়েছে, সেটা। যে বেশী গোল দিয়েছে সে অপেক্ষাকৃত উপরের অবস্থানে থাকবে। কিন্তু এখানেও বিধি বাম! দুই দলই গোল দিয়েছে ৪টা, খেয়েছেও ৪টা! এই পরিস্থিতিতে দেখা হয় দুই দলের মুখোমুখি লড়াইতে কে জিতেছে, সেটা। এখানেও জাপান-সেনেগালে অবিশ্বাস্য সাম্যতা ; নিজেদের মধ্যকার ম্যাচে যে ২-২ গোলে ড্র করেছে তারা!

এই অবস্থায় জাপান আর সেনেগালের মধ্যে পার্থক্য করার জন্য ফিফা প্রদত্ত আর একটাই নিয়ামক আছে, সেটা হল ফেয়ার প্লে পয়েন্ট। কোন দল কতটা পরিচ্ছন্ন খেলেছে, সেটা। যে দল বেশী হলুদ বা লাল কার্ড হজম করবে, সেই দলকে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হবে এক্ষেত্রে! আর এখানেই কপাল পুড়েছে সাদিও মানে, কালিদু কোলিবালিদের সেনেগাল এর! গ্রুপপর্বে চারটা হলুদ কার্ড দেখেছে জাপানি খেলোয়াড়েরা, আর ওদিকে ৬টা হলুদ কার্ড দেখেছে সেনেগাল! ব্যস! এতেই কপাল পুড়লো পুরো বিশ্বকাপে আনন্দদায়ী খেলা উপহার দেওয়া সেনেগাল এর!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

17 − 7 =