বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা : কেমন হতে পারে টাইগারদের একাদশ?

বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা : কেমন হতে পারে টাইগারদের একাদশ?
আগামীকাল থেকে বাংলাদেশের এশিয়া কাপ মিশন শুরু হতে যাচ্ছে। উদ্বোধনী ম্যাচে তারা মুখোমুখি হতে যাচ্ছে শ্রীলংকার। এ পর্যন্ত ৩৮টি ম্যাচে ৪টি জয়ের বিপরীতে ৩৩টি হারের সম্মুখীন হতে হয়েছে বাংলাদেশের।
 
তবে বাংলাদেশ প্রেরণা নিতে পারে শ্রীলংকানদের বিপরীতে এ বছরের মার্চে অনুষ্ঠিত ত্রিজাতীয় টি-২০ সিরিজে টানা ২বার জয় লাভের সুখ স্মৃতি থেকে।
 
চলুন দেখে নেয়া যাক কেমন হতে পারে বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা ম্যাচে বাংলাদেশের ব্যাটিং একাদশ।
 
ওপেনিংয়ে তামিমের বিকল্প নেই। সদ্য সমাপ্ত ওয়ানডে সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২৮৭ রান (২টি সেঞ্চুরি) কিংবা ২০১৮ সালে ঈর্ষণীয় ৮৯.৮৩ গড়ই জানান দিচ্ছে বাংলাদেশের ইনিংসে শুভ সূচনা ও দলের জয়ের জন্য তামিম কতটা ভাইটাল। তামিমের পার্টনার হিসেবে লিটন, মিথুন ও শান্ত এর মধ্যে লিটনকেই এগিয়ে রাখতে হবে। নিদাহাস ট্রফিতে শ্রীলংকার বিপক্ষে ৪৩ রানের ঝড় ইনিংস কিংবা সদ্য সমাপ্ত টি-২০ সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৬১ রানের ঝলমলে ইনিংস লিটন দাসকেই এগিয়ে রাখবে এখনো ওয়ানডেতে অভিষেক না হওয়া শান্ত থেকে।
 
ওয়ান ডাউনে সাকিব এবং সর্বশেষ স্কোয়াডে যোগ দেয়া মমিনুলের মধ্যে থেকে অবশ্যই সাকিবকে খেলাবে টিম ম্যানেজমেন্ট যদি সাকিব ১০০% ফিট থাকে। যদিও আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দলের বিপক্ষে ১৮২রানের ইনিংস মমিনুলকে টিমে জায়গা এনে দিলেও ওয়ান ডাউন পজিশনে সাকিবকে সরিয়ে তাকে খেলার জায়গা করে দিবেনা টিম ম্যানেজমেন্ট। তিন নম্বর পজিশনে ৪২.৪৪ ক্যারিয়ার গড় অথবা সদ্য সমাপ্ত সিরিজে তামিমের সাথে ওয়ান ডাউনে নেমে ২০৭ রানের পার্টনারশিপ এবং ব্যাক টু ব্যাক পঞ্চাশোর্ধ ইনিংস তিন নম্বর ব্যাটিং পজিশনে সাকিবের জায়গা আরো পাকাপোক্ত করে।
 
৪ নম্বর এবং ৫ নম্বর পজিশনে “দি এভার ডিপেন্ডেবল ডুয়ো” মুশফিক ও মাহমুদুল্লাহ এর বিকল্প নেই। নিদাহাস কাপে বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা ম্যাচে শ্রীলংকার দেয়া ২১৫ রানের অসম্ভব টার্গেট তাড়া করে জেতানো মুশফিকের ৩৫ বলে ৭২ রানের ইনিংস কিংবা শেষ অভারে ছক্কা হাকিয়ে শ্রীলংকা টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় জানানো মাহমুদুল্লাহ এর ইনিংস এই দুজনের বাংলাদেশ দলের জয়ে গুরুত্বটাকেই জানান দেয়। সাব্বিরের অনুপস্থিতিতে ষষ্ঠ পজিশনে মোসাদ্দেক এর পজিশন মোটামুটি পাকা বলা যাচ্ছে। যদিও ইনজুরি থেকে ফেরার পর চিরচেনা মোসাদ্দেককে ব্যাটিংয়ে খুৃঁজে পাওয়া না গেলেও ১৬ কোটি ভক্ত আশা করবে এশিয়া কাপেই যেন সে ফর্ম ফিরে পায়। ৭নম্বর পজিশনের লড়াইয়ে শান্ত/ মিথুন/ আরিফুলের মধ্যে আরিফুলের সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। ইনজুরিতে আক্রান্ত শান্ত আগামীকালের ম্যাচের জন্য ফিট না থাকার চান্সই বেশি। যদিও মিথুন “এ” দলের হয়ে আয়ারল্যান্ডে ভালো পারফর্ম করেছেন তবুও আরিফুল ও মিথুনের মধ্যে টিম ম্যানেজমেন্টের আরিফুলকেই বেছে নেওয়ার সুযোগ বেশি। এর কারণ হতে পারে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি তার মিডিয়াম পেস বোলিং। নাজমুল অপু ও মিরাজের মধ্যে স্পিনার হিসেবে ওডিআই ফরম্যাটে টিম ম্যানেজমেন্টের প্রথম পছন্দ অবশ্যই মিরাজ। সদ্য সমাপ্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ওডিআই সিরিজে ৪.০৬ ইকোনমি ও ৩ উইকেট মিরাজ যে ছন্দে রয়েছেন তারই জানান দেয়। তিন জন পেস বোলার নিয়ে বাংলাদেশের সম্ভ্রাব্য বোলিং লাইনআপ সাজানোর সম্ভাবনাই বেশি। এক্ষেত্রে অধিনায়ক মাশরাফি ও মুস্তাফিজ এর জায়গা একাদশে নিশ্চিত। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ওয়ানডে সিরিজে মাশরাফি ৪.৯ ইকোনোমিতে সর্বোচ্চ ৭ উইকেট এবং টি-২০ সিরিজে মুস্তাফিজ সর্বোচ্চ ৮ উইকেট সংগ্রহ করেন। ৩য় পেস বোলার হিসেবে রুবেল/ রনি এর মধ্যে রুবেলের খেলার সম্ভাবনাই বেশি। যদিও পেস ভেরিয়েশন ও রানের চাকা রোধে রনি দারুণ ভূমিকা পালন করতে পারেন। কিন্তু দুবাইয়ের পিচে “খরুচে” বোলার রুবেলের লেট রিভারসুইং এবং অভিজ্ঞতাই তাকে দলে জায়গা এনে দেবে বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা ম্যাচে।
 
বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা ম্যাচে বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: তামিম, লিটন, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ, মোসাদ্দেক, আরিফুল, মেহেদী, মাশরাফি, রুবেল ও মোস্তাফিজ।
লিখেছেন – জাইন উজ জামান

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

19 + six =