বদলে যাওয়া কোকুইলান!

গতিময় ইংলিশ ফুটবলের সাথে আর্সেনালের ক্রীড়া দর্শন ইতিবাচক অর্থেই কিছুটা বেমানান। আর্সেনালে আসার পর থেকেই ওয়েঙ্গার তাঁর সুন্দর ফুটবলীয় দর্শন উপহার দিয়ে আসছেন ক্রীড়ামোদীদের। মাঝমাঠ নির্ভর খেলা আর্সেনালের মূল উপজীব্য শক্তি। যদিও গত দুই বছরের বেশী সময় ধরে চোট সহ নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত আর্সেনালের মাঝমাঠ। বিশেষ করে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপার দাবিদার দলগুলোর বিপক্ষে পরাজয়ের মূল কারণ হয়ে দাঁড়ায় দূর্বল রক্ষণাত্মক মাঝমাঠ। ইয়াইয়া ত্যুরে, নেমানিয়া মাতিচ যেখানে বিপক্ষ দলগুলোর মাঝমাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন সেখানে বয়স্ক ম্যাথিউ ফ্লামিনি এবং চোটাক্রান্ত মিকেল আর্তেতা পাল্লা দিয়ে ঠিক যেন তাল মেলাতে পারছেন না। ফলাফল হিসেবে মিলছে পয়েন্ট টেবিলে ছন্দপতন।
Francis Coquelinপ্রত্যাশার চাপ, সমর্থকদের বিরূপ আচরণ, দলবদলের বাজারে চড়া দাম সবকিছু মিলিয়েই বেশ চাপে আছেন আর্সেনাল বস ওয়েঙ্গার। চাপের দাবদাহের মাঝে যেন এক মৃদুমন্দ বাতাস হয়েই ধরা দিলেন ওয়েঙ্গারের স্বদেশী ফ্রান্সিস কোকুইলান! ২০০৮ সালে আর্সেনালে নাম লেখানো এই রক্ষণাত্মক মাঝমাঠের খেলোয়াড় এই বছরের শুরু থেকেই যেন নতুন রূপে ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন। আর্সেনালের হয়ে কখনোই পুরো মৌসুমে থাকা হয়নি কোকুইলানের, যদিও আর্সেনালের এসেছেন প্রায় ৭ বছর হতে চলল! মৌসুমের শুরুতে কিংবা মৌসুমের মাঝমাঝিতে ওয়েঙ্গার ধারে পাঠিয়েছেন এই ফরাসিকে। যখনই মৌসুম শেষ করে ফিরে এসেছেন ওয়েঙ্গার তাঁকে পাঠিয়েছেন অন্য আরেক ক্লাবে ধারে খেলাতে। এভাবেই কেটে গেছে কোকুইলানের সাড়ে ছয় বছর!ramsey-puji-kontribusi-coquelin-o0D

 

মৌসুমের প্রথমার্ধ শেষে র‍্যামজি, ফ্লামিনি, আর্তেতা এই তিন মাঝমাঠের খেলোয়াড় একসাথে চোটে পড়লে চিন্তায় নিমজ্জিত হন আর্সেনাল বস। কিংকর্তব্যবিমূঢ় ওয়েঙ্গার তাই বাধ্য হয়েই মাঠে নামান কোকুইলানকে। ‘শাপে বর’ বাগধারার চাক্ষুষ প্রমাণ মাঠে রাখলেন কোকুইলান। এমিরেটস স্টেডিয়ামে করলেন বাজিমাত যার ফলশ্রুতিতে ওয়েঙ্গার ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে ইতিহাদ স্টেডিয়ামে মূল একাদশে রাখলেন এই ফরাসিকে। মৌসুমের শুরু থেকেই দোর্দণ্ড প্রতাপে এগিয়ে চলা ম্যানচেস্টার সিটির আক্রমণভাগকে নিষ্ক্রিয় করে দেয়ার ভূমিকায় অগ্রনায়কের চরিত্রে আবির্ভাব হলেন কোকুইলান। আর্সেনাল ম্যাচ জেতে ০-২ গোলে। গত পহেলা ফেব্রুয়ারিতে ঘরের মাঠে ৫-০ গোলে জয় পায় আর্সেনাল। ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার তাঁর হাতে না উঠলেও এই ম্যাচেও অসাধারণ খেলেছেন মাঝমাঠের এই খেলোয়াড়। রক্ষণের জটিলতায় ভুগতে থাকা আর্সেনাল যেন শেষমেশ সেই কাঙ্ক্ষিত পাঞ্জেরিকেই পেতে চলেছে! আবারো বড় স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন আর্সেনাল ভক্তরা। ম্যানচেস্টার ইউনাটেড এবং সাউদাম্পটনকে পিছনে ফেলে ৩য় স্থান দখল করবে আর্সেনাল এমনটাই বিশ্বাস করতে শুরু করেছে সমর্থকবৃন্দ। কেননা ত্রাতা হয়ে এসেছেন সেই ‘ফ্রান্সিস কোকুইলান’!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

four × 5 =