ফিন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তা ২.০ : টিম হেলরেইজার্স এফসি প্রিভিউ

গেল বছরের মত এবারও উৎসবমুখর পরিবেশ নিয়ে আসছে ফাইন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তা ২.০। এবারের আসরের অন্যতম শক্তিশালী দল হচ্ছে টিম হেলরেইজার্স এফসি। গত ১৬ জুলাই বনানীর নটরডেমিয়ান ক্লাবে অনুষ্ঠিত খেলোয়াড় নিলামে হেলরেইজার্স বেছে নিয়েছে অদম্য তারুণ্যে উদ্দীপ্ত খেলোয়াড়দের। এই শক্তিশালী দলটি নির্বাচন করা হয়েছে ১৪তম, ১৮তম, ২২তম ও ২৫ তম ব্যাচ এর প্রগাঢ় তারুণ্যে বলীয়ান খেলোয়াড়দের নিয়ে।

দলটির মালিকানায় আছেন ১৪তম ব্যাচের মাসুম বিল্লাহ, রিয়াজুল ইসলাম এবং রাজ শুভ নারায়ন চৌধুরী। এবারের আসরে তারা নিজেরাই মিডফিল্ডে চমক দেখানোর জন্য সদা প্রস্তুত। এ দলের ম্যানেজার হিসেবে রয়েছেন ১৮তম ব্যাচের নিশাত আহমেদ। দেশের সর্বপ্রথম স্পোর্টস ব্লগ গোল্লাছুট ডটকমের সহপ্রতিষ্ঠাতা কুশলী এই ম্যানেজার নিজের ব্যাচকে একবার এফসিএলের শিরোপা জিতিয়েছেন এর আগে। ফাইন্যান্স ডিপার্টমেন্টের মূল ফুটবল দলের দায়িত্বেও ছিলেন এক বছর। গত বছরের খেলোয়াড় তালিকা থেকে এই আসরের জন্য রিটেইন করা হয়েছে ১৮ তম ব্যাচের জিশান ইবনে জামান কে। ফুটবলপ্রেমী এই খেলোয়াড়ই নেতৃত্ব দেবেন টিম হেলরেইজার্স কে। ফাইন্যান্স ফুটবল টিমের প্রতি তাঁর অবদান অবিস্মরণীয়। তিনি যেকোনো টুর্নামেন্টে তার মিডফিল্ড এর নৈপুণ্য দিয়ে ছিনিয়ে আনতে পারেন বিজয়ের শিরোপা। মিডফিল্ড কি ফরোয়ার্ড, দুই পজিশনের সমান কার্যকরী তিনি। ফাইন্যান্স চ্যাম্পিয়নস লিগ (এফসিএল) এ ১৮ তম ব্যাচের হয়ে তাঁর জেতা জোড়া শিরোপাই তাঁর প্রমাণ। পাশাপাশি দল টির আইকন প্লেয়ার হিসেবে আছেন ২২ তম ব্যাচ এর সাদাত সিয়াম, তিনি তাঁর স্ট্রাইকিং নৈপুণ্যে এর মধ্যেই প্রতিপক্ষের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছেন। গত বছর মাইটি বুটস এর হয়ে হ্যাট্ট্রিক করার ইতিহাস গড়েছেন তরুণ এই স্ট্রাইকার। প্রতিপক্ষ দলের জন্য এক বিভীষিকার নাম হয়ে উঠেছেন তিনি। তাঁর পাশাপাশি ফরওয়ার্ড হিসেবে খেলছেন ২২তম ব্যাচ এর আব্দুল গাফফার জয় এবং ২৫তম ব্যাচের নাহিদ আল হাসান, যাদের ড্রিবলিং কারিশমা, সঠিক বল পজিশনিং এবং দুর্বার গতি প্রতিদন্দ্বী দলের হৃৎকম্পন বাড়িয়ে দেবে। দলের গোলকিপারের গুরুদায়িত্ব পালন করবেন ১৮তম ব্যাচের সরোয়ার হাবিব প্রিন্স, যিনি গত আসরের চ্যাম্পিয়ন গিকি এফসি এর পক্ষে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন। দুর্দান্ত পজিশনিং, জাম্পিং এবিলিটি এবং রিফ্লেক্স যেকোনো প্রতিপক্ষের জন্য ভীতির কারণ। দুর্দান্ত এই স্ট্রাইকার ও গোলকিপারের পাশাপাশি চীনের প্রাচীরের মত প্রস্তুত রয়েছে দলের ডিফেন্ডাররা। ২২তম ব্যাচের আসিফ আমিন এবং ২৫ তম ব্যাচের রমিম শিকদার ডিফেন্স এ অবস্থান নিয়ে গোলকিপার কে সহায়তা করতে সদা প্রস্তুত। স্ট্রাইকার ও ডিফেন্ডারদের সহায়তা করতে আর ও দুইজন দক্ষ মিডফিল্ডার ২২তম ব্যাচের সুব্রত নাথ আর শাহরুজ্জামান আকাশ, যারা নিজেদের পজিশনিং নৈপুণ্যে তাক লাগিয়ে দিতে পারে সবাইকে। দলের প্রচারণা বিভাগের প্রধান (হেড অফ প্রোমোশানস) হিসেবে কাজ করছেন ইমতিয়াজ ভুঁইয়া সৌরভ।

দক্ষ ব্যবস্থাপনা এবং প্লেয়ারদের ফুটবল নৈপুণ্যের শতভাগ প্রচেষ্টায় টিম হেলরেইজার্স এফসি ছিনিয়ে আনতে পারে ফাইন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তার শিরোপা। ইতিমধ্যে একটি সম্ভাবনাময় দল হিসেবে বেশ অনেক সমর্থক লাভ করেছে টিম হেলরেইজার্স। সমর্থকদের উপস্থিতি ও অনুপ্রেরণা দলের খেলোয়াড়দের উদ্দীপ্ত করে নিশ্চিত করতে পারে পরম আরাধ্য ফুটসাল ফিয়েস্তার শিরোপা।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

ten − six =