ফিন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তা ২.০ : বুম শাকা লাকা এফসি প্রিভিউ

Finance Futsal Fiesta 2.0 তে এবার মাঠ কাঁপাতে এসেছে ফারুক, ফারাজ এবং রাব্বি এর অধীনে বুম শাকা লাকা টিম। আসুন জেনে নেয়া যাক দলটির খেলোয়াড়দের সম্পর্কে কিছু কথা।

মাসরুর (গোলকিপার): ২৫ ব্যাচের তরুণ উদীয়মান তরকা মাসরুর বুম শাকা লাকার গোলবারের অতন্দ্র প্রহরী। তরুণ হলেও তাঁর অভিজ্ঞতার ঝুলি বেশ ভারি। স্কুল টিমের সফল গোলকিপার মাসরুর এখন ফিন্যান্স টিমের অন্যতম গোলরক্ষক।

সিহাব উদ্দিন ইমন (গোলকিপার): ২৪ ব্যাচের নিয়মিত গোলরক্ষক ইমন এবার বুম শাকা লাকা টিমের অন্যতম সদস্য। ইমনের গোলকিপিংটা ওর গানের মতোই মনোমুগ্ধকর।

ওবায়দুর রানা (ডিফেন্ডার) : ২০১৮ ফুটসালের চ্যাম্পিয়ন টিমের ডিফেন্ডার ওবায়দুর রানা এবার বুম শাকা লাকার রক্ষণভাগের দায়িত্বে আছেন। ১৮ ব্যাচের রানার আছে একাধিক FCL জেতার অভিজ্ঞতা।

মুশফিক রহমান (ডিফেন্ডার) : ঠান্ডা মাথার খুনি মুশফিক রহমান বুম শাকা লাকার অন্যতম সেরা প্লেয়ার। ২০ ব্যাচের মুশফিক ডিফেন্স এর পাশাপাশি খেলতে পারেন মিডফিল্ডার হিসেবেও।

আশরাফুল ইসলাম (ডিফেন্ডার) : সুঠাম দেহের অধিকারী আশরাফ ২২ ব্যাচের FCL জেতার অন্যতম কারিগর। বিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের থেকে বল কেড়ে নেয়ার নিখুঁত দক্ষতার অধিকারী আশরাফ।

চয়ন মজুমদার (মিডফিল্ডার) : ২২ ব্যাচের মাঝ মাঠের প্রানভোমরা চয়ন এবার বুম শাকা লাকার প্লেমেকার। চয়নের ড্রিবলিং দর্শকদের চোখের শান্তি। FCL জেতানো চয়নের আছে ফিন্যান্স টিমের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা।

সৌরভ হাসান (মিডফিল্ডার) : ফিন্যান্স টিমের নতুন সেনসেশন ২৫ ব্যাচের সৌরভ এবার বুম শাকা লাকার রাইট উইংগার। ছোটখাটো গড়নের হলেও ওর আছে বল নিয়ে প্রখর গতিতে অন্যের ডিফেন্স ভেদ করার ক্ষমতা।

আরিফুল ইসলাম আকাশ (মিডফিল্ডার) : শান্ত স্বভাবের আকাশ অন্য দলের ডিফেন্ডারদের জন্য এক আতংকের নাম। ২৩ ব্যাচের আকাশ এবার বুম শাকা লাকার  লেফট উইংগার। আকাশ বিপক্ষ দলের ডিফেন্স ভেদ করতে পারেন তার সুনিপুণ থ্রু পাসে।

খন্দকার সোহাগ তমাল (ফরোয়ার্ড) : ১৪ তম ব্যাচের তমাল হতে পারেন বুম শাকা লাকার এবারের ট্রাম্প কার্ড। অভিজ্ঞ তমালের আছে নিয়মিত FCL খেলার অভিজ্ঞতা।

মোহাম্মদ নাঈম (ফরোয়ার্ড) : ফিন্যান্স ফুটবল টিমের অন্যতম প্রতিভাবান প্লেয়ার ১৯তম ব্যাচের মোহাম্মদ নাঈম। নাঈমের ঝুলিতে আছে স্কিলের ফুলঝুরি। লিগামেন্ট সমস্যায় ভোগা নাঈম একাই গুড়িয়ে দিতে পারে বিপক্ষ দলকে।

মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম (ফরোয়ার্ড) : বুম শাকা লাকার অন্যতম সেরা এই ফরোয়ার্ড গোল করার পাশাপাশি কোর ক্ষেত্রেও বেশ পারদর্শী। মিডফিল্ডে নাঈমের সঙ্গে তাঁর রসায়নটা জমে দেখার মতো।

তারপর যেই দুইজনের কথা না বললেই নয় তারা হলেন  শাকিল আহমেদ (ম্যানেজার) এবং সাবিহা ফারহানা (অ্যাম্বাসেডর) ।

শাকিলের রণকৌশল হতে পারে বুম সাকা লাকার জয়ের অন্যতম হাতিয়ার। সাবিহা ফিন্যান্স ডিপার্টমেন্ট এর ছাত্রছাত্রীদের কাছে অতি পরিচিত মুখ। নানাবিধ গুণে পারদর্শী সাবিহা যেমন নিজে ফুটবল খেলেন তেমনি ফুটবল দলকে সাপোর্ট দেন মাঠের বাইরে থেকে।সাবিহা এবার চিয়ার করবে বুম শাকা লাকার ডাগ আউটে।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

eighteen − eight =