ফরাসী প্রতিদ্বন্দ্বিতার লীগ ওয়ান

bleacherreport

ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ বা স্প্যানিশ লা লিগার মতো জনপ্রিয় না ফ্রেঞ্চ লীগ ওয়ান। চ্যাম্পিয়ন্স লীগে সাফল্য বলতে সর্বশেষ ২০০৩-০৪ মৌসুমে এএস মোনাকোর রানার্স-আপ হওয়া। কিন্তু লীগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা কোন অংশেই কম নয়। সিজনের শুরুটা ভালো করে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন প্যারিসের ক্লাব পিএসজি। প্রথম স্থান ধরে রেখেছিল ৪ সপ্তাহের জন্য।

psg 2015

কিন্তু হঠাৎ যেন তাদের ড্র করার নেশা পেয়ে বসে। পরের ৫টি ম্যাচের ৪টিতেই ১-১ ফলাফলের ড্র। ঠিক এই সুযোগটাই নিয়ে নেন আর্জেন্টাইন ম্যানেজার মারসেলো বিলসার মার্শেই। প্রথম ২ ম্যাচে মাত্র ১ পয়েন্ট পাওয়া মার্শেই জিতে নেয় পরবর্তী টানা ৮টি ম্যাচ।

মার্শেইয়ের আর্জেন্টাইন কোচ মার্সেলো বিয়েলসা
মার্শেইয়ের আর্জেন্টাইন কোচ মার্সেলো বিয়েলসা

উঠে আসে লীগ টেবিলের শীর্ষে। ঠিক যখন মনে হচ্ছিল ফ্রেঞ্চ লীগ এবার হবে দুই ঘোড়ার প্রতিযোগিতা, তখনই নিজেদের অস্তিত্ব মনে করিয়ে দিলো টানা ৭ বার লীগ বিজয়ী দল অলিম্পিক লিও। তাদের সিজনের শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি। প্রথম ৫ ম্যাচের ৪টিতে হারের স্বাদ পেতে হয় ফ্রেঞ্চ ম্যানেজার হাবার্ট ফোরনিয়ারের দলের। কিন্তু নিজেদের মাঠে একে একে মোনাকো, মার্শেই এর মতো দলকে হারিয়ে পুরনো আত্মবিশ্বাস ফিরে পায় লিও।

bleacherreport
মৌসুমের মাঝপথে নিজেদের ফিরে পেয়েছে লিঁও

এরপর যেন লিও এক অপ্রতিরোধ্য দল। ১৪ ম্যাচে ১২টিতে জয় অর্জন করে, সাথে আরো অর্জন করে নেয় লীগের শীর্ষ স্থান। মার্শেইকে দ্বিতীয় এবং পিএসজিকে ঠেলে দেয় তৃতীয় স্থানে। লিওর এই প্রত্যাবর্তনে বড় ভূমিকা পালন করেন লীগ ওয়ানের সর্বোচ্চ গোলদাতা ফ্রেঞ্চ ফরওয়ার্ড আলেক্সান্দ্রে ল্যাকাজেটে।

bleacherreport
আলেক্সান্দ্রে ল্যাকেজেটে

২২ ম্যাচে ২১ গোল করেছেন, করিয়েছেন ৫টি। কিন্তু লিও বনাম মেটজ ম্যাচে গোল করার পর ইঞ্জুরি নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। মিস করেন লিওর গত দুটি ম্যাচ। এই দুই ম্যাচই ড্র নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় লিওকে, যার মধ্যে একটি ছিল বড় ম্যাচ পিএসজি এর বিপক্ষে। নিজেদের মাঠে ক্যামেরুনিয়ান স্ট্রাইকার জেই এর গোলে প্রথমে এগিয়ে থাকলেও খেলা শেষ হয় ১-১ গোলে। এতে করে দ্বিতীয় স্থানে থাকা মার্শেই এর সাথে পয়েন্ট ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ হারায় লিও। সুযোগ হারায় পিএসজিও। মার্শেই তাদের শেষ ম্যাচে রেনেসের সাথে ড্র করায় পিএসজি তাদের ম্যাচ জিতলে উঠে যেতে পারতো দ্বিতীয় স্থানে। ২৪ ম্যাচ শেষে লিও ৫০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছে। ঠিক যেন তাদের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে মার্শেই এবং পিএসজি। ২৪ ম্যাচ খেলে উভয় দলেরই পয়েন্ট ৪৮। এমনকি দুই দলের গোল ব্যবধানও এক (+২১) ! লীগে এখনো বাকি রয়েছে ১৪টি ম্যাচ। লিও কি পারবে তাদের স্থান ধরে রাখতে ? নাকি মার্শেই অথবা পিএসজি তাদের টেক্কা দিয়ে জিতে নিবে লীগ ওয়ান; এখন সেটাই দেখার বিষয়।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

nine − one =