ফরওয়ার্ড সমস্যা মেটাতে বাঙ্গুরার দিকে হাত বাড়াল বাফুফে

অতীতে অনেক বারই দেশের খেলোয়ার সমস্যা মেটাতে ঘরোয়া ফুটবলে খেলা বিদেশি কাউকে নাগরিকত্ব দিয়ে জাতীয় দলে খেলানোর কথা শোনা গেছে। তবে এবার‍ই প্রথম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্যোগ নেয়া শুরু হয়েছে। দীর্ঘদিন বাংলাদেশের ঘরোয়া ফুটবল আলো করা মোহামেডানের গিনির স্ট্রাইকার ইসমাইল বাঙ্গুরাকে নাগরিকত্ব দেবার ব্যাপারে বাফুফে বেশ উদগ্রীব। ফলে অচির ভবিষ্যতেই বাঙ্গুরাকে দেখা যাবে বাংলাদেশের লাল-সবুজ জার্সি গায়ে।

ইসমাইল বাঙ্গুরাঃ নতুন বাংলাদেশি(!) স্ট্রাইকার সেনসেশন?
ইসমাইল বাঙ্গুরাঃ নতুন বাংলাদেশি(!) স্ট্রাইকার সেনসেশন?

ইসমাইল বাঙ্গুরার ঢাকার ফুটবলে অভিষেক ২০১০ সালে আরামবাগের হয়ে। তারপর ৩ মৌসুম বিজেএমসিতে কাটিয়ে এবার নাম লিখিয়েছেন মোহামেডানে। শুধু বাঙ্গুরা নন, ঘরোয়া ফুটবলের আরেক চেনা মুখ ঘানার ডিফেন্ডার সামাদ ইউসুফকেও নাগরিকত্ব দেবার ব্যাপারে চিন্তা করা হচ্ছে। এই সামাদ ৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে খেলছেন আবাহনীতে। তবে বয়স ও বর্তমান সময়ের স্ট্রাইকার সমস্যার কথা ভেবে বাঙ্গুরার দিকেই বেশি মনোযোগ বাফুফের।

শুনা যাচ্ছে, ডাচ কোচ লোডভিক ডি ক্রুইফের মাধ্যমেই প্রস্তাব পেয়েছেন বাঙ্গুরা। এবং এই ব্যাপারে বাঙ্গুরাও সম্মতি প্রকাশ করেছেন।

এই ব্যাপারে বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ বলেন, “আমরা দুই জনের ব্যাপারেই চেষ্টা করব। আজ (শনিবার) তো সরকারী ছুটি। আগামীকাল (রবিবার) থেকে বাঙ্গুরা এবং সামাদকে নাগরিকত্ব দেয়ার প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া শুরু হবে।”

বাফুফের একটি সূত্রের মতে, বাঙ্গুরাকে নাগরিকত্ব দিতে সব ধরনের চেষ্টা চালাবেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। প্রয়োজনে তিনি সরকারের শীর্ষ পর্যায়েও এই নিয়ে আলোচনা করবেন।

শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার কিংসলে চিগোজিকেও এই ব্যাপারে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। তবে ফিফার নতুন নিয়ম অনুযায়ী ৩ বছরের পরিবর্তে কমপক্ষে ৫ বছর খেলতে হবে কোন দেশের ঘরোয়া ফুটবলে সেই দেশের নাগরিকত্ব পাবার জন্য। ফলে চিগোজিকে এই সিদ্ধান্ত থেকে বাদ দিতে হয় বাফুফের।

আগামী সেপ্টেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের তৃতীয় ম্যাচ। বাফুফের টার্গেট ওই ম্যাচেই বাঙ্গুরার ডেবুট ঘটানো।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

16 + 11 =