প্রিমিয়ার লিগে কেমন করবেন রেমি গার্দে?

খবরটা মোটামুটি প্রিমিয়ার লিগ যারা অনুসরণ করেন সকলেরই জানা। প্রিমিয়ার লিগের এই মৌসুমের তিন মাস যেতে না যেতেই কোচের দায়িত্ব থেকে সরে গেছেন তিন ক্লাবের তিন কোচ – লিভারপুলের ব্রেন্ডান রজার্স, স্যান্ডারল্যান্ডের ডিক অ্যাডভোক্যাট ও অ্যাস্টন ভিলার টিম শেরউড। রজার্সের যায়গায় লিভারপুল নিয়ে এসেছে ইয়ুর্গেন ক্লপকে, অ্যাডভোক্যাটের জায়গায় স্যান্ডারল্যান্ডে এসেছেন স্যাম অ্যালার্ডাইস আর সর্বশেষ ; টিম শেরউডের জায়গায় অ্যাস্টন ভিলায় এসেছেন ফরাসী কোচ রেমি গার্দে। বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে বর্তমান বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কোচ হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা ক্লপ সম্বন্ধে সবাই কমবেশী অবগত যে তিনি কি করতে পারেন না পারেন। ওদিকে সাবেক নিউক্যাসল, ব্ল্যাকবার্ন, বোল্টন, ওয়েস্টহ্যাম কোচ স্যাম অ্যালার্ডাইসও প্রিমিয়ার লিগের অত্যন্ত পরিচিত একটা মুখ। তুলনামূলকভাবে রেমি গার্দেকে তাই অপরিচিতই বলা চলে।

ফরাসী লিগে এখন যেরকম প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের আধিপত্য চলে, এই একবিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে লিগ ওয়ানের অবিসংবাদিত চ্যাম্পিয়ন দল ছিল অলিম্পিক লিওঁ। ২০০২ থেকে টানা সাতবার ফরাসী লিগ জিতেছিল দলটি। আর পেছনে ভূমিকা ছিল আর কারোরই না – এই রেমি গার্দের।

না, ভুল বুঝবেন না। তিনি লিওঁর কোচ ছিলেন না কিন্তু ঐ সাত বছরে। বরং সেই সময়ে লিওঁর কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে গেছেন পল লে গুয়েন, জেরার্ড হুলিয়ের, ক্লদে পুয়েল এর মত কোচেরা। কিন্তু তাই বলে গার্দের অবদানটাও কোচের থেকে বিন্দুমাত্রও কম কিছু ছিল না। লিওঁর সাত শিরোপার প্রথম দুইটা জেতার সময়ে গার্দে ছিলেন কোচ পল লে গুয়েনের সহকারী, আর তারপর ক্লাবের ট্রেনিং অ্যাকাডেমির ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন বাকী সময়টা। ছিলেন আরেক কোচ জেরার্ড হুলিয়েরের বিশ্বস্থ ডানহাত। ফলে ক্লাবের খেলোয়াড় ও অবস্থা সম্বন্ধে গার্দের থেকে ভালো কেউই জানতেন না সেরকম। একটা কথা বলে রাখা ভালো, লিওঁর শিরোপা জেতা ঐ সাত বছর সময়টায় গার্দেকে মূল কোচ হবার প্রস্তাব দেওয়া হলেও তিনি তখন মূল কোচ হতে চাননি। যে ক্লাবে আগে খেলে গেছেন ছয় বছর, সে ক্লাব সম্বন্ধে গভীরভাবে জানার ইচ্ছাটা কাজ করেছিল বোধকরি।

বলে রাখা ভালো, গার্দে কিন্তু আর্সেন ওয়েঙ্গারের সময়ে আর্সেনালের হয়ে খেলে গেছেন ক্যরিয়ার সায়াহ্নে। ১৯৯৬ সালের দিকে আর্সেনাল কিংবদন্তী প্যাট্রিক ভিয়েরার সাথে একই দিনে আর্সেনালের খেলোয়াড় হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয় গার্দের নাম।

ভিয়েরার সাথে একই দিনে আর্সেনালে নাম লিখিয়েছিলেন রেমি গার্দে
ভিয়েরার সাথে একই দিনে আর্সেনালে নাম লিখিয়েছিলেন রেমি গার্দে

আর্সেনালে যোগদানের সময়টার মতই গার্দের পুরো ক্যারিয়ারটাই কেটে গেছে এরকম পাদপ্রদীপের আড়ালে থেকে। আর্সেনালে এসেছেনও ভিয়েরার আড়ালে থেকে, পুরো আর্সেনাল ক্যারিয়ারটাও কাটিয়েছেন বলতে গেলে ভিয়েরার আড়ালে থেকেই। মূল একাদশের অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিলেন না কখনই। আর্সেনের খেলোয়াড়ি জীবন আর গার্দের খেলোয়াড়ি জীবনেও তাই সেরকম কোন পার্থক্য নেই, কারণ আর্সেন ওয়েঙ্গারও খেলোয়াড় হিসেবে কোন ক্লাবের বা দলের কোন অবিচ্ছেদ্য কেউ ছিলেন না। কিন্তু স্ট্রাটসবার্গে খেলার সময় তাদের লিগজয়ী দলের সদস্য ওয়েঙ্গারের ম্যানেজারিয়াল হাতেখড়ি অল্পবিস্তর সেখান থেকেই শুরু হয়েছিল বলে ধরা যায়। গার্দের ক্ষেত্রেও ব্যাপারটা সেরকমই। আর্সেনালের হয়ে একবার লিগ, লিওঁর হয়ে একবার ফরাসি লিগ টু ও স্ট্রাটসবার্গের হয়ে একবার ইন্টারটোটো কাপ জয়ী গার্দেও তাঁর ম্যানেজার-মস্তিষ্ককে ক্ষুরধার করেছেন এসব সময়ে। আর্সেনালে নিয়মিত খেলতেন না বলে আর্সেন ওয়েঙ্গারের সাথে সম্পর্কে ফাটল কখনই ধরেনি। বরং অনেক ক্ষেত্রেই ওয়েঙ্গারের তৎকালীন মুখপাত্র ছিলেন গার্দে, কোচ ও খেলোয়াড়ের মেলবন্ধন হিসেবে কাজ করতেন তিনি, কোচের দৃষ্টিভঙ্গী খেলোয়াড়দের কাছে তুলে ধরার ক্ষেত্রে খেলোয়াড়দের সামনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতেন। এজন্য অনেক খেলোয়াড় তাঁকে মূলত আর্সেনের সহকারী কেউ ভাবত, যদিও তিনি তা ছিলেন না!

গার্দেকে আর্সেন ওয়েঙ্গারের ভাবশিষত বলা হলেও অত্যুক্তি হবেনা!
গার্দেকে আর্সেন ওয়েঙ্গারের ভাবশিষ্য বলা হলেও অত্যুক্তি হবেনা!

ওয়েঙ্গারের সাথে এরকম সম্পর্কই কোচ গার্দেকে গড়ে দিয়েছে অনেকটা। তাঁকে আর্সেন ওয়েঙ্গারের অন্যতম ভাবশিষ্য বলা হলেও অত্যুক্তি করা হবে না তাই। ২০১১ সালের দিকে লিওঁর ম্যানেজার হিসেবে যখন দায়িত্ব নিলেন, তাঁর ট্যাকটিক্সে আর্সেনের ছায়া ছিল অত্যন্ত প্রকট। আর্সেন ওয়েঙ্গার যেরকম প্রিমিয়ার লিগে ৪-৪-২ ফর্মেশানকে এনে দিয়েছেন এক নতুন মাত্রা, গার্দেও লিওঁকে খেলাতেন ঘুরেফিরে ঐ ৪-৪-২ ফর্মেশানেই।

গার্দের কোচিংয়ের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হচ্ছে তিনি অ্যাকাডেমির খেলোয়াড় বা তরুণ খেলোয়াড়দের অনেক সুযোগ দেন। লিওঁতে যতদিন কোচ ছিলেন, ক্লাবের তথাকথিত সুপারস্টার লিসান্দ্রো লোপেজ, হুগো লিওরিস, সিডনি গোভু, মিরালেম পিয়ানিচ, জেরেমি তুলালান, মিশেল বাস্তোস, ইয়োয়ান জুরকাফ – সবাইকে চলে যেতে দেখেছেন একে একে। তাতে বরং গার্দের ভালোই হয়েছিল, কেননা বহুদিন ধরে ক্লাবের ট্রেনিং ডিরেক্টর থাকাতে ক্লাবের যুবদল সম্বন্ধে অনেক ধারণা থাকার ফলে তাঁর সময়েই তাই অ্যালেক্সান্দ্রে ল্যাকাজেটে, ইয়াসিন বেনজিয়া, নাবিল ফেকির, ক্লেমেন্ত গ্রিনিয়ের, ম্যাক্সিম গনালনস, স্যামুয়েল উমতিতি – এসব খেলোয়াড়দের উত্থান ঘটেছে। সেই সময়ে লিওঁর দলবদলের বাজারে খরচ করার ক্ষমতা, বা খেলোয়াড়দের অধিক বেতনে খেলানোর ক্ষমতাও ছিল কম। ফলে অল্প বাজেটে যুবদলের খেলোয়াড়দের প্রতিভার সর্বোচ্চ বিকাশটা নিশ্চিত করতে হয়েছে গার্দেকেই। যেটার সুফল এখন পাচ্ছেন বর্তমান লিওঁ কোচ হার্বার্ট ফেউনির। এইজন্য গার্দেকে একটা লম্বা করে ধন্যবাদ দিতেই পারেন তিনি, ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে গার্দে নিজের পদ থেকে সরে না দাঁড়ালে হয়ত কোচের চাকরিটাই পেতেন না এই ফেউনির!

img_897c255f2b14dd689021de51d22516ef171945

কাগজে কলমে তাই গার্দেকে অ্যাস্টন ভিলার যোগ্য কোচ বলেই মনে হচ্ছে আপাতত, প্রিমিয়ার লিগের যে ক্লাবটি তৎকালীন লিওঁর মত অল্প বাজেট ও অল্প বেতনের খেলোয়াড় দিয়েই টিকে থাকতে আগ্রহী। অ্যাস্টন ভিলার বর্তমান স্কোয়াডে প্রতিভার অভাব নেই। ক্লাবে আগে থেকে থাকা জ্যাক গ্রিলিশ, ব্র্যাড গুজান, জোরেস ওকোরে, জ্যোলেওন লেসকটদের সাথে এই মৌসুমে নতুন আসা তিন জর্ডান – আইয়ু-আমাভি-ভেরেটিউট, স্কট সিনক্লেয়ার, মাইকা রিচার্ডস, ইদ্রিসা গেয়ে, কার্লেস জিল, আদামা ট্রায়োরে, রুডি গেস্টেড ; রেমি গার্দে পাচ্ছেন প্রতিভায় ভরা এক দলকেই। নিজের দেশ ফ্রান্সেরও বেশ কিছু খেলোয়াড় পাচ্ছেন নতুন ক্লাবে তিনি – জর্ডান ভেরেটিউট, জর্ডান আমাভি, চার্লস এনজগবিয়া ; সাথে আগে ফরাসী লিগে খেলা জর্ডান আইয়ু, ইদ্রিসা গেয়ে ত আছেনই। চাইলেই নিজের সাবেক ক্লাব লিওঁর মত খেলাতে পারেন অ্যাস্টন ভিলাকেও।

যা বলেছিলাম, ২০১১ সালের দিকে লিওঁর ম্যানেজার হিসেবে যখন দায়িত্ব নিলেন, তাঁর ট্যাকটিক্সে আর্সেনের ছায়া ছিল অত্যন্ত প্রকট। আর্সেন ওয়েঙ্গার যেরকম প্রিমিয়ার লিগে ৪-৪-২ ফর্মেশানকে এনে দিয়েছেন এক নতুন মাত্রা, গার্দেও লিওঁকে খেলাতেন ঘুরেফিরে ঐ ৪-৪-২ ফর্মেশানেই। মাঝে মাঝে ৪-২-৩-১ এও ক্লাবকে খেলাতে পছন্দ করেন তিনি। ৪-৪-২ ডায়মন্ড ফর্মেশানে দলকে যখন খেলাতেন দুটো আক্রমণাত্মক ফুলব্যাক, ‘ডায়মন্ড’ এর নিচে অর্থাৎ দুই সেন্টারব্যাকের মাঝে একটা ডেস্ট্রয়ার মিডফিল্ডার, সামনে একটা কার্যকরী প্লেমেকার, আর দুই স্ট্রাইকারের একজন টার্গেটম্যান আর আরেকজন অ্যাটাকিং মিড আর টার্গেটম্যানের মধ্যে অনবরত লিঙ্কআপ করতে পারেন এমন একজন – লিওঁর সাফল্যের রেসিপি গার্দের সময়ে ছিল এমনই। তাই মাঝে মাঝেই কাউন্টারে ভয়ঙ্কর দল হয়ে যেত তারা। লেফটব্যাক হেনরি বেদিমো যথেষ্ট আক্রমণাত্মক ছিলেন, গার্দের সর্বশেষ মৌসুমে তাঁর ৯ অ্যাসিস্ট সেই কথাই বলে। ডেস্ট্রয়ার মিড খেলতেন ম্যাক্সিম গনালন্স, যার প্রভাব গার্দের সময় থেকেই এতটাই বেশী ছিল গতবছর নাপোলি যখন লিওঁকে ১৩ মিলিয়ন ইউরোর অফার দেয় গনালন্সের জন্য, গার্দে বোর্ডকে সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন গনালন্সকে বিক্রি করা হলে ক্লাব ছাড়বেন তিনিও। অ্যাটাকিং মিড হিসেবে গার্দের আমল থেকেই বিখ্যাত হতে শুরু করেন ক্লেমেন্ত গ্রিমিয়ের। যার ফল আজকে প্রিমিয়ার লিগে নিউক্যাসলের হয়ে খেলছেন তিনি। দুই স্ট্রাইকারের মধ্যে মূলত খেলতেন অ্যালেক্সান্দ্রে ল্যাকাজেটে আর বাফেতিম্বি গোমিস, গোমিসের ভূমিকাটা ছিল টার্গেটম্যানের, আর ৪-২-৩-১ ফর্মেশানে খেলালে নাম্বার ৯ এর ভূমিকা নিতেন ল্যাকাজেটে, যুবদলে যিনি রাইট উইংয়ে খেলতেন, পজিশানের পরিবর্তন করে এখন এই ল্যাকাজেটেই গত মৌসুমে লিওঁর “প্লেয়ার অফ দ্য ইয়ার” আর ফরাসী লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন। আর এই পরিবর্তনের জন্য গার্দে একটা ধন্যবাদ পেতেই পারেন।

বলে রাখা ভালো, গার্দে যার ভাবশিষ্য, এই আর্সেন ওয়েঙ্গারও বহুবছর আগে আর্সেনালে এক অখ্যাত ফরাসী রাইট উইঙ্গারের পজিশন চেইঞ্জ করে সেন্টার ফরোয়ার্ড বানিয়ে দিয়েছিলেন, পরে সেই খেলোয়াড় প্রিমিয়ার অন্যতম সেরা খেলোয়াড় হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। তিনি আর কেউই নন, থিয়েরি অঁরি!

during the Pre Season Friendly match between Nottingham Forest and Aston Villa at City Ground on August 1, 2015 in Nottingham, England.
নতুন ভিলার শুরু হবে গার্দের হাত ধরেই

লিওঁর এসব ফিলোসফি গার্দে খাটাতে পারেন ভিলাতেও। সেই লিওঁ দলের অ্যাটাকিং লেফট ব্যাক বেদিমোর মত এখানেও তিনি পাচ্ছেন আক্রমণাত্মক লেফটব্যাক জর্ডান আমাভিকে, এই মৌসুমে যিনি অ্যাস্টন ভিলার শ্রেষ্ঠ পারফর্মার। ডেস্ট্রয়ার হিসেবে ইদ্রিসা গেয়ে অত্যন্ত উপযুক্ত, আর টার্গেটম্যান হিসেবে রুডি গেস্টেড হতে পারেন ভিলার বাফেতিম্বি গোমিস। আর জর্ডান আইয়ু ত আছেনই অ্যালেক্সান্দ্রে ল্যাকাজেটের ভূমিকা পালন করার জন্য!

দেখা যাক, অ্যাস্টন ভিলায় রেমি গার্দে কি কি ট্যাকটিক্যাল পরিবর্তন আনতে পারেন!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

four − 3 =