প্রথম দিনটা অজিদেরই

ওয়েলিংটন টেস্টে আটঘাট বেঁধেই মাঠে নেমেছিল স্বাগতিক নিউজিল্যাণ্ড ।
পিচে সবুজ ঘাসের কার্পেট মুড়িয়ে অজিবধের কৌশলটা মন্দ ছিলনা বৈকি । সাম্প্রতিক সময়ে ঘাসের পিচে ভালই ভূগতে হচ্ছে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের । কিউইরা জানতো এই মরণ পিচের সুবিধা তারাই বেশি পেতে যাচ্ছে । স্টার্ক, কামিন্স, প্যাটিনসন ত্রয়ীর অনুপস্থিতিতে মধ্যমা গতির হ্যাজি,সিডল,বার্ড ত্রয়ী অতটা সুবিধা পাবেনা যতটা কিউইদের টিম সাউদি আর ট্রেন্ট বোল্টরা পাবে ।
টস হেরেও তাই হয়ত অতটা উদ্বিগ্ন ছিলেননা কিউই অধিপতি ।
তবে পাশার দান উল্টে গেল ম্যাচ শুরুর প্রথম ঘন্টাতেই । টেস্টের প্রথম ড্রিংকস ব্রেকের আগেই কিউই স্কোর বোর্ডে হারানোর বেদনা ।
জশ হ্যাজেলউড ও পিটার সিডলের তোপে দাঁড়াতে পারেনি কিউইদের শীর্ষ পাঁচ ব্যাটসম্যানের কেউই ।
দলীয় পঞ্চাশের আগেই অর্ধেক উইকেট খুঁইয়ে স্বাগতিক শিবির তখন রীতিমত ধুঁকছে । তোপ থেকে রেহাই পাননি শততম টেস্ট খেলতে নামা কিউই কিংবদন্তী, অধিনায়ক ব্রেণ্ডন ম্যাককালামও । স্বরণীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে তাকে একদম খালি হাতে ফিরতে হয় । উদ্ভুত পরিস্থিতি সামাল দিতে কোরি এ্যাণ্ডারসন উইকেট রক্ষক বিজে ওয়াটলিংকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়লেও তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি । শেষ দিকে বোল্টের ২৪ কিউইদের দেড়শ পার করালেও হ্যাজি-সিডস তোপ থামেনি মুহুর্তের জন্যও ।
এক জ্যাকসন বার্ড ছাড়া উইকেট ভাগ করেছে ফ্রন্ট লাইনের তিন বোলারই । অভিজ্ঞ পিটার সিডল ও অজি ট্রেডমার্ক স্পিনার নাথান লায়নের পকেটে যায় তিনটি করে উইকেট আর ধ্বংসযজ্ঞের নেতৃত্ব দেওয়া জশ হ্যাজেলউড আদায় করেন চারটি উইকেট ।
প্রথম ইনিংসের জবাব দিতে অজিরা মাঠে নামলে প্রথম জবাবটা কিউইরাই দেয় । হ্যাজি তোপের জবাবে এবার আগুন ঝড়ান টিম সাউদি । ফলাফল দলীয় পাঁচ রানেই দুই ওপেনার ওয়ার্নার ও বার্নস সাজঘরে । এরপরে পাল্টা জবাবটা অধিনায়কের নেতৃত্বেই দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া । উড়ন্ত ছঁন্দে থাকা উসমান খাজাকে নিয়ে অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ দলকে বিপদমুক্ত করে শক্ত ভীত এনে দেন । ব্যক্তিগত ৭১ রানে পটেটো যখন ফিরছে তখন অজিদের দৃষ্টি লীডে । স্মিথ ফিরলেও খাজা এখনও অপরাজিত । সাথে রয়েছেন ভোজেস ।
পেসারদের দাপটে ওয়েলিংটনের প্রথম দিনটা অজিদেরই ।
তবে সাবধানতার জায়গাটি কালকের সকালের প্রথম এক দেড় ঘন্টা । সকাল সকালই আগুন ঝড়াবে বোল্টরা । তবে দাঁত চেঁপে মাটি কামড়ে পড়ে থাকলে আগুনের তাপ কমবে প্রথম সেশনেই । আস্তে আস্তে পিচ ব্যাটিং সহায়ক হয়ে উঠবে । কালকের সকাল অনেক গুরুত্বপূর্ণ দু দলের জন্যই ।
সকাল সকাল যদি খাজাদের ফেরানো না যায় তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাকফুটে থেকেই মাঠে নামতে হবে স্বাগতিকদের । অন্যদিকে ম্যাককালাম, গাপটিলদের ঘাড়ে বড় লীডের বোঝা চাঁপিয়ে দিতে চাইলে অতিথিদের বিনা বিপদে কাটাতে হবে প্রথম সেশনটি ।
দেখার পালা কালকের ওয়েলিংটন আবার কি চমক দেখায় ।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

two × four =