নেভিল-মার্শে অস্ট্রেলিয়ার ভবিষ্যৎ

পিটার নেভিল যতটা আন্ডাররেটেড কিপার তার থেকে বেশি আন্ডাররেটেড ব্যাটসম্যান। একইরকম কথা মিচেল মার্শের ক্ষেত্রেও বলা যায়। ওর বোলিংটা তেমন গুরুত্ব পায় না। কিন্তু আমার মনে হয় খুবই ক্যাপাবল পেসার। দারুণ সিম প্রেজেন্টেশন। খুব ভালো আউটসুইং পায়। ইন্টেলিজেন্ট। শুধু গতিটা একটু কম।

পিঙ্ক টেস্ট দেখি আর বডিলাইন সিরিজের বিশ্লেষণ শুনি। কমেন্ট্রি টেস্টের একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ওয়ানডে-টি টুয়েন্টিতে কোনো বিষয় নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করার সুযোগ খুব কম থাকে। সেটা টেস্টে হয়। শর্টার ফরম্যাটে চার-ছক্কা-উইকেট পড়া খুব অল্প সময়ের ব্যবধানে ঘটতে থাকে। তখন কনসেন্ট্রেশন সেদিকে চলে যায়। আলোচনা পূর্ণতা পায় না। এটা স্বাভাবিকই। সুতরাং শামীম আশরাফ চৌধুরীর কমেন্ট্রিতে বিরক্ত হওয়া জনগন অ্যাডিলিড টেস্টে কান রাখতে পারেন।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

one × 3 =