নেইমারের আচরণে ক্ষুব্ধ থিয়াগো সিলভা

নেইমারের আচরণে ক্ষুব্ধ থিয়াগো সিলভা

বিশ্বকাপ শুরুর পর থেকেই ফুটবলীয় কারণের চেয়ে অফুটবলীয় কারণেই  যেন বেশী শিরোনামে আসছেন নেইমার। এবার নেইমারের আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে মুখ খুললেন থিয়াগো সিলভাও!

এই বিশ্বকাপে নেইমারকে হয়ত এভাবে দেখতে চাননি ব্রাজিলীয় ভক্ত-সমর্থকেরা। প্রথম ম্যাচ থেকেই বিভিন্ন সমালোচনায় বিদ্ধ হচ্ছেন নেইমার – কখনো অহেতুক মাঠে ‘ডাইভ’ দেওয়ার জন্য, কখনো খামোকাই চোটের ভান করে রেফারির কাছ থেকে অন্যায় সুযোগ-সুবিধা নিতে চাওয়ার জন্য। নেইমারের এহেন আচরণে অনেকেই ক্ষুব্ধ। আজ সেই তালিকায় যোগ দিলেন থিয়াগো সিলভাও।

গত শুক্রবারে কোস্টারিকার বিপক্ষে ম্যাচে ব্রাজিলের অধিনায়কত্ব করেছেন থিয়াগো সিলভা। সেই ম্যাচেরই এক সময়ে “ফেয়ার প্লে” এর নজির স্থাপন করে কোস্টারিকার ডিফেন্সকে একবার ইচ্ছাকৃতভাবেই বল ফেরত দিয়েছিলেন সিলভা। ঝামেলাটা বেঁধেছে এখানেই। সিলভার কাজটা পছন্দ হয়নি নেইমারের, পরে এই নিয়ে সিলভার সাথে দুর্ব্যবহার করেন তিনি। আর নেইমারের এই আচরণেই কষ্ট পেয়েছেন থিয়াগো সিলভা।

“নেইমার আমার ছোট ভাইয়ের মত, আমি সবসময় তাকে আগলে রাখার চেষ্টা করি। কিন্তু আজকে কোস্টারিকাকে বল ফেরত দেওয়ার পর ও যেভাবে আমার সাথে দুর্ব্যবহার করল তাতে আমি বেশ কষ্ট পেয়েছি,” এইভাবেই ব্রাজিলিয়ান সংবাদমাধ্যমগুলোর কাছে নেইমারের আচরণের প্রতি বিষেদ্গার করেছেন সিলভা, “আমি জানি কোস্টারিকার বিপক্ষে ম্যাচটা নেইমারের জন্য বেশ কঠিন ছিল, কিন্তু ঐ একটা বল কোস্টারিকাকে ফেরত না দিলে আমরা যে রাতারাতি ম্যাচ জিতে যেতাম জিনিসটা কিন্তু তা না।”

নেইমারের এই আচরণে তিনি যে কষ্ট পেয়েছেন, ম্যাচ শেষে সেটা নেইমারকে জানাতেও ভোলেননি সিলভা, “নেইমাররে এই আচরণে আমি বেশ কষ্ট পেয়েছি ও ম্যাচ শেষে আমি এটা তাকে বলেছিও।”

কিন্তু নেইমার ম্যাচ শেষে এভাবে বাচ্চাদের মত কেন কাঁদলেন? এটার ব্যাখ্যাও আছে থিয়াগো সিলভার কাছে, “নিজের উপর থেকে পাহাড়সম চাপটা নামানোর জন্য এটা দরকারি ছিল নেইমারের, তৃতীয় ম্যাচে এখন সে আরো নির্ভার হয়ে খেলতে পারবে,” বলেছেন সিলভা।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

3 × 2 =