নিরাশার মাঝে তারুণ্যেই আশা

পঞ্চপাণ্ডবের সাথে যে আর কারো উপরও ভরসা করা যায় সেটা মুস্তাফিজ আর মিরাজ আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে বারবার, এরাই ভবিষ্যৎ।
কতগুলা ছ্যাচড়া-কুলাঙ্গার ইয়াংস্টারের(!!!) ভিড়ে এদের মত লড়াকু মানসিকতার ছেলেরাই আমাদের এই দলটাকে এগিয়ে নিয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ্‌।

মিরাজের ব্যাটিং আমার সেই আন্ডার নাইন্টিন থেকেই ভালো লাগে, কিন্তু তাকে বোলার বানানোর পাঁয়তারায় আত্মবিশ্বাসও হারিয়ে ফেলেছিল সে, ইদানিং আবার তাঁর মধ্যে সেই প্রায় হারিয়ে যাওয়া ব্যাটিং দেখতে পাচ্ছি। আর বোলিং তো মাশাল্লাহ্‌ দিন দিন ইভল্‌ভ হচ্ছে, যেকোন পিচে তার উপর ভরসা করার দিন আর খুব বেশি দূরে নেই।

এখন আসি মুস্তাফিজের প্রসঙ্গে।
এই ছেলেটা বিদ্যুতের মত এসেছে আমাদের সামনে, মিস-ম্যানেজমেন্টের কারণেই হোক বা যেকোন কারণেই যে নিজেকে হারিয়ে খুঁজছিল। বারবার তাঁর পুরোনো অস্ত্র কাটার দিয়েই সে কিছু একটা করার চেষ্টা করছিল, কিন্তু ব্যর্থতাই ছিল সঙ্গী বেশিরভাগ সময়। কিন্তু গুড আর গ্রেটের তফাৎ যেটা, ঠিক সেটাই এখন মুস্তাফিজ করছে, নিজের তূণে নতুন অস্ত্র যোগ করছে সে। ইনসুইং শেখার চেষ্টা করুক এটা আমরা সবাই চাচ্ছিলাম, তাঁর প্রথম চেষ্টার ফল এই এশিয়া কাপে দেখা গেল। শোয়েব মালিককে করা একটা ডেলিভারি ধারাভাষ্যকারের বর্ণনা করলেন, “হি আলমোস্ট কাট মালিক ইন হাফ!” গুড লেংথ ডেলিভারি একটু ভেতরে ঢুকে এক্সটা বাউন্সে স্টাম্পের উপর দিয়ে সাঁই-ই-ই করে বের হয়ে গেল। যেকোন বামহাতি পেসারের স্বপ্নের ডেলিভারি। অনেকেই বলেছিলেন (অনেক তথাকথিত বোদ্ধাও) মুস্তাফিজ শেষ বা ওয়ান টাইম ওয়ান্ডার। নিউজ ফর ইর ইউ পিপল, হি ইজ ইভলভিং!

আরেকজনের কথা না বললেই না, মোহাম্মাদ মিথুন।
আমরা বেভানকে দেখেছি, লেহম্যানকে দেখেছি, ধোনিকে দেখেছি, আবদুল রাজ্জাককে দেখেছি, এদের খেলার ধরণ কামারের মত, কোন গ্ল্যামার নাই, কিন্তু কার্যকরী। মিথুনের কাছেও তাই চাই, তাঁর খেলা দেখে চোখ জুড়ায় না, কিন্তু বিপদের দিনে দাঁড়িয়ে গিয়ে তাঁর সেই গ্ল্যামারহীন খেলা দিয়ে যেন সে দলকে উদ্ধার করেন বারবার।

ফানফ্যাক্টঃ আমি কাল স্ট্যাটাস না দেয়ার পণ করেছিলাম, স্ট্যাটাস দিয়ে গেলেই উইকেট পড়ছিল, তিনটা স্ট্যাটাস লেখাকালীন প্রথম তিন উইকেট পড়েছে, তাই কাল আর কিছুই করিনি, খিঁচ দিয়ে বসে ছিলাম। আর এক বড় ভাইকে কেউ খেলা দেখতে দেয়নি কাল, সে স্ক্রিনের সামনে দাড়ালেই আমাদের কুফা শুরু হচ্ছিল!!! তো এই জয়ে আমাদের ক্রেডিটও কম না!

::: সাজিদ শুভ :::

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

one × two =