বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ – নাইজেরিয়া

বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ - নাইজেরিয়া

নাইজেরিয়া তাদের ইতিহাসে এই নিয়ে ছয়বার বিশ্বকাপে খেলতে যাচ্ছে। আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি এই ছয়বারের মধ্যে পাঁচবারই নিজেদের গ্রুপে তারা আর্জেন্টিনাকে পেয়েছে – ১৯৯৪, ২০০২, ২০১০, ২০১৪ ও ২০১৮। এবারেও আর্জেন্টিনার সাথে নাইজেরিয়া রয়েছে, গ্রুপের বাকী দুই সঙ্গী ক্রোয়েশিয়া ও আইসল্যান্ড। নাইজেরিয়া কোচ গার্নত রোর এই নাইজেরিয়া দলটাকে বেশ ভয়ংকর করে গড়ে তুলছেন। ২০১৬ সালে নাইজেরিয়া দলের কোচ হবার পর এই জার্মান কোচ দলের মধ্যে একতা, সঙ্ঘবদ্ধতা নিয়ে এসেছেন নতুন করে। সেটার প্রতিফলন আমরা দেখেছি গত অক্টোবরে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে তাঁদের প্রস্তুতি ম্যাচে। দুই গোলে পিছিয়ে থাকার পরেও নাইজেরিয়া দলের হার-না-মানা মনোভাব তাদেরকে এনে দেয় ৪-২ গোলের চমকপ্রদ জয়। একই ফলের পুনরাবৃত্তি কি তারা এই বিশ্বকাপেও করতে পারবে? সেই লক্ষ্যেই ২৩ সদস্যের দল ঘোষণা করেছেন রোর। দেখে নেওয়া যাক কে কে আছেন এই দলে!

গোলরক্ষক

  • ফ্র্যান্সিস ওজোহো (দেপোর্তিভো লা করুনিয়া)
  • ইকেচুকু এজেনওয়া (এনিম্বা)
  • ড্যানিয়েল একপেওয়ি (চিপ্পা ইউনাইটেড)

ডিফেন্ডার

  • উইলিয়াম ট্রুস্ট-একোং (বার্সাসপোর)
  • লেওন বালাগুন (ব্রাইটন)
  • কেনেথ ওমেরুও (চেলসি)
  • ব্রায়ান ইদোয়ু (আমকার পার্ম)
  • এল্ডারসন এচিয়েজিলে (সেরাকল ব্রুজেস)
  • শেহু আব্দুল্লাহিই (বার্সাসপোর)
  • চিদোজিয়ে আওয়াজিম (নান্তেস)
  • টিরোনে এবুহেই (বেনফিকা)

মিডফিল্ডার

  • জন মিকেল ওবি (তিয়ানজিং টেডা)
  • উইলফ্রিয়েড এনদিদি (লেস্টার সিটি)
  • ওগেনজি ওনাজি (ত্রাবজোনস্পোর)
  • ওগহেনেকারো এতেবো (লাস পালমাস)
  • ভিক্টর মোসেস (চেলসি)
  • জোয়েল ওবি (তোরিনো)
  • জন ওগু (হ্যাপোয়েল বিয়ার শেভা)
  • অ্যালেক্স ইওবি (আর্সেনাল)

স্ট্রাইকার

  • ওডিওন ইগহালো (চাংচুং ইয়াতাই)
  • আহমেদ মুসা (সিএসকেএ মস্কো)
  • কেলেচি ইয়েহানাচো (লেস্টার সিটি)
  • সিমেওন নোয়ানকো (ক্রোটোন)
বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ - নাইজেরিয়া
gollachhut.com

এই নাইজেরিয়া দলটাকে মূলত ৪-২-৩-১ ফর্মেশনে খেলাতে পছন্দ করেন কোচ গার্নত রোর। জন ওবি মিকেলের অবস্থানের উপর নির্ভর করে যে ফর্মেশনটা ৪-৩-৩ ও হয়ে যায় কখনো কখনো। সেন্ট্রাল ডিফেন্সে জুটি বাঁধার সম্ভাবনা সবচাইতে বেশী উইলিয়াম ট্রুস্ট-একোং ও লেওন বালাগুনের। এদের মধ্যে ট্রুস্ট-একোঙ তুলনামূলকভাবে একটূ বল পায়ে রেখে খেলতে বেশী পছন্দ করেন। আর ওদিকে বালাগুন একটু শারীরিকভাবে শক্তপোক্ত হবার কারণে ট্যাকল করার কাজটা তাঁকে দিয়েই হয়। দলে বিকল্প সেন্টারব্যাক হিসেবে রয়েছেন চেলসির তরুণ সেন্টারব্যাক কেনেথ ওমেরুও ও চিদোজি আওয়াজিম। রাইটব্যাক হিসেবে দলে আছেন শেহু আব্দুল্লাহি ও টিরোনে এবুহেই ; এই দুইজনের মধ্যে মূল একাদশে থাকার সম্ভাবনা আব্দুল্লাহির বেশী। লেফটব্যাক হিসেবে দলে নেওয়া হয়েছে এল্ডারসন এচিয়েজিলে ও ব্রায়ান ইদোয়ুকে যার মধ্যে মূল একাদশে খেলবেন ইদোয়ু।

বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ - নাইজেরিয়া

সেন্ট্রাল ডিফেন্সকে মিডফিল্ড থেকে প্রতিপক্ষের আক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য কোচ গার্নত রোর দুইজন খাঁটি ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার খেলাবেন – লেস্টার সিটির উইলফ্রিয়েড এনদিদি ও ত্রাবজোনস্পোরের ওগেনজি ওনাজি। তাঁদের একটূ সামনে আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার হিসেবে খেলবেন সাবেক চেলসি মিডফিল্ডার জন ওবি মিকেল। মিকেল মূলত ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হলেও এই নাইজেরিয়া দলে তাঁর ভূমিকাটা মূলত মিডফিল্ড থেকে আক্রমণকে আক্রমণভাগে নিয়ে যাওয়া। মিকেল একটু পিছে দুই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডারের সাথে খেললে দলের ফর্মেশন হয়ে যাবে ৪-৩-৩, আর স্ট্রাইকারের একটু পিছনে খেললে ফর্মেশন হয়ে যাবে ৪-২-৩-১। মিকেলের দুইপাশে দুই উইঙ্গার হিসেবে খেলবেন ডানদিকে চেলসির ভিক্টর মোসেস ও বামদিকে আর্সেনালের অ্যালেক্স ইওবি। নাইজেরিয়া দলটার আক্রমণের গুরুভার মূলত ভিক্টর মোসেসের উপরেই নির্ভর করছে।  চেলসির হয়ে উইংব্যাক হিসেবে খেলা মোসেস এই নাইজেরিয়া দলে একদম প্রথাগত রাইট উইঙ্গারের ভূমিকা পালন করেন। মূল স্ট্রাইকার হিসেবে দলে থাকছেন ওয়াটফোর্ডের সাবেক স্ট্রাইকার ওডিওন ইগহালো। দলে বিকল্প স্ট্রাইকার হিসেবে আছেন লেস্টার সিটির সাবেক ও বর্তমান দুই  স্ট্রাইকার যথাক্রমে আহমেদ মুসা ও কেলেচি ইয়েহানাচো।

দলের মূল গোলরক্ষক হিসেবে থাকার সম্ভাবনা সবচাইতে বেশী দেপোর্তিভো লা করুনিয়াতে খেলা ফ্র্যান্সিস ওজোহোর।

জার্মান কোচ গার্নত রোর এই নাইজেরিয়া দলে স্বভাবজাত জার্মান-আগ্রাসন ঢুকাতে চাচ্ছেন, কিছুক্ষেত্রে তাঁকে সফলও বলা চলে। কিন্তু এই আগ্রাসন দিয়ে কি আর্জেন্টিনা বা ক্রোয়েশিয়ার মত দলকে বধ করতে পারবে নাইজেরিয়া?

স্কোয়াড প্রিভিউ দেখুন আরও –

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

7 − 4 =