ধ্যান ভাংলো ভোজেসের!

“Ladies and gentlemaen- Finally Adam Charles Voges has been dismissed.”

মার্ক ক্রেইগের ফিরতি ক্যাচে পরিণত হওয়ার সাথে সাথে ধারাভাষ্যকার উপরোক্ত উক্তিটি করলেন বেশ উচ্চস্বরে ।
ভোজেস নামটিতে অপরিচিত ক্রিকেট ভক্তরা বলতেই পারেন আউট তো সবাই হয় । এতে এতো আহ্লাদের কি আছে !
তবে ভক্ত ও পরিচিতজনরা তো ঠিকই জানে ধারাভাষ্যকার কেন Finally শব্দটি ব্যবহার করলো ।
পাক্কা আড়াই মাস পর টেস্টে আউট হলেন অস্ট্রেলিয়ান মিডল অর্ডার এ্যাডাম ভোজেস ।
অবশেষে ভোজেসের তপস্যা ভাঙ্গলো কিউই অলরাউণ্ডার মার্ক ক্রেইগের ঘূর্ণিতে ।
ভোজেসের বিদায়ের সাথে সাথে ওয়েলিংটনে অজিদের ইনিংসেরও পরিসমাপ্তি ঘটেছে ।
তবে শেষের সাথে সাথে অজিরা স্বাগতিক নিউজিল্যাণ্ডের উপর চাঁপিয়ে দিয়েছে 379 রানের এক বিশাল লীড বোঝা ।
আগের দিন তিনটি বিশ্ব রেকর্ড গড়ে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন ভোজেস । পরদিন তার সামনে দ্বিশতকের হাতছানি ছিল । অধিনায়ক স্মিথ এবার কিছুটা নমনীয় হলে সকাল সকালই ক্যারিয়ারের ২য় দ্বিশতক তুলেন এই ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ান । আগের দিনের সঙ্গী পিটার সিডলও তখন যোগ্য সহচার্য দিয়ে যাচ্ছিলেন ।
ব্যক্তিগত ৪৯ রানে সিডল ব্রেসওয়েলের শিকার হলে অর্ধশতকের সাথে সাথে মিস হয়ে যায় ভোজেস-সিডল জুটির শতরানের পার্টনারশীপটিও ।
সিডলের বিদায়ের পর লেজের দিকের আর কেউ দাঁড়াতে পারেনি । কিন্তু রান এসেছে ঠিকই । শেষ দিকে ভোজেস তার খোলস থেকে বেরিয়ে এসে দ্রুতগতিতে রান তোলা শুরু করলে ফায়দাটা তোলেন ম্যাককালাম । আক্রমণে স্পিনার নিয়ে এসে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে ভোজেসকে তুলেন নেন কিউই অধিনায়ক ।
শেষ পর্যন্ত ভোজেসের থামার দিন টিম অস্ট্রেলিয়া থামে ৫৬২ রানে ।
প্রথম ইনিংসে ১৮৩ তে গুটিয়ে যাওয়ায় লীডের বোঝাটা তাই ঘাড়ে করে মাঠে নাম কিউইরা । ম্যাচ বাঁচাতে চাই ব্যাটসম্যানদের লম্বা ইনিংস । ওপেনার টম লাথান তাই যেন মাটি কামড়েই পড়ে রইলেন । গাপটিলও ছিলেন সতর্ক । ওপেনিং জুটিতে ৮১ রান যোগ করার পরপরই নাথান লায়নের শিকার হোন মার্টিন গাপ্টিল । এরপর কেন উইলিয়ামসনকে সাথে করে জুটি বাঁধেন লাথাম । হ্যাজেলউড-নেভিল রসায়নে উইলিয়ামসন ফিরে গেলে নিকোলস কে নিয়ে আরেকটি মাঝারি পার্টনারশীপ গড়েন কিউই উইকেট রক্ষক । তবে লায়ন তার দ্বিতীয় আঘাতে ফিরিয়ে দেন ৬৩ রানের এক সহিঞ্চু ইনিংস খেলা লাথানকে । এরপর শততম টেস্ট খেলতে নামা ব্রেণ্ডন ম্যাককালামও বেশি এগোতে পারেনি । দিনের একদম শেষভাগে মিচেল মার্শের LBW এর ফাঁদে পড়ে ব্যাজকে ফিরতে হয় মাত্র ১০ রানে ।
পড়ন্ত বিকেলে ব্যাজের বিদায়ের সাথে সাথেই দিনশেষের বাঁশি বাঁজান আম্পায়ার ।
ওয়েলিংটন টেস্ট বাঁচাতে কিউইদের এখনও পাড়ি দিতে হবে লম্বা পথ । ইনিংস পরাজয় এড়াতে চাইলে এখন তাদের ঋণ ২০১ রান । ম্যাককালামের দৃষ্টি হয়ত দাঁড়িয় যাওয়া কোন নায়কের দিকে । অন্যদিক স্মিথ নিশ্চই চাইবেন জয়টি যেন ইনিংস ব্যবধানেই আসে । আগামীকালই হয়ত ম্যাচের ভাগ্য জানা যাবে ।
চতুর্থ দিবসে ওয়েলিংটন কি চায়,
স্বাগতিকদের ইনিংস পরাজয় নাকি ব্যাট হাতে অজিদের আবারও মাঠে নামা ? উত্তর পেতে চোখ রাখতে হবে ওয়েলিংটনে ওশেনিয়ান টেস্ট ডার্বিতে ।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

four + six =