দুর্বল জিম্বাবুয়ে বাড়িয়ে দিবে ভয়টাও

তাদের দয়ার শরীর ।
চোটগ্রস্থ সৌম্যের জায়গায় আনামুলকে নিলে তারা বলে , “ইমরুল আর নাফিসের মত রত্নদের খেয়ে দিচ্ছে বিসিবি …”
সেখানে ইমরুলের চান্স হলে তারা বলে, ” আনামুল একটা ওয়ার্ল্ড ক্লাস চিজ … তারে বাদ দেওয়ার মত হ্যাডম কেবল বিসিবিই দেখাইতে পারে …”
সবার জন্যে তাদের দয়া হয় ।
সবার জন্যে তাদের মায়া ।
আব্দুর রাজ্জাক আনফিট আর যা-ই হোক না কেন … তার জন্যেও ওদের মায়া হওয়া চাই। জুবায়ের টোয়েন্টির জন্যে দল না পেলে তার জন্যেও মায়া হওয়া চাই ।
নিকট অতীতের সবচেয়ে কঠিন জিম্বাবুয়ে সিরিজ । কঠিন হইলো প্রত্যাশার কঠিন । পরীক্ষায় সবচেয়ে ভালো ছাত্রেরা ভয় পায় আর তার সাথে সবচেয়ে খারাপ ছাত্ররা ফেইল করার ভয় পায় । নিকট অতীতের চাইতেও অনেক আগের অতীতে আমরা ছিলাম খারাপ ছাত্র । স্ট্রীক আর ফ্লাওয়ারের জিম্বাবুয়ের কাছে ফেইল খাওয়ার ভয় পাইতাম । আর আমরা এখন জিম্বাবুয়ের কাছে ফার্স্ট বয় । ঘরের কন্ডিশনে তো অতি অবশ্যই ।
আমাদের মনে এখন “এ প্লাস” (এ- ইংরেজিতে বড় হাতে লেখা হবে) ছুটে যাবার ভয় । দক্ষিণ আফ্রিকার বা ভারতের সাথে ভালো খেলতে গিয়ে আমরা ভুলচুক করে ফেললে মানুষ সেটাকে কয়েকদিন আগের সিরিজে বলতো, “ফিয়ারলেস ক্রিকেট…”
জিম্বাবুয়ের সাথে অমন ভুলকে ফিয়ারলেস বলা হবে না । বলা হবে ব্রেইনলেস । চাপটা স্রেফ কাটাতে হবে । আফগানিস্তানের সাথে হেরে জিম্বাবুয়ে চাপটা আরো বাড়াইয়াই দিলো ।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

nineteen + three =