দা ফরগটেন লেজেন্ড

১৯৫৩ সালের ২৫ শে মে । ইতালির চারনুসকো শহরে জন্মগ্রহণ করে এক ফুটফুটে শিশু । ছোট থেকেই একেবারে চুপচাপ থাকত বাচ্চাটা , সদা নম্র , ভদ্র এই ছেলেটাকে সবাই আদর করত , ভালোবাসত আলাদা ভাবে । বয়স বাড়ার সাথে সাথে ফুটবল খেলায় তাঁর দক্ষতাটাও সবার নজর কাড়ে । বল কেড়ে নেয়ার অসাধারণ ক্ষমতা ছিলো তাঁর , সাথে ছিলো স্কিল আর ভিসনের অনন্য সাধারণ সমন্বয় । মাত্র ১৭ বছর বয়সেই জায়গা করে নেন আতালান্তার প্রধান একাদশে । মাঠের বাইরে ছিলেন যেমন ভদ্র , মাঠে ছিলেন তার চেয়েও বেশি গোছানো , নম্র । প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়রাও তাঁর এই চুপচাপ থাকা আর ভদ্রতাকে সম্মান করতো ।
গায়েতানো চিরেয়া । তাঁকে মানা হয় সর্বকালের অন্যতম সেরা ডিফেন্ডার । পাঁচ ফুট দশ ইঞ্চি লম্বা এই মানুষ টি ছিলেন সত্তর আশি দশকের ইতালি আর য়ুভেন্তুসের সাফল্যের অন্যতম রূপকার । খেলোয়াড় হিসেবে দলের হয়ে সব আন্তর্জাতিক ট্রফি জিতেছেন ।
সতেরো বছর বয়সে আতালান্তায় যোগ দেবার পর দুই মৌসুম খেলেন সেখানে । তারপরই যোগ দেন য়ুভেন্তুসে , ১৯৭৪ সালে । সেখানে ক্লদিও জেন্টাইল এর সাথে বাঁধেন সর্বকালের অন্যতম সর্বসেরা ডিফেন্সিভ পার্টনারশিপ । য়ুভেন্তুসের হয়ে জিতেছেন ক্লাব পর্যায়ের সব ট্রফি ।
 Gaetano Scirea
১৯৭১ থেকে ১৯৮৮ পর্যন্ত য়ুভেন্তুসের ঐ স্বর্ণযুগের দলের রকসলিড ডিফেন্সের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন চিরেয়া । য়ুভেন্তুসের হয়ে ৩৭৭ ম্যাচ খেলে সেখানেই ক্যারিয়ারের ইতি টানেন চিরেয়া ।
জাতীয় দলেও ছিলেন সমান উজ্জ্বল । ১৯৭৫ সালে অভিষেকের পর প্রায় এক দশক ছিলেন দলের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ । ১৯৮২ বিশ্বকাপ জয়ের পিছনেও ছিলো তাঁর অবদান । ঐ বিশ্বকাপে দুর্দান্ত দিয়েগো ম্যারাদোনাকে রাউন্ড রবিনে একাই রুখে দিয়েছিলেন । ব্রাজিলের সাথে পাওলো রসির জয়সূচক গোলটিও এসেছিলো তাঁর থ্রু বল থেকে । ফাইনালের পাওলো রসির করা ইতালির তৃতীয় গোলটির অ্যাসিস্ট ও এই গায়েতানো চিরেয়ার । তাঁর সাথে আন্তনিয়ো কাব্রিনি , গুইসেপ্পে বেরগমি আর ফ্রাংকো বারেসির ডিফেন্সলাইনকে মানা হয় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরের সেরা ডিফেন্সলাইন । ১৯৮৬ তে ৭৮ টি ম্যাচ খেলার পর ইতালি জাতীয় দল থেকে অবসর নেন চিরেয়া ।
ক্লাবের হয়ে চিরেয়া জিতেছেন ৭ টি সিরি আ , ২ টি ইতালিয়ান কাপ , ১ টি উয়েফা কাপ , ১ টি উয়েফা কাপ উইনার্স কাপ , ১ টি ইউরোপিয়ান কাপ, ১ টি উয়েফা সুপার কাপ এবং ১ টি ইন্টারকন্টিনেন্টাল কাপ। জাতীয় দলের হয়ে ১৯৮২ এর বিশ্বকাপ ।

 Gaetano-Scirea
চিরেয়ার খেলার ধরণ ছিলো ক্লাসিক লিবারো বা সুইপার । সাথে স্কিল , ভিশন আর বিপক্ষের ট্যাকটিকস পড়ার ভয়ানক ক্ষমতা ।যে কোন ফর্মেশন , যে কোন ট্যাকটিকস কে একেবারে নালিফাই করতে তাঁর জুড়ি মেলা ভার । তাঁর মতো লম্বা পাসের ভিশন আর কোন ডিফেন্ডারে দেখা যায়নি । আর ট্যাকলিং এতোটাই পরিষ্কার ছিল যে ডিফেন্ডার হওয়া সত্ত্বেও পুরো ক্যারিয়ারে কখনো লালকার্ড দেখতে হয়নি তাঁকে ! ! !
সব ধরণের ফুটবল থেকে অবসর নেয়ার পর য়ুভেন্তুসের স্কাউট এর দায়িত্ব নেন চিরেয়া । ১৯৮৯ সালের ৩রা সেপ্টেম্বর পোল্যান্ডের গর্নিক জাব্রজের বিপক্ষে য়ুভেন্তুসের খেলা দেখতে মাঠে যাচ্ছিলেন । যাওয়ার পথে বাবস্ক এর কাছে গ্যাসোলিন বোঝাই এক ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় তাঁর গাড়ির । ঘটনাস্থলেই মৃত্যুবরণ করেন চিরেয়া ।
11951244_962152853845798_1156962352430430195_n
চিরেয়ার স্পোর্টসম্যানশিপ আর ভদ্রতার স্মরণে ইতালির সব ইয়ুথ টুর্নামেন্টের নাম করা হয়েছে তাঁর নামে । তাছাড়াও য়ুভেন্তুস স্টেডিয়ামের দক্ষিণ স্ট্যান্ড এর নামকরণ ও তাঁর নামে করা হয়েছে । এছাড়াও , য়ুভেন্তুসের ১০৯ তম জন্মদিনে ক্লাবের পক্ষ থেকে গায়েতানো চিরেয়ার অনুপস্থিতিতে তাঁর ছেলের হাতে বিশেষ সম্মাননা তুলে দেয়া হয় ।
সবসময় মাঠে যেমন চুপচাপ ছিলেন , ইতিহাসের পাতায় ও সেরকম নীরবে নিভৃতেই ঘুমিয়ে রয়েছেন ফুটবল খেলার সর্বকালের অন্যতম সর্বসেরা এই মানুষটি ।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

19 − 15 =