তাসকিন? সিরিয়াসলি!

 

কালকে রাতে ল্যাপটপে নাক-মুখ গুজে লিখছিলাম। খবরটি যখন শুনলাম, তাসকিনের নাম আমার বিশ্বাস হয়নি। একটুও হয়নি। ধর্মশালায় আসা বাংলাদেশের সাংবাদিকদের একটা বড় অংশ আমরা একই হোটেলে আছি। রাতে হোটেলে ফিরে ভোর চারটা পর্যন্ত আড্ডা এবং আমাদের জয় উদযাপন। সেখানেও বারবার ঘুরেফিরে একই কথা এসেছে এবং সবার কণ্ঠে একই রকম অবিশ্বাস, তাসকিন কি করে হয়! আজকে দুপুরে কোচ যখন নিশ্চিত করলেন বা বিকেলে অফিসিয়াল প্রেস রিলিজ পেলাম, তখনও কেমন অবিশ্বাস্য লাগছে। তাসকিন!

এত চমৎকার ছন্দময় অ্যাকশন। আমাদের কখনোই এক মাইক্রোসেকেন্ডর জন্যও সন্দেহ হয়নি। ঘরোয়া বা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে, কখনোই সামান্য ফিশফাশ শুনিনি ওর অ্যাকশন নিয়ে। কি জানি, গতকালকে সুন্দরম রবি ও রড টাকার কতটা কী দেখলেন!

অনেক সময় তিন-চার-পাঁচটি ডেলিভারি হতে পারে অন্যরকম। কোনো কিছু ওভারট্রাই করলে…হয়ত একটা ডেলিভারি বেশি গতিময়, একটু বেশি বাউন্স বা একদম ব্লক হোলে ফেলতে গেলে, কোনো এফোর্ট ডেলিভারিতে অনেক সময় অন্যরকম হয়ে যেতে পারে। সবসময় তো একদম মাপা অ্যাকশন থাকে না! এসব ক্ষেত্রে আ্‌ইসিসির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বেশির ভাগ সময়ই উল্লেখ থাকে….কতগুলো ডেলিভারি বা কোনো সুনির্দিষ্ট ডেলিভারি নিয়ে সংশয় থাকলে নরম্যালি জানানো হয়। আজ আইসিসির মেইলে সেরকম কিছুর উল্লেখও ছিল না। খুবই কনফিউজিং!

যাহোক, যেভাবে হোক, প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে, এটাই বাস্তবতা। ৭ দিনের মধ্যেই চেন্নাইয়ে পরীক্ষা দিতে হবে। আমার স্থির বিশ্বাস, তাসকিন অনায়াসেই উতরে যাবে। এই মুহূর্তে দারুণ রিদমে ছিল, যেটা ওর বোলিংয়ের জন্য খুব গুরুত্বপূণ। আশা করি রিদমটা নষ্ট হবে না। তাসকিন ভড়কে যাবে না। মাশরাফি ওকে সবসময় সামলে রাখে। কোনো সন্দেহ নেই, এখন আরও ভালো ভাবে আগলে রাখবে।

ক্যারিয়ারের মাত্র শুরু। চলার পথে আরও কত কাঁটা থাকবে! আশা করি, এই সমস্যাটুকু তাসকিন তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেবে। শুভকামনা আরাফাত সানির জন্যও।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

four × 5 =