ঠিক করতে হবে ঘরোয়া ক্রিকেট

মোসাদ্দেক ১৮ টার মত ফার্স্টক্লাস ম্যাচ খেলে ফেলেছে। মেহেদী মিরাজ ১২ টা খুব সম্ভব। এদের মধ্যে মোসাদ্দেকের ফার্স্ট ক্লাস ব্যাটিং রেকর্ড ঈর্ষণীয় রকমের ভালো। ৭০ পেরোনো গড়ের সাথে ডাবলও আছে। মিরাজের এভারেজও খারাপ না। ৩৫ প্লাস।

দুইজনকে একসাথে এনে কথা বলার কারণটা সহজ। মোসাদ্দেকের কাছ থেকে ওয়ানডে সিরিজে বেশ ভালো কিছু স্কোরিং শট দেখলেও বেশিরভাগ সময় স্ট্রাগল করলো পেইসের বিরুদ্ধে। অনেক ডট গেলো। কিছু সময় একদম নবীশ লাগলো। ফার্স্ট ক্লাসে ডাবল হান্ড্রেড বা ৭০ এভারেজ – কোনটাই কিন্তু হুট করে এসে যায় না। তাহলে সমস্যাটা কোথায়? জ্যাক বল বা ওকসকে খেলতে এতো কেন সমস্যা হলো? টেল এন্ডারদের মত কেন লাগলো দেখতে?

মেহেদী মিরাজের অভিষেকেই তার ব্যাটিং নিয়ে মন্তব্য করা বা কোন ডিসিশন নিয়ে ফেলা নিচু মানের বোকামি। তবে মিরাজকে দুটো ইনিংসে একই ফ্যাশনে লেগবিফোর হতে দেখার বিষয়টা চোখে লেগে থাকলো। ভিতরে ঢোকা বলে পা ঠিকমতো কাজ করলো না একটা ইনিংসেও। অভিষেক বা সিচুয়েশনের নার্ভাসনেস হলে সমস্যা নেই। তবে এটা তার ব্যাটিং এর স্থায়ী ফিচার হলে মিরাজের অনেক পরিশ্রম করার আছে।

ফুটওয়ার্কে সমস্যার কারণেই সৌম্যেরা হারিয়ে যায় আর গ্রামার ভালো থাকার কারণেই মুশফিকেরা দলকে অনেকদিন সেবা দিয়ে যায়।

মিরাজ বা মোসাদ্দেকের মত প্রতিভাবান কেউ ওয়ান সিরিজ বা ওয়ান ম্যাচ ম্যাজিক হয়ে হারিয়ে যাবার চেয়ে ক্ষতিকর কিছু ক্রিকেটের জন্যে হতে পারে না। ব্যাটিং এর ব্যাসিক দিকগুলো ঠিক করে আসলে কত উপরে উঠা যায় সেটার জন্যে আজকের সাব্বিরকে দেখুন। এক সময়ের ৬/৭ এ খেলা টোয়েন্টি ব্যাটসম্যানটা আজকে দলের মধ্যে সবচেয়ে সলিড কাস্টোমারদের একজন।

আর ফার্স্ট ক্লাসের রেকর্ডগুলোর পরে এমন ছোটছোট ভুলের পরে একটা ছোট লাইন আমাদের ডমেস্টিক ক্রিকেটকে নিয়ে টেনে দেওয়া যায়, ” Something is seriously wrong with our domestic Cricket “…

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

two × 3 =