জিম্বাবুয়ের অসাধ্য সাধন

একটা দলের রান ৭ উইকেট ৪৯! সেটি আবার টেস্ট খেলুড়ে দেশ, খেলছে নন টেস্ট প্লেয়িং দেশের সঙ্গে। মান-সম্মান নিয়ে টানাটানি! শেষ পর্যন্ত মান তো বাঁচলই, উল্টো ম্যাচও জিতল তারা বিশাল ব্যবধানে!

৪৯ রানে ৭ উইকেট হারিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে তারা ১৭৫ রান করেছে এবং ম্যাচটি জিতেছে ১১৭ রানে! ওয়ানডেতে এই প্রথম, ৫০ রানের নিচে ৭ উইকেট হারিয়েও জিতল কোনো দল! ১৯৯৭ সালে এই শারজাতেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫১ রানে ৭ উইকেট হারিয়েও জিতেছিল পাকিস্তান।

জিম্বাবুয়ে প্রথম ২ উইকেট হারিয়েছিল কোনো রান করার আগেই। আফগানিস্তানও প্রথম ২ উইকেট হারিয়েছে রানের চাকা ঘোরার আগেই। ওয়ানডেতে এই প্রথম দুই দলই প্রথম ২ উইকেট হারাল শূন্য রানে!

জিম্বাবুয়ের হ্যামিল্টন মাসাকাদজা করেছেন ৮৩, রিচমন্ড মুতুম্বাবি ১৪ ও নয়ে নেমে গ্রায়েম ক্রেমার ৫৮। আর কেউ ছুঁতে পারেননি ১০। আফগানিস্তানের কেবল মোহাম্মদ শাহজাদই করেছেন ৩১। দুই দলের বাকি ২২ ব্যাটসম্যানের আর কেউ দু অঙ্ক ছুঁতে পারেননি। এই প্রথম এক ওয়ানডেতে ১৮ ব্যাটসম্যান আউট হলো দশের নিচে!

৬ রানে ৫ উইকেট নিয়েছেন জিম্বাবুয়ের পেসার লুক জঙ্গুয়ে। ওয়ানডেতে এর চেয়ে কম রানে ৫ উইকেট আছে আর মাত্র দুটি। ১৯৮৬ সালে শারজায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১ রানে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন কোর্টনি ওয়ালশ। আরেকটি ঘটনার কথা যত কম বলা যায়, ততই ভালো। স্টুয়ার্ট বিনির নিজেরও বুঝি মাঝেমধ্যেই মনে হয়, ৪ রানে ৬ উইকেট পেয়ছিলেন তিনি স্বপ্নে!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

1 × 4 =