জন্মদিনের শুভেচ্ছা পাইলট ভাই

আজকে এমন একজন মানুষের জন্মদিন ছিল, বাংলাদেশের ক্রিকেটে তার যে কত অবদান তার হিসেব করা বোকামি। বাংলাদেশের ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত এমন ২ টা ছয় আছে যেটা কোটি টাকা দিলেও তার মূল্য পরিশোধ করা সম্ভব না,

১. আফতাবের মারা গিলেস্পির বলে অস্ট্রেলিয়া বধের দিন সেই ঐতিহাসিক ছয়,

২. আর একটা আজকের জন্মদিনের মানুষ, ‘খালেদ মাসুদ পাইলট’ ভাইয়ের আইসিসি ট্রফির ফাইনালে মার্টিন সুজির বলে মারা সেই ঐতিহাসিক ছয়।বাংলাদেশের ক্রিকেট এখন যেখানে আছে তার অর্ধেক কৃতিত্ব এই একটা ছয়ের মাঝে ছিল 🙂

খালেদ মাসুদ পাইলট
খালেদ মাসুদ পাইলট

তারপর আসি ২০০৪ সালের কথায়, বাংলাদেশের তখন টেস্ট স্ট্যাটাস নিয়ে প্রশ্ন !!! তিন দিন/চার দিনে প্রায় প্রতিটা টেস্ট হেরে যাচ্ছিল… এক ইনিংসে ৩০০+ করলে, আরেক ইনিংসে রান আসে<১০০.

এমন অবস্থায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে তাদের মাটিতেই টেস্ট, প্রথম ইনিংসে হাবিবুল বাশার আর রফিকের সেঞ্চুরিতে ৪১৬ রান বাংলাদেশের আর ৩৫২ রানে লারার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে অল আউট করার পর প্রথম ইনিংসে ৬৪ রানের লিড। তখনো ভয় ছিলো, ভয় ছিলো দ্বিতীয় ইনিংসে গুঁড়িয়ে যাবার !!!

হলোও ঠিক তাই, দ্বিতীয় ইনিংসে ৭৯ রানের মাঝেই ৬ উইকেট নাই। তারপর ক্রিজে নামলেন পাইলট ভাই আর করলেন তার ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি (একমাত্র)… ৩৩৪ মিনিট ক্রিজ আঁকড়ে ছিলেন, দ্বিতীয় ইনিংসে ২৮১ বলে ১০৩ রানে অপরাজিত থাকেন। টেল-এন্ডারদের নিয়ে প্রায় ৮৪ ওভার ক্রিজে ছিলেন আর সাথে সাথে বাংলাদেশও ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে এক ঐতিহাসিক ড্র করে ফেলে।

ক্রিকইনফো রিপোর্ট করেছিলো, “Bangladesh have taken the most significant step yet in their coming-of-age as a Test nation, as the West Indian bowlers were first beaten back and then brushed aside on the final day in St Lucia. Their hero was Khaled Mashud – also known as Pilot – who steered Bangladesh to safety and beyond with his maiden Test century.”

শুভ জন্মদিন পাইলট ভাই 🙂

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

11 + sixteen =