চুলকানিই সংক্রামক, স্পিরিট নয়

#২৫ মিনিট – আনলাকি ক্রিস্টিয়ানো ( পর্তুগাল না কিন্তু)
#৪৫ মিনিট- পর্তুগাল টীম একটা ভেড়ার পাল, আকাইম্মা। এক ক্রিস্টিয়ানো বাদে কেউ নাই।
#৯০ মিনিট- ওয়ান ম্যান আর্মি, বেঞ্চে বসেও দলকে লীড দিচ্ছে
#১২০ মিনিট- ভিভা ক্রিস, দা বেস্ট এভার, মোস্ট ডিসার্ভড।
‪#‎ফুটবল_বোদ্ধাদের‬ কারো মুখে ন্যানি, প্যাট্রিসিও, সানচেজ, পেপে, এডের দের নাম শুনা গেল না। পর্তুগালের আজকের সমর্থকেরাই আজ পর্তুগালের টীম স্পিরিট, ডেডিকেশান, ম্যানেজার এর ট্যাক্টিকস এর অপমান করলো।
‪#‎কিছু_মেসি_ফ্যান‬ এর দু:খ দেখে মনে হইতেসে মেসিই প্রথম লিজেন্ড যে জাতীয় দলে (সিনিয়র লেভেলে, কারণ জুনিয়র লেভেলে সে মোস্ট সাকসেসফুল একজন) কিছু কাপ পিরিচ পায়নাই। পুসকাস এর নামে বছর বছর পুরস্কার দেয়া হয়, ক্রুইফের আদর্শে আজ শত শত যুব একাডেমি উজ্জীবিত। বেঞ্চে বইসাও তো হুয়ানফ্রান ৩ টা কাপ জিতলো, সে কি মোস্ট সাকসেসফুল এভার? দায়টা পুরা আর্জেন্টিনার ফেডারেশন আর মেন্টালিটির, পর্তুগাল কিছু পেল কি না পেল সেটা আর্জেন্টিনার কিছু যাবে আসবে না।

‪#‎সব_প্যাচালই‬ ভূয়া মনে হবে, যদি আপনি আন্ধা ক্রিস্টিয়ানো বা আন্ধা মেসি ফ্যান হোন। খেলা আরাম কইরা দেখেন, কমন ফুটবল গ্রুপ লীভ মারেন। কারণ, ‘চুলকানিই সংক্রামক, স্পিরিট নয়’। আপনাগোরে নিয়া ভয় হইলো, ১০ বছর পরে তারা দুজন গেলেগা আপনারা খেলাটাতেই আগ্রহ হারাইয়া ফেলবেন।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

six − four =