চলো খেলা পাল্টে দেই !

‘আমি আগেই বলেছিলাম মদ্রিচের ব্যাক আপ রাখা উচিত … এখন হলো তো ?’
‘আমি আগেই বলেছিলাম মোরাতাকে বেঁচেবেন না ছেলেটা হীরের টুকরো…(গত লেগের আগেও মোরাতাকে চিনতো কিনা সন্দেহ)’
‘আমি আগেই বলেছিলাম ডি মারিয়াকে বেঁচবেন না ! ওর অভিশাপে আমরা পুড়ে ছাই হবো !’
”আমি আগেই বলেছিলাম বেলের পিছে এতো টাকা ঢালা মিছে এর চাইতে আমরা আরেকটা দল কিনতাম ভালো হইত !’

রাত পেরোতেই তিনবার ইউসিএল জেতা কার্লো আনচেলত্তির চাইতে বড় বড় ট্যাকটিশিয়ান গর্ত ফুঁড়ে বেরোচ্ছে । এক জায়গায় ভুল ধরলে কথা ছিলো ! হাজার জায়গায় হাজার ফুটো !

মরিনহো যখন লোপেজকে খেলায় , “ইকারের মতো একজন লিজেন্ডকে চান্স না দিয়ে শেষ করে দেওয়া হচ্ছে …”
কার্লো যখন ইকারকে খেলায় , “এমনেই তো আর হোসে মরিনিও স্পেশ্যাল ওয়ান হয় নাই …”

এক দশক আগেও আন্তর্জাতিক ফুটবলটা দেশের আপামর জনসাধারণের জন্যে ছিলো চার বছর পরের খেলা । স্রেফ চার বছর পরে পরেই আমাদের আন্তর্জাতিক ফুটবলের খোঁজ হতো । স্যাটেলাইট ফুটবলের বাজারটা এখানে অনেক বড় করে দিয়েছে । তবে সাথে সাথে আপনাকে এটাও মাথায় রাখতে হবে জাতি হিসেবে কতোটা আবেগী আমরা ! আর কতোটা সাফল্যবুভুক্ষু ? রিয়াল মাদ্রিদ সবস্ময়ই ইতিহাস, ঐতিহ্য আর সাফল্যের বিচারে ইউরোপের সবচাইতে বড় তিনটা ক্লাবের একটা – এইটা যেমন সত্য , আবার ভালো খারাপ সময় সবার যায় এইটাই সত্যি । এটা স্বীকার করতেই হবে , গতকাল জুভের সাথে ম্যাচে রিয়ালের সবকিছু ঠিক যায় নাই । আমার ক্ষুদ্র ফুটবল হৃদয় বলে , সব ঠিক গেলে একটা দল ম্যাচ কীভাবে হারে ? কিছু না কিছু তো অবশ্যই ভুল আছে । সেই ভুলগুলো নিয়ে কথা বলার জন্যেই তো আসলে কাল রাতের ম্যাচটা খেলা !

এর বাইরে আরেকটা কথা আলাদাভাবে উল্লেখ না করে পারছি না । ম্যাচের ভেতর আসলে কী হলো সেটা নিয়ে , খেলার ভিতরের আসল খেলাটা নিয়ে আলোচনা করার অভ্যেসটা আমাদের বেজায় কম । আমাদের আমজনতারও কম , আমাদের এখানে বেশিরভাগ প্রিন্ট মিডিয়ায় নামকরা সাংবাদিকদেরও কম ! ‘পগবা আর পির্লো মিলে কালকে মিডফিল্ডে রিয়ালকে খেয়ে দিলো’ – এই টাইপের কথা বার্তা নিয়ে আলোচনা করার আগ্রহ আমাদের কম ! বরং আমাদের আগ্রহ এই ধরনের কথাবার্তা নিয়ে , “আরে টনি ক্রুস আর কি খেলবে ? জার্মানি টীমটা ভালো বইলাই না বিশ্বকাপ জিতা গেলো তাদের সাথে ! অন্যজায়গায় খেললে তো কিছুই ছিড়তে পারতো না । ” মাঠের টেকনিক্যাল জিনিসগুলো আমরা জানি কম , প্লাস কীভাবে যেনো মাঠের টেকনিক্যাল জিনিস নিয়ে কেউ আলোচনা করলে তা আমাদের টানেও কম ! অত ভিতরে গিয়ে আলোচনা করার সময় কোথায় ? মেসি নিঃস্বার্থ আর রোনালদো অন্যের গোল সেলিব্রেট করে না – এই আলোচনায় দেশি মশলার পরিমাণটা যে অনেক বেশি ।

সমালোচনা প্রফেশনাল ফুটবলে হবেই । তবে আমার না মনে হয় কী … ৩ বার ইউসিএল জেতা লোকটার সবকিছু ভুল হতে পারে না এইটাও মনে হয় আমাদের মাথায় থাকা দরকার । এভাবে খাপছাড়া ভাবে সমালোচনা জিনিসটা ভালো লাগছে না । আর তার সাথে সাথে খালি সমালোচনা হইলেও হয় ! কথার আগে “আমি আগেই কইছিলাম” টাইপ কথা জুড়ে দিলে এদের দেখলে গা-জ্বালা বেড়ে যায় অনেকাংশে !
“আগেই কইছিলাম””গরিবের কথা বাসি হইলে ফলে”… এইটাইপ কথাবার্তা সেই ছোটবেলায় শাবানা জসীমের বিটিভির বিকেল ৩টার বাংলা ফিল্মে যেভাবে দেখেছি , ঠিক একইভাবে ঠিকড়ে বেরোচ্ছে এত বছর পরে আমাদের ‘ফুটবলপ্রেমি’ সত্ত্বায় । জাতির পোশাক বদলায় , জায়গা বদলায় , অভ্যেস বদলায় না ।

আবার কয়েকদিন পরে এই আনচেলত্তি কোন সাকসেস পেলে আমিও হয়তো বড় গলায় বলবো , “আগেই কইছিলাম বিজ্ঞ লোকের এত সমালোচনা ভালো না …”
আমিও যে একদম ভাত-মাছ খাওয়া বাঙালি !

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

10 − 10 =