ঘরোয়া ক্রিকেটে প্রতিযোগিতা ; শুভলক্ষণ

ভাল্লাগে, দলের মধ্য এই জমজমাট প্রতিযোগিতা! আমরা বড় দল হওয়ার পথেই আছি। ঘরোয়া ক্রিকেটে রানের ফোয়ারা ফুটিয়েও অনেকে দেখি আজকাল দলে চান্স পায়না কারণ এর চেয়ে ভালো ক্রিকেটার আগেই একাদশে আছে।

আজ নাফিস ডাবল সেঞ্চুরি করলো, তুষার ইমরান আছে ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মে, আমাদের টেস্ট ভবিষ্যৎ সাইফ ডাবল সেঞ্চুরি করলো। নাইম, বিজয় মোটামুটি রানে আছে।

ক্যারিয়ারের তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি করা মোসাদ্দেকও দলে ঢোকার অপেক্ষায়। সাব্বির, কায়েসও ভালো খেলতেছে। লিটন দাস কিছুদিন আগেই ডাবল করে শ্রীলংকা সফরে ডাক পেলো, শুভাগত হোম ১০ উইকেট আর সেঞ্চুরি করেও দলে নেই কারণ তার চেয়ে ভালো ক্রিকেটার দলে আগে থেকেই আছে।

৩৯, ৫৫, ১৯, ২২, ১, ৮, ৪০। সর্বশেষ ৭ ইনিংসে ১৮৪ রান। গড় ২৬.২৯। নাসির হোসেন নিজেও জানে এই রান দিয়ে আবার দলে ফেরা তার জন্য কঠিনই হবে। দলে ফিরতে হলো প্রচুর রান করতেই হবে।

ঘরোয়া ক্রিকেটের খোঁজখবর না রেখে, নির্বাচকদের গাইল্লাই তো লাভ নাই ভাই! সবাই আমাদেরই ক্রিকেটার, সবাই একই ঘরোয়া ক্রিকেটেই পারফর্ম করে দলে আসে। ‘প্লেয়ারকানা’ বলে ভাবার দরকার নাই আপনার প্রিয় ক্রিকেটার কেপটাউনে স্টেইন, মরকেলদের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করে আর বাদবাকি সবাই ন্যাড়া ক্ষেতে টেপ টেনিসে ভালো ইনিংস খেলে।

নির্বাচকদের গালি দেওয়া লোকদের সুবুদ্ধি উদয় হোক এবং ‘প্লেয়ারকানা’ রোগীদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করি।

@রিফাত এমিল

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

2 × one =