” ক্যাপিটালের ” সেরা মরিনহোর চেলসি

” চ্যাম্পিয়ন চেলসি “।
ইংলান্ডে নিজেদের আধিপত্য  আরো বিস্তার করলো চেলসি।

চ্যাম্পিয়ন চেলসি
চ্যাম্পিয়ন চেলসি
" ওল্ড গার্ড অফ চেলসি "
” ওল্ড গার্ড অফ চেলসি “

ইংলিশ লীগ কাপ , ক্যাপিটাল ওয়ান কাপের ফাইনালে শহুরে শত্রু টটেনহাম হটস্পার কে ২-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতে নিলো চেলসি।
সেই সাথে মরিনহো ইংল্যান্ডে ফিরে জিতে নিলেন নিজের ও দলের জন্য প্রথম শিরোপা।

কিন্তু ব্যাপারটা এতো সহজ ও হয়নি চেলসির জন্য । মেকশিফট মিডফিল্ড নিয়ে দল সাজান ম্যানেজার জোসে মরিনহো । সাসপেনশানের কারনে খেলতে পারেননি এই সিজনের সেরা সেন্টার ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার মেটিচ । আর তার রিপ্লেসমেন্ট জন অবি মিকেল ইনজুরির কারনে দলে ডাক পাননি।
তাই ম্যানেজার জোসে মরিনহো সবাইকে বোকা বানিয়ে মিডফিল্ডে নামিয়ে দিলেন ফরাসি অনুর্ধ ২১ দলের ডিফেন্ডার কার্ট জুমা কে।
রীতিমত বাজি ধরেন জুমাকে নিয়ে।
অপরদিকে পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে মাঠে নামে স্পারস। যদিও ২ দিন আগের ইউরোপা কাপের নক আউট রাউন্ডে ফিওরেন্টিনার বিপক্ষে নামা দলে না খেলা ৬ জন খেলোয়াড় কে খেলিয়েছেন ম্যানেজার পচেত্তিনো ।

খেলার শুরুতে চেলসি আক্রমণাত্মক ধার দেখালেও ধীরে ধীরে স্পারস খেলায় ফিরে আসে। কিন্তু প্রথমার্ধের শেষের দিকে  উইলিয়ানের কর্নার থেকে  সৃষ্টি হওয়া জটলা থেকে বল পেয়ে ফাঁকায় দাড়িয়ে থাকা জন টেরি দলকে এগিয়ে দেন।
দ্বিতীয়র্ধে স্পারস বেশ কয়েকবার আক্রমন চালিয়েও চেলসির নীল দুর্গ ভাংগতে ব্যর্থ  হয়। উল্টো ৫৬ মিনিটে ডিয়েগো কস্তার গোলে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় চেলসি।
খেলার শেষের দিকে স্পারস বেশ কয়েকবার চেষ্টা চালিয়েও টেরি এবং ইভানোভিচের দৃঢ়তায়  গোল করতে ব্যর্থ হয়।

পুরো ম্যাচে অসাধারণ পারফর্ম করেন মরিনহোর বাজির ঘোড়া কার্ট জুমা ! ম্যাচ শেষে জোসে  জুমাকে ফরাসি ও সাবেক চেলসি অধিনায়ক মার্সেল দেসাইলির সাথে তুলনা করেন।

সাথে মরিনহো বলেন ” ৫২ বছর হলেও,  এই জয়টা শিশুর মতো অনুভব করা গুরুত্বপুর্ন  ”
সাথে তিনি আরো বলেন ” অভিনন্দন স্পারশকে, পচেত্তিনোকে দারুন এক ম্যাচ উপহার দাওয়ার জন্য।
অন্যদিকে স্পারসের ম্যানেজার পচেত্তিনো বলেন  তিনি তার প্লেয়ারদের নিয়ে গর্বিত , আর এই পারফরমেন্সে অনেক পসিটিভ দিক দেখেছেন তিনি।
চেলসি অধিনায়ক জন টেরি এই ম্যাচে ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ হয়েছেন। তিনি আশা করছেন এই সিজনে আরো শিরোপা জয় করার।

উল্লেখ্য , চেলসি,  প্রিমিয়ার লিগে এক ম্যাচ কম খেলেও পয়েন্ট তালিকার প্রথমে অবস্থান করছে, ৫ পয়েন্টের ব্যবধানে। আর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নক আউট রাউন্ডে সুবিধাজনক অবস্থানে আছে।

এই ক্যাপিটাল কাপের গুরুত্ব ব্যাপক না হলেও, চেলসির ইংল্যান্ড আধিপত্য আরও মজবুত হলো। মৌসুমের প্রথম শিরোপা চেলসির মনোবল বৃদ্ধি করবে, এই ব্যাপারে কোনো দ্বিমত নেই।
এই শিরোপার সাথে মরিনহো নিজেকে আর চেলসিকে নিয়ে গেলেন রেকর্ডের এক অন্য উচ্চতায়।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

3 × 1 =