কে এই র‍্যালফ হ্যাসেনহাটল?

বেশ কয়েকদিন ধরেই কানাঘুষা শোনা যাচ্ছে, মৌসুম শেষে আর্সেনাল ছাড়তে পারেন কিংবদন্তী কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গার। ১৯৯৬ সাল থেকে যে ক্লাবকে তিলে তিলে বড় করেছেন, সে ক্লাবকে ছেড়ে যাবেন ইংলিশ লিগের বর্তমানের সবচেয়ে বেশী সময় ধরে থাকা এই ম্যানেজার। আর কানাঘুষা শোনা যাবেনাই বা কেন? এই মৌসুমেই আর্সেনালের সাথে ওয়েঙ্গারের চুক্তি শেষ হয়ে যাচ্ছে, আর আর্সেনালের পক্ষ হতে এখনো চুক্তিবৃদ্ধির কোন প্রস্তাব আসেনি। এরই মধ্যে শোনা যাচ্ছে, আর্সেন-হীন ভবিষ্যতের ছক ইতোমধ্যেই কাটতে শুরু করেছে আর্সেনালের মালিকপক্ষ। খুঁজে বেড়াচ্ছে ওয়েঙ্গারের যোগ্য উত্তরসূরিকে। এরই মধ্যে জার্মান ক্লাব আরবি লিপজিগের অস্ট্রিয়ান কোচ র‍্যালফ হ্যাসেনহাটল একরকম বোমাই ফাটালেন। জানালেন – ওয়েঙ্গারের উত্তরসূরি হিসেবে আর্সেনালের মালিকপক্ষ যোগাযোগ করেছে তার সাথে।

কিন্তু কে এই র‍্যালফ হ্যাসেনহাটল?

ফুটবলভক্ত মাত্রই জানার কথা, গত মৌসুমে ইংলিশ লীগের সিন্ডারেলার গল্পের মত লেস্টার সিটির উত্থান গাথার মত আরেক উত্থান-গাথা আস্তে আস্তে রচনা হচ্ছে জার্মান লিগে। এই মৌসুমেই বুন্দেসলিগায় উন্নীত ক্লাব আরবি লিপজিগ বায়ার্ন, ডর্টমুন্ড, শালকে, লেভারকুসেনদের মত ক্লাবকে কাঁচকলা দেখিয়ে জেঁকে বসে আছে শীর্ষস্থানে। ১৩ ম্যাচ শেষে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা বায়ার্ন মিউনিখের চেয়ে তিন পয়েন্টে এগিয়ে শীর্ষে আছে তারা। আর এই অভূতপূর্ব উত্থানগাথার পেছনের মাস্টারমাইন্ড হচ্ছেন এই অস্ট্রিয়ান কোচ র‍্যালফ হ্যাসেনহাটল।

ঘনিয়ে আসছে ওয়েঙ্গারের সময়?
ঘনিয়ে আসছে ওয়েঙ্গারের সময়?

২০১৩ তে আরেক জার্মান ক্লাব ইঙ্গলস্ট্যাটের ম্যানেজার হয়ে জার্মান দ্বিতীয় বিভাগের তলানি থেকে উঠিয়ে ইঙ্গলস্ট্যাটের ইতিহাসের প্রথমবারের মত তাদেরকে বুন্দেসলিগায় তুলে নিয়ে এসে ছোটখাট রূপকথার জন্ম সেখানেও দিয়েছিলেন এই হ্যাসেনহাটল। পরে বুন্দেসলিগায় নিজেদের প্রথম মৌসুমেই একাদশ স্থানে থেকে লিগ শেষ করেছিল তারা। তাঁর এই কৃতিত্বই মূলত লিপজিগের কর্মকর্তাদের চোখে পড়ে, এই মৌসুমেই লিপজিগে চলে আসেন হ্যাসেনহাটল। আর তারপরের কাহিনী ত এখন সবারই জানা।

খেলোয়াড়ি জীবনে স্ট্রাইকার হিসেবে খেলা এই হ্যাসেনহাটল এখন আর্সেন ওয়েঙ্গারের উত্তরসূরি হতে পারেন কিনা, সেটা সময়ই বলে দেবে!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

11 + 9 =