কান নিয়েছে চিলে !

২০১১ সালের দিকের ঘটনা । ভার্সিটি এডমিশন টেস্টের প্রিপারেশন নিচ্ছি । মিডিয়ার এক জায়গা দুই জায়গা করে সারা মিডিয়ায় রটে গেলো ঢাকাতে আসছেন আর্জেন্টিনা দল । আস্তে আস্তে কে আনছে , কাদের অর্থায়নে আনছে , প্রতিপক্ষ কে হবে , কোথায় দেখানো হবে সব আস্তে আস্তে বলে দেওয়া হলো । তবে সব ঠিকঠাক হয়ে গেলেও একটা প্রশ্নের উত্তর পাওয়ার আগ পর্যন্ত কেউ আর বড় গলায় কিছু বলে না । প্রশ্নটা কী ?
“লিওনেল মেসি আসছেন তো ?”
তার আগে , আপনাকে জিজ্ঞাসা করি, লিওনেল মেসি কে ? এই প্রশ্নের সবচাইতে ছোটো আর স্মার্ট উত্তর হলো , সর্বকালের সেরা ৫ জন ফুটবলারের লিস্ট করতে বলা হলে তার একজন হবেন লিওনেল মেসি (একজন ব্রাজিল ভক্ত হয়ে বলছি) । আর সাথে সাথে সর্বকালের সেরা ২০ জন এথলেটের তালিকা করতে বললে তাতেও সন্দেহাতীতভাবে থাকবেন এই আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকর ।

মেসিও গুলিস্তানে খেলে গেছেন !
মেসিও গুলিস্তানে খেলে গেছেন !

তারপরের প্রশ্ন, ফুটবলে আমাদের জায়গাটা ঠিক কোথায় ?
এই প্রশ্নের নির্মম সত্যি উত্তর হলো, আন্তর্জাতিক ফুটবলে আমাদের এখনো ঠিক কোন জায়গা তৈরি হয় নি । যে দেশের জাতীয় দলের র‍্যাঙ্কিং এ জায়গাটা মূলত নির্ভর করে আশেপাশের দলগুলোর হারাজেতার উপরে তাদের আবার জায়গা কি ? কিন্তু বিশ্বের সবচাইতে জনপ্রিয় এই খেলাটা নিয়ে আমাদের মাদকতার লেভেল ? এই প্রশ্নের উত্তর আপনি খুঁজুন বিশ্বকাপের আগে আপনার নিজের বাসার ছাদে । এক মাসের লম্বা ফেস্টিভাল লেগে যায় এখানে বিশ্বকাপের সময়ে । আর ব্রাজিল বা আর্জেন্টিনা দুটো দলই সেমি পর্যন্ত যেতে পারলে তো কথাই নেই ! সেই দেশে লিওনেল মেসি আসছে কি না আসছে সেটা নিয়ে পাগলামি না হলে হবে কি নিয়ে ? মেসির লেভেলের একজনকে ঢাকার মাঠে খেলতে দেখাটাও তো বিশাল ব্যাপার আমাদের জন্যে । যাদের পোস্টার আর ছবিওয়ালা ফিকচার আমাদের বিশ্বকাপ রাঙায় , যাদের একেকটা জার্সি প্রতি বিশ্বকাপের আগে পিছে শুধু নাম লেখা থাকার কারণে দ্বিগুণ দামে বিকোয় , তার আসা না আসা নিয়ে এক্সাইটমেন্টঁ তো স্বাভাবিক ।

এবার আসল কথায় আসি । এবার ফুটবল থেকে ক্রিকেটে আসি ।
পাকিস্তান ক্রিকেট দল ঢাকাতে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলে গেলো । সামনে আসছে ভারত । আবারও বলছি, ‘ভারত’ আসছে । ভারতের ক্রিকেট দল আসছে । মাঠে ১১ জন নামবে যাদের গায়ে নীল রঙের জার্সি থাকবে ওয়ানডেতে (অবশ্যই বিসিসিআই এর লোগোওয়ালা) আর টেস্টে অফ হোয়াইট জার্সি থাকবে (অবশ্যই বিসিসিআই এর লোগোওয়ালা) যারা ভারতকে রিপ্রেজেন্ট করবে । আমাদের ফোকাসটা থাকা দরকার একটা জায়গাতেই । আমাদের প্রতিপক্ষ ভারত থেকে আসা ১১ জন প্রফেশনাল ক্রিকেটার । তাদের হারানোর জন্যে আমাদের সম্বল আমাদের দেশে থাকা সেরা ১১ জন খেলোয়াড় ।

এই জিনিসটা মনে হয় আমরা ভুলে যাচ্ছি । আমাদের মিডিয়া প্লাস আমরা ক্রিকেট ফ্যানবেইজ ‘কোহলি কি আসবে ?”ধোনি তাহলে এলোই না ?’- এই প্রজাতির অদ্ভুত কোয়েশ্চেন করে খেলা থেকে ফোকাস সরিয়ে নিচ্ছে । আজ সকালেও প্রথম আলোতে খেলার পাতায় দেখলাম কোহলির আসা- না আসা নিয়ে আলাদা নিউজ । হু ইজ বিরাট কোহলি ? হু ইজ ধোনি ? সাকিব আল হাসান বা মুশফিকুর রহিমের চাইতে অনেক বড় ক্রিকেট স্টার ? ৯০ এর দশকে ক্রিকেটটা আমাদের দেশে যখন উঠছে , তখন নাকি ওয়াসিম আকরাম-জয়সুরিয়ারা ঢাকা লিগে খেলতে এলে সব জায়গায় একদম তোলপাড় পড়ে যেত । কারণ তখনও ক্যাসিনো কিং খালেদ মাহমুদ সুজন বা আকরাম খানেরাই এদেশের সবচেয়ে বড় স্টার । কিন্তু এই জমানায় এসে নিজেদের সাকিব-ম্যাশ থাকতে আমরা কেনো ভিরাট বা ধোনির আসা না আসা নিয়ে এত কথা খরচা করবো ?
ক্রিকেটের গ্রুপগুলোতে আরো রমরমা অবস্থা । ভারত আমাদের ছোট করে দেখছে , এই করছে , সেই করছে আরো নানান রকমের কথাবার্তা । প্রিন্ট মিডিয়া আর ইলেকট্রিক মিডিয়া আরেক কাঠি সরেস ।

ভিরাট কোহলি কি ক্রিকেটের মেসি নাকি ? নাকি শচীন টেন্ডুলকারের অর্জনকেও ছাড়িয়ে গিয়েছে ? নাকি ও না এলে আমাদের ছেলেরা অনেক কিছু শেখা থেকে বঞ্চিত হবে ?

কোহলিকে ক্রিকেটের মহারাজা বানিয়ে দিচ্ছি আমরাই !
কোহলিকে ক্রিকেটের মহারাজা বানিয়ে দিচ্ছি আমরাই !

সেই যুগে বাংলাদেশে শচীন টেন্ডুলকারের পেপসির এডও চালানো হত বলে শুনেছি । কিন্তু আমাদের ক্রিকেটে এখন নিজেদের স্টার আছে । সেজন্যেই পেপসি ২০১১ বিশ্বকাপের আগে সাকিবকে দিয়ে আলাদা একটা বিজ্ঞাপন বানিয়ে নিয়েছে এদেশে বিজনেসটা চালানোর জন্যে । বাংলাদেশ একটা টেস্ট প্লেয়িং ক্রিকেট দল … তাদের প্রতিপক্ষ আরেকটা টেস্ট প্লেয়িং দল ভারত ক্রিকেট দল । সিরিজের আগে এতোটুকুই জানা দরকার ।এত কথার তো দরকার নাই ভাই । মাথায় থাকা দরকার আমাদের চাইতে র‍্যাঙ্কিং এ উপরের দিকে একটা দল আসছে , তাদের হারালে আমাদের র‍্যাঙ্কিং পয়েন্ট বাড়বে প্লাস আমাদের র‍্যাঙ্কিং এ উপরের দিকে যাবার সুযোগ থাকছে । গেলো বার ওরা আমাদের ১০০ রানে টার্গেট দিয়েছিলো আমাদের এখানে এসে । আমরা ৫০ রানে অলআউট হয়ে গেছি । সেবার পার পেয়ে গেছে বলেই না এবার পাঠানোর সাহসটা পাচ্ছে । এবার এমন কিছু করি যাতে আর বাপের জনমে আর হাফ টীম পাঠানোর সুযোগটা না পায় । একদম শরম দিয়ে হারিয়ে দেই ! একদম ন্যাঙটা করে হারিয়ে দেই !

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

sixteen + eighteen =