কাতানেচ্চিও আর বাস পার্ক এক না…

আমার কাছে কাতানেচ্চিও আর বাস পার্ক এক মনে হয় না। যদিও টিপিকাল কাতানেচ্চিও আমি দেখি নাই। তবে কিছু আরটিকেল পরে যা মনে হয়েছে তাই লেখার চেষ্টা করলাম। ভুল-ভ্রান্তি মাফ করবেন।

 

বিভিন্ন ফরমেশনে কাতানেচ্চিও খেলানো যায় যেমন ৩-৫-২,৪-৩-১-২ এছাড়া আরও অনেক তবে এই দুইটাই সবচে জনপ্রিয়। কিছু কিছু মিডফিল্ডে এ “sweeper” রোল(ball winner,cdm,anchor,destroyer,volante যা ইচ্ছা বলতে পারেন কিন্তু ভুমিকা একই) ব্যাবহার করা হয় আর কোনগুলাতে ট্রিপল পিভট। দুইটার কাজই হল মিডফিল্ডএ বল ডিসপজেশনিং আর বিপক্ষকে খেলা বের করতে জায়গা না দেওয়া। এতে অপনেনট মিডফিল্ডের সামনে গেলেই বল হারাত।এছাড়া বিপক্ষ দল বল ধরে রেখে আক্রমন কিংবা কাউনটার অ্যাটাক খুব বেশি সুযোগ পেতনা কারন দলের সবচে ওয়াইড প্লেয়ারটি অনেক নিচে নেমে থাকতো যখন বল বিপক্ষ দলের কাছে থাকতো। এছাড়া প্রচুর বল উইনার থাকায় বিপক্ষ দলের নাম্বার ১০ বা প্লেমেকাররা খেলা তৈরি করার সুযোগ কম পেত।আর যে ফরমেশনই হোক না কেন বক্সে সবসময় ৩ জন খাঁটি সেন্টার ব্যাক থাকায় স্ট্রাইকাররাও ফ্রী হতে পারত না। আর আক্রমণের ক্ষেত্রে এই ফরমেশনে বল উইনিং মিডফিল্ডারদের সামনে থাকতো টিপিকেল ত্রেকুয়ারতিস্তা যাদের কাজ ছিল ওয়াইড মিডফিল্ড দিয়ে দুই উইং প্লেয়ার, ব্যাক বা মিডফিল্ডারদের দিকে বল বাড়ানো কিংবা দুই সেন্টার ফরওয়ার্ডকে থ্রু পাস দেয়া। খেয়াল করলে দেখবেন তখন কার দিনে সাধারণত দুইজন সেন্টার ফরওয়ার্ড থাকতো যেটা এখন কম ব্যাবহার করা হয়(এখন সাধারণত একজন বক্স স্ট্রাইকার বেশি ব্যাবহার করা হয়)। এতে ফাইনাল থার্ডে অপশন বেশি থাকায় দলের স্কোরিং চান্স বাড়ত। যেটা এখন খুব কম ব্যাবহার হয়। সেন্টার ফরওয়ার্ড দুইজন থাকায় ডিফেন্ডারদের বক্সের ভিতর মারকিং এ ভুল করত বা ওয়ান টু ওয়ান সিচুএশন তৈরি হত। যেহেতু এধরনের অ্যাটাক বারবার হতনা হঠাৎ হঠাৎ হত তাই আক্রমনে বিপক্ষ প্রচুর ভুল করত এবং বেসামাল হয়ে পরত। এটাই তৎকালীন কাতানেচ্চিও এর সবচে বড় সুবিধা ছিল। আর দলের অ্যাটাকিং টেন্ডেন্সি কম থাকায় টেকনিক্যালি ভালো কিংবা ভালো বল প্লেয়ার বা ডিসট্রিবিউটর খুব বেশি দরকার হতনা। এজন্যই খেলাটাকে কখনই অতটা ভালভাবে দর্শক কিংবা সমালোচকরা গ্রহন করেনি যদিও খুবই কার্যকরী হিসেবে এটা ফুটবল দুনিয়া শাসন করেছে সাফল্যের সাথে।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

twelve + 4 =