শত্রুশিবির থেকে ইন্টার মিলানে কাওয়াদো আসামোয়াহ

শত্রুশিবির থেকে ইন্টার মিলানে কাওয়াদো আসামোয়াহ

উদিনেসে তে থাকার সময়েই ভালো পারফরম্যান্স দিয়ে তৎকালীন জুভেন্টাস ম্যানেজার আন্তোনিও কন্তের নজর কেড়েছিলেন কাওয়াদো আসামোয়াহ। লেফটব্যাক, লেফট মিডফিল্ড/লেফট উইংব্যাক, লেফট উইঙ্গার এমনকি অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার হিসেবে খেলতে পারা আসামোয়াহ এর মত সব্যসাচী খেলোয়াড় যে কোন কোচের জন্যই আদর্শ – এ কথা বুঝতে পেরেছিলেন কন্তে। মোটামুটি ৯ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ২০১২ সালে উদিনেসে থেকে জুভেন্টাসে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। এই ছয় বছরে জুভেন্টাসের হয়ে এক চ্যাম্পিয়নস লিগ ছাড়া মোটামুটি সবকিছুই জয় করেছেন তিনি। জুভেন্টাসের হয়ে ছয়বার লিগ, তিনবার সুপারকোপা ইতালিয়ানা, চারবার কোপা ইতালিয়া জেতার পর এবার অন্য মিশনে যাচ্ছেন তিনি। এই মাসেই জুভেন্টাসের সাথে চুক্তি শেষ হতে যাওয়া আসামোয়াহ ফ্রি ট্রান্সফারে যোগ দিচ্ছেন সিরি আ প্রতিদ্বন্দ্বী ইন্টার মিলানে। ইন্টার মিলান তাঁর সাথে ২০২১ সাল পর্যন্ত চুক্তি করতে যাচ্ছে। আর প্রতি বছর ৩.৫ মিলিয়ন ইউরো উপার্জন করতে যাচ্ছেন তিনি। ছয় বছর জুভেন্টাসে থাকার পর লুসিয়ানো স্প্যালেত্তির ইন্টার রেভোল্যুশনে যোগ দিচ্ছেন তিনি।

বেশ ক’বছর ধরেই লেফটব্যাক পজিশনটা নিয়ে সমস্যায় ছিল ইন্টার মিলান। জাপানিজ লেফটব্যাক ইউতো নাগাতোমো একজন সাধারণ লেফটব্যাক হয়েও ইন্টারে কাটিয়ে দিচ্ছেন বছরের পর বছর, ওদিকে ২০১৪ সালে তোরিনো থেকে ইন্টারে যোগ দেওয়া ইতালিয়ান লেফটব্যাক ড্যানিলো ডি’অ্যাম্ব্রোসিও-ও সেরকম নজরকাড়া পারফরম্যান্স দেখাতে পারেননি কখনই, একই কথা বলা যেতে পারে ইন্টারের আরেক ইতালিয়ান লেফটব্যাক ডেভিডে স্যানটনের বেলাতেও। তাই এই পজিশনটাকে শক্তিশালী করার জন্য গত কয়েক বছর ধরেই চিরশত্রু জুভেন্টাসের হয়ে ভালো করা কাওয়াদো আসামোয়াহ কে ফ্রি তে আনার লোভটা সামলাতে পারেননি ইন্টার কোচ লুসিয়ানো স্প্যালেত্তি।

শত্রুশিবির থেকে ইন্টার মিলানে কাওয়াদো আসামোয়াহ

আসামোয়াহ এর খেলার সবচেয়ে বড় দিক হক তিনি একজন সব্যসাচী খেলোয়াড়। বাম পায়ের খেলোয়াড় বিধায় জুভেন্টাসে তিনি ৩-৫-২/৩-৪-৩ ফর্মেশানে লেফট উইংব্যাক, ৪-৩-৩ ফর্মেশানে লেফটব্যাক, ৪-৪-২ ফর্মেশানে লেফটব্যাক বা লেফট মিডফিল্ড আবার কখনো কখনো লেফট উইঙ্গার হিসেবেও খেলেছেন। ঘানাইয়ান এই উইংব্যাক প্রচণ্ড ট্যাকটিকালি ঋদ্ধ একজন খেলোয়াড়, যেকোন খেলোয়াড়েরই সম্পদ। উদিনেসে তে থাকার সময় আবার ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার, সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার, কখনওবা অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার হিসেবেও খেলেছেন তিনি। ফলে যেকোন পজিশনেই সুন্দরমত কোচ লুসিয়ানো স্প্যালেত্তি খেলাতে পারবেন তাঁকে। বেশ শক্তসমর্থও বটে তিনি। ভামদিকে এগিয়ে গিয়ে সতীর্থদের জন্য প্রায়ই ঠিকঠাক ক্রস কিংবা থ্রু বল দিতে দেখা যায় তাঁকে, দূর থেকে জোরে শট নিয়ে গোল করতে পারার ব্যাপারেও সুখ্যাতি আছে তাঁর। এসব গুণাবলির জন্য আক্রমণ বা রক্ষণ, যেকোন দিকেই ইন্টার মিলান একটা আদর্শ খেলোয়াড় পেতে যাচ্ছে, এ কথা বলাই যায়। সবচেয়ে বড় কথা যেটা, ইন্টারের এই স্কোয়াডে কাওয়াদো আসামোয়া নিয়ে আসবেন একরাশ অভিজ্ঞতা, ট্রফি জয় করার অভিজ্ঞতা, যা এই ইন্টার মিলান এর তরুণ খেলোয়াড়দের অনুপ্রাণিত করবে।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

one × four =