এদেশে ক্রিকেটের আজ সুদিন চলছে বলে…

৩০ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াডের বাইরে থেকে ২০ জনের দলে নতুন মুখ কেন কিংবা তার ও বাইরের মোশাররফ রুবেল এর অন্তুর্ভুক্তি আমার প্রশ্ন না। কেননা দীর্ঘদিন ডমেস্টিকে পারফর্ম করার পরেও স্পেস এর অভাবে রুবেলকে অনেক বছর ওয়েট করতে হয়েছে লাল সবুজের জার্সি পেতে। আবার কে জানে আলাউদ্দিন বাবু কিংবা শুভাশিস রয়রা মাঠ মাতাবেন না সৌম্য সরকারদের মত!! তাই নতুন মুখদের সবাইকেই অভিনন্দন ও অনেক অনেক শুভ কামনা। তারা ভাল কিছু করতে পারলে তো আমাদেরই মংগল! কিন্তু প্রশ্ন হলো…… ফিটনেস ইস্যু আর ২০১৪ সালের এশিয়া কাপের এক পাকিস্তান ট্রাজেডির জন্য…আব্দুর রাজ্জাকের মত ভেটেরান কোন স্পিনারের অস্তিত্ব এভাবে ভুলে যাওয়াটা কি কোনভাবেই ইনসাফ!! তাইজুল টেস্টে তো থাকবেই। তাছাড়া আফগানিস্তান সিরিজের প্রেসার নেয়ার মত ক্ষমতা অন্তত এখনো আব্দুর রাজ রাজ্জাকের ছিল। বাংলাদেশ ক্রিকেটের কাছে এতটুকু তিনি চাইতেই পারেন সকল যুক্তি তর্কের বাইরে থেকে। অষ্ট্রেলিয়ার মাঠ না হয় বড় বড় মিরপুরের মাঠ তো আর অত ছিল না কখনোই। আবার, কামরুল ইসলাম রাব্বী! ডিপিএলের ২য় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি বলেই যে দলে নিতে হবে এমন কথা না কিন্তু প্রশ্ন হলো…. জিম্বাবুয়ে সিরিজে ১৫ জনের দলে থেকেও অভিষেক না হওয়া ছেলেটা ঠিক কোন যুক্তিতে আবারো ৩০ জনের একজন হয়েও আজ দৃষ্টিসীমার এত বাইরে। এইচপি’র পেসার যদি নেয়াই লাগতো তাহলে প্রথমে ৩০ জনে নিলে সমস্যা ছিল কোথায়। এইচপি টিমে এমন কি প্রাক্টিস ম্যাচই বা হয়েছিল!! তথাপি নতুনের আগমনের বিরোধী ছিলাম না কিন্তু কখনোই…… টেস্ট স্কোয়াড হয়তো দেয়া হবে কিছু দিন পর। বেশি প্রশ্ন রেখে লাভ নাই জানি কারন উত্তর দেয়ার জন্য কেউ দায়বদ্ধ নয়। ইংল্যান্ড দলেও যেখানে ১২ বছর পর গ্যারেথ বাটিরা হারিয়ে যায় না….সেখানে বাংলাদেশের মত ক্রিকেট প্রতিভার দেশে নাইম ইসলাম মার্শাল আইয়ুবদের আর খোজ নেয়ার উপযোগিতা কই??? নাইম ইসলাম ঠিক কোন কারনে টেস্ট দল থেকে বাদ পড়েছেন কারো জানা আছে কিনা জানা নাই তবে নাইম ইসলামের অবশ্যই জানার কথা না!! থাক এত রাতে অযথা আর প্রশ্ন বাড়িয়ে লাভ কি?? এদেশে ক্রিকেটের আজ সুদিন চলছে বলে…..!!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

three × three =