একের পর এক লজ্জা পাকিদের

ভেবেছিলাম ৪৪৩ রানের রেকর্ডটকে শ্রীলঙ্কা জাদুটোনা করে রেখেছে। দক্ষিণ আফ্রিকা তো প্রায় ছাড়িয়ে যাচ্ছিল। ৪৯তম ওভারেও ডি ভিলিয়ার্স নিলেন ৩০ রান। রেকর্ড গড়তে শেষ ওভারে দরকার মাত্র ৮। আমলা-ডি ভিলিয়ার্স থাকার পরও আন্দ্রে রাসেলের ওভারে এলো মাত্র ৩ রান!

পরে আবার দক্ষিণ আফ্রিকাই। এবার রেকর্ডের জন্য শেষ ৩ বলে দরকার ছিল ১০ রান। আগের ৩ বলেই এসেছে একটি ছক্কা, একটি চার। কিন্তু হরভজন সিংয়ের শেষ ৩ বলে এলো মাত্র ৪।

আজকেও রেকর্ডের জন্য শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল মাত্র ৬ রান। এতক্ষণ তান্ডব চালানো জস বাটলার হঠাৎ হাসান আলির স্লোয়ারগুলিতে ব্যাটই লাগাতে পারছিলেন না। প্রথম ৫ বলে ২ রান। ভাবলাম এবারও বুঝি অক্ষত থাকবে রেকর্ড। শেষ বলে স্লোয়ারেই বাটলারের বাউন্ডারিতে কাটল শ্রীলঙ্কার জাদুটোনা। রেকর্ড।

ওয়ানডের জনক যে দেশ, বছরের পর বছর ধুঁকে এসেছে ওয়ানডেতে, খেলেছে বিরক্তিরকর, একঘেয়ে, অনাকর্ষক ক্রিকেট, পালাবাদলের পালায় আজ সেই ইংল্যান্ডই ওয়ানডেতে প্রায় সাড়ে চারশ করে বিশ্বরেকর্ড গড়ে। ক্রিকেট আর কত কিছু দেখাবে!

একটা মজা অবশ্য নষ্ট হয়ে গেল। ক্রিকেটের তিন সংস্করণেই এতদিন সর্বোচ্চ রান ছিল শ্রীলঙ্কার, প্রতিটিতেই সর্বোচ্চ ইনিংস সনাৎ জয়াসুরিয়ার। বেরসিক ইংল্যান্ড সেটা নষ্ট করল। এখন শ্রীলঙ্কা ও জয়াসুরিয়ার মতো কিছু করে দেখাক…ইংল্যান্ড আর হেলস!

হেলস ইংল্যান্ডের ব্যক্তিগত রেকর্ড রান করলেন, এক ইনিংসে ২২ বাউন্ডারির রেকর্ড গড়লেন। বাটলার করলেন ইংল্যান্ডের দ্রুততম ফিফটি। মর্গ্যান-বাটলার জুটিতে ৭২ বলে ১৬১। রুটও করতে পারতেন সেঞ্চুরি। আর দুটি বল পেলে বাটলারও করতে পারতেন। ৪৬.৪ ওভারে ৪০০ স্পর্শ করেছে ইংল্যান্ড, যেটিও ওয়ানডেতে দ্রুততম। স্পর্শ করেছে দক্ষিণ আফ্রিকার রেকর্ড।

তবে সবাইকে ছাপিয়ে গেছেন আরেকজন। তিনিও সেঞ্চুরি করেছেন। পাকিস্তানের হয়ে ওয়ানডেতে ১৭৪টি সেঞ্চুরি আছে, তবে এই ভদ্রলোকের মতো করতে পারেনি একজনও। তিনি করেছেন বল হতে সেঞ্চুরি, রান দেওয়ার। ওয়াহাব রিয়াজ!

১০ ওভারে ১১০ রান। শেষ শেষ বলে ছক্কা হজম করেছেন। ওয়াহবের আর একটি বল থাকলে ১১৩ রানের রেকর্ডটা থেকে স্বস্তি পেতেন মিক লুইস। হলো না। তবে বোধ-বুদ্ধিহীন বোলিংয়ে যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছেন ওয়াহাব, নিকট ভবিষ্যতে রেকর্ডটা থেকে উদ্ধার পাওয়ার আশা লুইস করতেই পারেন!

সহজতা প্রতিভা আছে, নেই মাথা। পাকিস্তানের হয়ে সবচেয়ে খরুচে বোলিংয়ের আরেগর রেকর্ডও ছিল এই ওয়াহাবেরই, ৯ ওভারে ৯৩! ৯ ওভারে ৮৬ রানও দিয়েছেন একবার। রানের খনি!

সিরিজ তো পাকিরা নিশ্চিত হারতেছে। এবার পরাজয়ের ব্যবধানেও কোনো রেকর্ড হলে দারুণ হয়। তাদের আদরের কাসেইম্মার লাল বাতি জ্বলার দিনে তাহলেই হয়ে যায় সোনায় সোহাগা!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

four × 3 =