ইউরো টিম প্রিভিউ : ওয়েলস

ইয়ান রাশের ওয়েলস। রায়ান গিগসের ওয়েলস। ক্রেইগ বেলামির ওয়েলস। এখন গ্যারেথ বেলের ওয়েলস। ইংল্যান্ডের গায়ে লেগে থাকা এই ছোট্ট দেশটা সবসময়েই বিশ্ব ফুটবলকে উপহার দিয়েছে বিশ্বজয়ী কিছু সুপারস্টার। ক্লাবজীবনে চূড়ান্তভাবে সফল রাশ-গিগস-বেলামিরা দেশের ক্ষেত্রে আবার কিন্তু চরমভাবে ব্যর্থ। সেই ১৯৫৮ সালের সুইডেন বিশ্বকাপে খেলাটাই এখন পর্যন্ত দলটার মাইলফলক হয়ে আছে। তবে গ্যারেথ বেল সেই ধারা ভাঙবেন, সেরকমই যেন প্রতিজ্ঞা করেছেন। র‍্যামসি-অ্যালেন-উইলিয়ামসদের সহযোগিতায় বেল এবার পেরেছেন নিজের দেশকে ইউরোর মঞ্চে তুলে ধরতে, ইতিহাসের প্রথমবারের মত। কোচ ক্রিস কোলম্যান ইউরো ২০১৬ এর জন্য এরইমধ্যে ঘোষণা করেছেন ২৩ সদস্যের দল, দেখে নেওয়া যাক কিরকম হল দলটা।

GettyImages-487110600

  • গোলরক্ষক

ওয়েইন হেনেসি (ক্রিস্টাল প্যালেস)

ড্যানি ওয়ার্ড (লিভারপুল)

ওয়াইন ফন উইলিয়ামস (ইনভারনেস ক্যালেদোনিয়ান থিসল)

 

  • ডিফেন্ডার

ক্রিস গান্টার (রিডিং)

নিল টেইলর (সোয়ানসি সিটি)

বেন ডেভিস (টটেনহ্যাম হটস্পার)

জেইমস চেস্টার (ওয়েস্টব্রমউইচ অ্যালবিওন)

অ্যাশলি উইলিয়ামস (সোয়ানসি সিটি)

জ্যাজ রিচার্ডস (ফুলহ্যাম)

জেইমস কলিন্স (ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেড)

 

  • মিডফিল্ডার

জ্যো অ্যালেন (লিভারপুল)

অ্যান্ডি কিং (লেস্টার সিটি)

অ্যারন র‍্যামসি (আর্সেনাল)

ডেভিড এডওয়ার্ডস (উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স)

জ্যো লেডলি (ক্রিস্টাল প্যালেস)

ডেভিড কটেরিল (বার্মিংহ্যাম সিটি)

জোনাথান উইলিয়ামস (ক্রিস্টাল প্যালেস)

ডেভিড ভন (নটিংহ্যাম ফরেস্ট)

গ্যারেথ বেল (রিয়াল মাদ্রিদ)

হাল রবসন-কানু (রিডিং)

 

  • স্ট্রাইকার

স্যাম ভোকস (বার্নলি)

জর্জ উইলিয়ামস (ফুলহ্যাম)

সিমোন চার্চ (মিল্টন কিনস ডন্স)

 

  • উল্লেখযোগ্য যারা বাদ পড়েছেন

পল ডামেট (ডিফেন্ডার, নিউক্যাসল ইউনাইটেড)

অ্যাডাম হেনলি (ডিফেন্ডার, ব্ল্যাকবার্ন রোভার্স)

গ্যারেথ বেলের কাঁধেই পুরো ওয়েলসের স্বপ্ন
গ্যারেথ বেলের কাঁধেই পুরো ওয়েলসের স্বপ্ন

গ্রুপ ‘বি’ তে এবার ইংল্যান্ডের প্রতিপক্ষ রাশিয়া, ইংল্যান্ড ও স্লোভাকিয়া। হারানোর কিছু নেই যেহেতু ওয়েলসের, তাই তারা চাইবে এই ট্রিকি গ্রুপটা থেকেও কিছু না কিছু পয়েন্ট বের করে আনতে। বাছাইপর্বে মাত্র একটা ম্যাচ হারা ওয়েলস সে অভিযানে সফল হতেই পারে, বাজি ধরে বলা গেলেও, আশাবাদী ত হওয়াই যায়!

গোলরক্ষক হিসেবে ক্রিস্টাল প্যালেসের ওয়েইন হেনেসি খেলছেন, তাঁর ব্যাকআপের ভূমিকা পালন করবেন লিভারপুলের তরুণ গোলরক্ষক ড্যানি ওয়ার্ড ও ইনভারনেস থিসলের ওয়াইন ফন উইলিয়ামস। ক্রিস কোলম্যান মূলত দলকে খেলাতে পছন্দ করেন ৩-৫-২ ফর্মেশানে, দলে সেরকম কার্যকরী স্ট্রাইকার না থাকার কারণে পাঁচ ডিফেন্ডার খেলানো কোলম্যান আবার ৪-৫-১ ফর্মেশানেও দলকে খেলান কখনো কখনো। তা যেই ফর্মেশানেই হোক না কেন, সোয়ানসি সিটির ডিফেন্ডার অধিনায়ক অ্যাশলি উইলিয়ামসের খেলা নিশ্চিত। ৩-৫-২ ফর্মেশানে বাকি দুই সেন্টারব্যাক কিংবা ৪-৫-১ এর বাকী সেন্টারব্যাকের পজিশানে খেলার লড়াইয়ে সবচেয়ে এগিয়ে আছেন ওয়েস্টব্রমউইচ অ্যালবিওনের জেইমস চেস্টার, সেন্টারহাফ হিসাবে খেলতে পারেন রিডিংয়ের ক্রিস গান্টার কিংবা ওয়েস্টহ্যামের জেইমস কলিন্সও। টটেনহ্যাম হটস্পারের লেফটব্যাক বেন ডেভিস এখানে লেফটব্যাক/লেফট উইংব্যাক হিসেবে খেলতে পারেন, আবার ডিফেন্সের বামদিকেও তাঁকে খেলতে দেখা যায় মাঝে মাঝে। লেফটব্যাক হিসেবে তাঁর ডেপুটি থাকবেন সোয়ানসি সিটির নিল টেইলর। রাইটব্যাক বা রাইট উইংব্যাক হিসেবে খেলার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশী আবার সেই ক্রিস গান্টারের, তাঁর ব্যাকআপ থাকছেন ফুলহ্যামের জ্যাজ রিচার্ডস। আসলে অ্যাশলি উইলিয়ামস ছাড়া বেন ডেভিস, ক্রিস গান্টার, নিল টেইলর, জেইমস চেস্টার, জেইমস কলিন্স মোটামুটি একই মানের ডিফেন্ডার হওয়ায় তাঁদের সবাইকেই ঘুরেফিরে ৩-৫-২ বা ৪-৫-১ ফর্মেশানে ডিফেন্সের বিভিন্ন পজিশানে খেলিয়ে দেখেছেন কোচ ক্রিস কোলম্যান।

Bosnia-and-Herzegovina-v-Wales

সেন্টার মিডফিল্ডে খেলার সম্ভাবনা সবচাইতে বেশী ক্রিস্টাল প্যালেসের জ্যো লেডলি, আর্সেনালের অ্যারন র‍্যামসি ও লিভারপুলের জ্যো অ্যালেনের। তাঁদের ব্যাকআপ হিসেবে লড়াই করবেন সদ্য প্রিমিয়ারলিগ জয়ী লিস্টার সিটির মিডফিল্ডার অ্যান্ডি কিং, উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সের ডেভিড এডওয়ার্ডস ও বার্মিংহ্যাম সিটির ডেভিড কটেরিল কিংবা ক্রিস্টাল প্যালেসের জোনাথান উইলিয়ামস। ৪-৫-১ ফর্মেশানে খেলালে দুই উইংয়ে খেলবেন সুপারস্টার গ্যারেথ বেল ও রিডিংএর হাল রবসন কানু, ৩-৫-২ ফর্মেশানে যাদের আবার স্ট্রাইকার হিসেবেও খেলতে দেখা যায়। সেক্ষেত্রে উইংব্যাক হিসেবে খেলবেন ক্রিস গান্টার ও বেন ডেভিস। আগেই যা বলেছিলাম, দলে সেরকম কোন কার্যকরী স্ট্রাইকার না থাকার কারণে তথাকথিত স্ট্রাইকার বার্নলির স্যাম ভোকস, ফুলহ্যামের জর্জ উইলিয়ামস কিংবা মিল্টন কিনস ডন্সের সিমোন চার্চ, কারোরই জায়গা পাকা নয় দলে। স্ট্রাইকার হিসেবে গ্যারেথ বেল থেকে শুরু করে হাল রবসন কানু, অ্যারন র‍্যামসি সবাই খেলতে পারেন।

1456140_NK_Croatia_Sesvete
নিজেদের প্রথম ইউরোতে ওয়েলস কি পারবে বিশ্ব ফুটবলকে জানাতে নিজেদের শক্তির কথা? দেখার জন্য টিভি পর্দায় চোখ রাখতে হবে ১০ জুন থেকে!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

4 × four =