ইউরো টিম প্রিভিউ : আইসল্যান্ড

নিজেদের ইতিহাসের প্রথমবারের মত ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে এবার খেলতে যাচ্ছে আইসল্যান্ড। গ্রুপ এফ এ আইসল্যান্ডের সঙ্গী হচ্ছে পর্তুগাল, হাঙ্গেরি ও অস্ট্রিয়া। গত ৯ মে দুই কোচ লার্স ল্যাজেরব্যাক এবং হেইমির হালগ্রিমসন ইউরোতে অংশ নেবেন এরকম ২৩ জন খেলোয়াড়ের একটি তালিকা প্রকাশ করেছেন, দেখে নেওয়া যাক কিরকম হল আইসল্যান্ডের ইতিহাসের সর্বপ্রথম কোন গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টের দলটি –

  • গোলরক্ষক

হেনস পর হালডোরসন (এফকে বোদো/গ্লিমট)

ওয়েগমন্ডুর ক্রিস্টিনসন (হ্যামারবি আইএফ)

ইংভার ইয়োনসন (স্যান্ডেফোর্ড)

 

  • ডিফেন্ডার

বারকির মার সেভারসন (হ্যামারবি আইএফ)

র‍্যাগনার সিগুর্ডসন (কুবান ক্রাসনোদর)

কার্ল আরনারসন (মালমো)

আরি ফ্রেইর স্কুলাসন (ওডেনসে বোল্ডক্লাব)

হকুর হেইডার হকসন (এআইকে)

ভেরির ইঙ্গি ইঙ্গাসন (লোকেরেন)

হরডর বর্গভিন ম্যাগনাসন (সেসেনা)

হরটর হারম্যানসন (গটেবোর্গ)

সবার নজর থাকবে গিলফি সিগুর্ডসনের উপর
সবার নজর থাকবে গিলফি সিগুর্ডসনের উপর

 

  • মিডফিল্ডার

অ্যারন গুনারসন (কার্ডিফ সিটি)

এমিল হ্যালফ্রেডসন (উদিনেসে)

বারকির বারন্যাসন (বাসেল)

ইয়োহান বার্গ গুডমন্ডসন (চার্লটন অ্যাথলেটিক)

গিলফি পর সিগুর্ডসন (সোয়ানসি সিটি)

থিওডোর এলমার বিয়ারনাসন (এজিএফ)

রুনার মার সিগুরইয়োরসন (সান্ডসভ্যাল)

আরনোর ইংভি ট্রস্টাসন (নরকয়েপিং)

 

  • ফরোয়ার্ড

এইডুর গুডইয়োনসন (মল্ডে এফকে)

কোলবেইন সিগপোরসন (নান্তে)

অ্যালফ্রেড ফিনবোগাসন (অগসবুর্গ)

জন ডাডি বোয়েদভারসন (কাইজারস্লটার্ন)

 

বলে রাখা ভালো, ইউরো কোয়ালিফাইং পর্যায়ে আইসল্যান্ডের সাথে একই গ্রুপে ছিল হল্যান্ডের মত পরাশক্তি। কিন্তু তাদেরকে দুই লেগেই হারিয়ে তাদের টপকে এবারের ইউরো খেলতে আসছে আইসল্যান্ড। কাজেই তাদের খাটো করে দেখা উচিত হবে না। দলে স্টার খেলোয়াড় বলতে আছেন বার্সেলোনা, চেলসি, বোল্টন ওয়ান্ডারার্সে খেলা বর্ষীয়ান স্ট্রাইকার এইডুর গুডইয়োনসেন, যিনি কিনা ৩৮ বছর বয়সেও ইউরোর মত গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টে দলে ডাক পেয়ে চমকে দিয়েছেন সবাইকে! তবে দলের মূল খেলোয়াড় যদি কেউ থেকে থাকেন, তিনি হলেন বর্তমানে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব সোয়ানসি সিটিতে খেলা অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার গিলফি সিগুর্ডসন। কোয়ালিফাইং রাউন্ডে ছয়টি গোল করে আইসল্যান্ডের হয়ে এবারের বাছাইপর্বের সর্বোচ্চ গোলদাতাও যিনি। তাঁর বানিয়ে দেওয়া বলগুলোকে গোলে রূপান্তরিত করার জন্য স্ট্রাইকে থাকবেন ফ্রান্সের নান্তে তে খেলা কোলবেইন সিগপোরসন, বাছাইপর্বে যার গোল তিনটি, সাথে কার্ডিফ সিটিতে খেলা অধিনায়ক অ্যারন গুনারসন ত আছেনই। দলের মোটামুটি পরিচিত মুখ বলতে এগুলোই।

৩৮ বছর বয়সে এসে গুডইয়োনসেন কি বুড়ো হাড়ের ভেলকি দেখাতে পারবেন কি না তা সময়ই বলে দেবে
৩৮ বছর বয়সে এসে গুডইয়োনসেন কি বুড়ো হাড়ের ভেলকি দেখাতে পারবেন কি না তা সময়ই বলে দেবে

পুরো বাছাইপর্ব জুড়ে ৪-৪-২ ফর্মেশানে খেলা আইসল্যান্ড মূলপর্বেও যে এই ফর্মেশানেই খেলবে সেটা মোটামুটি বলেই দেওয়া যায়। গোলবারের মূল পছন্দ হেনস পর হালডোরসন, তাঁর ইনজুরি সংক্রান্ত কোন সমস্যা হলে দ্বিতীয় গোলরক্ষক হিসেবে থাকবেন ওয়েগমন্ডুর ক্রিস্টিনসন। পুরো বাছাইপর্ব জুড়ে একটি ছাড়া সব ম্যাচই খেলেছেন হালডোরসন, বাকিটা খেলেছেন ক্রিস্টিনসন।

1444271_FC_Kutaisi-Torpedo
রাইটব্যাক হিসেবে থাকবেন বারকির মার সেভারসন, যেই পজিশানে মাঝে মাঝে রাইট মিডফিল্ডার থিওডোর এলমার বারনারসনকেও দেখা যায়। লেফটব্যাকে কোচ ল্যাজেরব্যাক ও হালগ্রিমসনের আস্থার জায়গা হলেন আরি ফ্রেইর স্কুলাসন। সেন্টারব্যাক জুটি হিসেবে থাকছেন র‍্যাগনার সিগুর্ডসন ও কার্ল আর্নাসন।

দুই সেন্টার মিডফিল্ডার হিসাবে অধিনায়ক অ্যারন গুনারসন আর সুপারস্টার গিলফি সিগুর্ডসনের জায়গা নিশ্চিতই বলা চলে, দুইজনের মধ্যে একজনের কোন কারণে খেলা না হলে সে জায়গা নিতে প্রস্তুত আছেন উদিনেসের এমিল হালফ্রেডসন। দুই ওয়াইড মিডফিল্ডার হিসেবে ডানদিকে ইয়োহানবার্গ গুডমন্ডসন আর বামদিকে বারকির বিয়ারনাসন এর খেলবেন।

অধিনায়ক অ্যারন গুনারসন
অধিনায়ক অ্যারন গুনারসন

দুই স্ট্রাইকার হিসেবে দুই কোচের পছন্দ হলেন আইসল্যান্ডের হয়ে ৩৭ ম্যাচে ১৯ গোল করা স্ট্রাইকার কোলবেইন সিগপোরসন আর জন ডাডি বদভারসন। সাথে ব্যাকআপ হিসেবে থাকবেন বর্ষীয়ান সুপারস্টার এইডুর গুডইয়োনসেন ও জার্মানির অগসবুর্গে খেলা স্ট্রাইকার অ্যালফ্রেড ফিনবোগাসন। এমনকি গিলফি সিগুর্ডসনকেও স্ট্রাইকার হিসেবে দেখা যেতে পারে মাঝে মাঝে।

দেখা যাক, বাছাইপর্বে যেরকম আইসল্যান্ড-ঝলকের টের পেয়েছে নেদারল্যান্ডস, গ্রুপপর্বে পর্তুগাল, অস্ট্রিয়া বা হাঙ্গেরি সেই ঝলকের সাথে পরিচিত হতে পারে কি না!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

five × 2 =