আসুন মানুষ মেসিকে ভালোবাসি!

::: আব্দুল্লাহ আল নোমান :::
একটা কথা প্রচলিত অাছে “দৃষ্টিভঙ্গি বদলান
সমাজ বদলে যাবে”
 
অামরা একটা বিষয় যখন পজিটিভলি চিন্তা করি বিষয়টা সব সময় পজিটিভ ই লাগে
যখন নেগেটিভলি চিন্তা করি তখন ভাল জিনিশটাও নেগেটিভ লাগে….
 
লিখাটা কোন সমাজের সমস্যা নিয়া না
লিখাটা ওই ফুটবল নিয়েই..
এবং মেসি রোনালদো নিয়েই।
 
মানুষ যখন ন্যুনতম মূল্যবোধ টা হারায় তখন কিছু কথা বলে বসি…..
যেমন : অামরা কয়েকদিন অাগে একটা পোস্ট ভাইরাল করছি যেখানে পোস্ট এর শেষে লিখা অাছে “মেসি একজন ভাল প্লেয়ার হতে পারে বাট একজন রোনালদো হতে পারবেনা”
পোস্ট টা ওই ১ টা লাইন নিয়েই….
ম্যাচ ইস্যু নিয়ে না, মানুষ মেসিকে প্রেজেন্ট করবো অাজ
 
অামরা সবাই জানি রোনালদো একজন ভাল মানুষ….
তার সামাজিক কাজ গুলা তাকে সম্মান করতে বাধ্য করে
বাট ওই যে একজন রে ক্রেডিট দিতে গিয়ে অারেকজন রে ছোট করার অভ্যাস টা গেল না।
 
” একজন রোনালদো হতে পারবেনা” উক্তিটা ছোট হলেও এর গভীরতা অনেক।
এখানে মানুষ মেসিকে প্রশ্নবিদ্ধ করা হয়ছে
এবং প্রেজেন্ট করা হয়ছে মেসি জাস্ট একজন ভাল প্লেয়ার…
 
নারে ভাই মেসিও অনেক উচ্চ মানবীয় গুন সম্পন্ন একজন ব্যক্তি।
সে ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত।
তার কিছু কাজের নমুনা প্রেজেন্ট করতেছি:
 
১. ২০০৭ সালে একটা হসপিটাল ভ্রমন করার পর সে লিও মেসি ফাওন্ডেশন প্রতিষ্টা করে যেটার প্রধান উদ্দেশ্য বিশ্বব্যাপী শিশুদের চিকিৎসা সেবা করা।
 
২. হাইতিতে ভূমিকম্প হওয়ার পর ফুটবলের ব্যস্ত সূচী থাকা সত্তেও ওখানে গিয়া মেসি সব পরিদর্শন করে বলছেন ” এই অবস্থা টা দেখা খুব কষ্টকর। তারা খুব দারিদ্র্যতায় জীবন কাটাচ্ছে”
 
৩. লিও মেসি অার্জেন্টিনার রোজারিও শহরে একটা শিশু হাসপাতাল এ ৬৭০০০০ ইউরো দিছে হাসপাতালটি সংস্কার এর জন্য।
এমনকি সে বার্সালোনা থেকে ডাক্তার এনে এখানের লোকাল স্টাফ দের উচ্চ চিকিৎসার ট্রেনিং দিয়ায়ছে।
 
৪. ২০১২ সালে একজন ১২ বছরের বালক এর চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছিলেন লিও মেসি।
বালকটিও মেসির বাল্যকালের রোগ হরমোন গ্রোথজনিত সমস্যায় ভোগছিল। মেসি তার চিকিৎসার ৬ বছরের বিল দেয়ার জন্য প্রতিশ্রুত হয়ছিল।
 
৫. ২০১৩ সালে বার্সালোন টিম থাইল্যান্ড ছুটিতে ছিল। ওই সময়টায় মেসি থাইল্যান্ড এর কিছু শারীরিক সমস্যাজনিত শিশুদের সাথে দেখা করেন এবং তাদের সাথে ফুটবল খেলেন।
তাদের উৎসাহ দেন।যেখানে ছিল বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা থেকে অাগত সুবিধাবঞ্চিত রা।
 
৬. ৩৫০০০০ ইউরোর ও বেশি পরিমান অর্থ ইউনিসেফ এ দান করছিলেন “A Sun For The Children Donation ” এই সংস্থায়.
 
৭. মর্তোজার কথাটা তু অামরা সবাই জানি
টাকার অভাব এ প্রিয় প্লেয়ার এর জার্সি কিনতে না পারা ৬ বছরের ক্ষুদে মর্তুজা পলিথিন দিয়া মেসির জার্সি বানায় পরে।
এটা মেসি শুনার পর তার সাক্ষর সহ জার্সি পাঠান মর্তুজার কাছে এবং কাতার এ ক্লাব ফ্রেন্ডলিতে তার সাথে দেখা করেন এবং খেলার মাঠ পর্যায়ে নিয়ে যান
 
৮. সম্ভবত ২ বছর অাগে 1 in 11 campaign নামে একটা ক্যাম্পেইন এ টেনিস তারকা শেরেনা উলিয়ামস এর সাথে যোগ দান করেন লিও মেসি। যেটার উদ্দেশ্য ছিল ৫৮ মিলিয়ন শিশু যারা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত তাদের সাহায্য করা।
 
৯. সিরিয়ায় বেসামরিক যুদ্ধকালীন সব প্লেয়ার কম্বল দানে ব্যস্ত থাকলেও মেসি ছিল একটু ভিন্ন। সে এবং তার ফাওন্ডেশন সিরিয়ায় ২০ টা ক্লাস রোম তৈরিতে সাহায্য করছে যেখানে ১৬০০ শিশুর পড়ার ব্যবস্থা হয়ছে এবং ফেসবুকে সে পোস্ট দিসিল
” একটা যুদ্ধময় দিন খুব বেশি হয় যায়। সিরিয়ার শিশুরা ৬ বছর ধরে অত্যাচার, নিপীডন এর শিকার হচ্ছে।একজন পিতা এবং ইউনিসেফ এর এম্বেসেডর হিসাবে অামার হৃদয় ভারাক্রান্ত। অাপনারাও ইউনিসেফের সাথে যোগদান করে যুদ্ধ বন্ধে প্রতিবাদ করুন”
 
১০. সে অাশ্চর্যময় ঘটনা করছে সেদিন যেদিন তার বিবাহ এর সব উপহার সে তার ফাওন্ডেশন এ দান করে দিয়েছে
 
১১. তার বিবাহ এর যেসব খাবার সংরক্ষিত হয়ছিল সব সে তার চ্যারিটির সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের দান করছে।
 
১২. সাম্প্রতি মেক্সিকোতে হওয়া ভূমিকম্পের পর মেসি ফেসবুকে তার ফিলিংস এবং সাপোর্ট প্রকাশ করছে দূর্যোগ এ অাক্রান্ত মানুষদের জন্য। সে বলছে
” গত কয়েক সপ্তাহ অাগে মেক্সিকো,অামেরিকা,পুয়েরতু রিকু,দক্ষিন এশিয়া,সিয়েরা লিওন এবং অারো কয়েক জায়গায় হওয়া দূর্যোগ এর জন্য খুব ভারাক্রান্ত অামি। অামার সাপোর্ট সবসময় থাকবে অাক্রান্ত পরিবারদের প্রতি”
 
১৩. এটা তু সবাই জানে এবারের বিশ্বকাপে মেসি-নেইমার এর প্রতিটা গোল এ ১০০০০ শিশু খাবার পাবে মাস্টারকার্ড এর মাধ্যমে।
 
এছাড়াও অারো অনেক চ্যারিটি ওয়ার্ক অাছে….
অামি উল্লেখযোগ্য গুলায় দিলাম…..
 
এগুলার পরও কি মানুষ মেসি নিয়া অাপনাদের মনে সন্দেহ হয়?
যদি সন্দেহ থাকে তায়লে বলবো অাপনার মন ই নেই…
 
অামরা হেইট করতে করতে এখন এমন একটা পর্যায়ে যে অামরা প্রতিপক্ষের মাঠের বাইরে ভাল কাজ টাকেও ছোট করে পেলি।
সবসময় একটা জিনিশ মাথায় রেখে কাজ করবেন ” অামি কাওকে ক্রেডিট দিতে গিয়া অন্য জনকে ছোট করবোনা”
দেখবেন সব ঠিক অাছে…
 
অামি মানুষ রোনালদো রে হেভি রেসপেক্ট করি
তার কাজ গুলা গ্রেট
 
অাপনারাও মেসির চ্যারিটি ওয়ার্ক গুলা এপ্রিসিয়েট দিতে শিখুন
 
কারন প্লেয়ার হিসাবে যেমন তারা ২ জন অনন্য
তেমনি মানুষ হিসাবেও তারা অনন্য
 
জানি অামার এ লিখাটা ভাইরাল হবে না
কারন মানুষ মিথ্যা বিবৃতিকে বেশি হাইলেট করতে ভালবাসে…

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

15 + twelve =