আমাদের হাইপোথিসিস

আমাদের একটা সমস্যা ভয়াবহ! একবার কারো সম্পর্কে খারাপ ধারণা মাথায় ঢুকে গেলেই হয়, তাঁকে ‘প্রমাণ সাইজ খারাপ’ ধরে নিয়ে সব কথায় টেনে নিয়ে আসাটা আমাদের স্বভাব।

ফরহাদ রেজা, মোহাম্মদ মিথুন, লিটন কুমার দাস, তুষার ইমরানরা লীগে রানবন্যা বইয়ে দিলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এখনো তেমন কিছুই করে দেখাতে পারেননি। তাই আমরা তাঁদের ‘লীগ লেগেন্দ’ বলে তাচ্ছিল্য করি। বলি, ‘ডোমেস্টিক ক্রিকেটার’। রকিবুল হাসানের কথা মনে আছে? ফতুল্লাতে যে প্র‍্যাকটিস ম্যাচগুলো হতো, তাতে সে ৭০-৭৫ বলেই হান্ড্রেড করে ফেলতো। অথচ আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৪৫ বলে ৩১ করলে তাঁকে টেস্ট ব্যাটসম্যান তকমা দিয়ে দিতাম আমরা। কারণ সবগুলোর একটাই, একবার মাথায় ঢুকে গেছে “সে খারাপ”, অতএব যাহা কিছুই হউক না কেন, তাতে তাঁদের ডেকে আনাই লাগবে।

আমাদের মাথায় ঢুকে গেছে, ইন্ডিয়া আমাদের শত্রু। যদি আমি জিজ্ঞেস করি,”আচ্ছা, ইন্ডিয়া আমাদের শত্রু তো বুঝলাম… কিন্তু কেন?” তখন অনেকক্ষেত্রেই উত্তর আসবে,”ইয়ে মানে… ওই আর কি… অত কারণফারণ দিয়ে কি হবে আপনার? ইন্ডিয়ারে খারাপ বললে আপনার কি জ্বলে?” ব্যস, ভাদা ট্যাগ খেয়ে যাবো অনায়াসেই। ( ভাদা = ভারতীয় দালাল)

আচ্ছা, সে যাকগে। নতুন ইস্যু পেয়েছি আমরা, মুস্তাফিজ ইংল্যান্ডে যাচ্ছে না। এইবার আমরা লজিক দাঁড় করানোর চেষ্টা করছি, “ইন্ডিয়ায় আইপিএল ঠিকই খেলতে যেতে পারে, কিন্তু ইংল্যান্ডে যাবে না। কারণ, আইসিসি খালি ইন্ডিয়ার কথায় চলে।” ওহ ইয়াহ? আর অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ধইঞ্চা? ভাইসাহেব, এখন ‘বিগ থ্রি’ চলছে। মানে তিনটা দলই মোড়ল, এতে ইন্ডিয়াকে ‘স্পেশাল আপ্যায়নের’ দরকার কি, জানতে পারি কি? মুস্তাফিজ খেলতে যাবে না, সেটা তাঁর নিজস্ব সিদ্ধান্ত। এতে ইন্ডিয়া, ইংল্যান্ড, মোড়ল এইসব ইস্যু টানার কোনো দরকার আসলেই আছে কি? মুস্তাফিজ এখন যেমন ইংল্যান্ডে যাচ্ছে না, এবার মুশফিকও আইপিএল-এ যায়নি। এইবার মুশফিক আইপিএল-এ কেন যায়নি, সে লজিক খুঁজতে নিশ্চয়ই ইংল্যান্ড কিংবা অস্ট্রেলিয়াকে ডেকে আনবেন? 🙂

যদি তা না এনে থাকেন, তবে একটু সেন্সিবলি চিন্তা করেন। মন থেকে ভাবেন, বোঝেন, আর একটু ডিপে গিয়ে ভালোভাবে ব্যাপারটা জানেন। আগেভাগে একটা হাইপোথিসিস দিয়ে অন্যের কাছে গালাগালি খাওয়াটা কিছুটা খারাপই বটে, নয় কি?

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

2 × 1 =