আমরা বাংলাদেশী

বন্যাদুর্গত মানুষের জন্যে সবচেয়ে ভালো জিনিস হিসেবে খোদার তরফ থেকে আসে রিলিফের জিনিসপাতি । আর আমাদের দেশের সালিশি অভ্যাসের মানুষের জন্যে ত্রাতা হয়ে এসেছে জুকারবার্গের ফেসবুক ।

ঘুম থেকে উঠে দেখলো বাংলাদেশের খেলা । আগের দিন কোন চ্যানেলে খেলা দেখলাম কাকু ? মাছরাঙ্গা আর গাজীটিভি ।

ছাড় টিভি !
মাছরাঙা দে ! খেলা দেখি …
আহা ! নাই ? তাইলে গাজী দেখায় …
গাজীতে দেখি … দে !
আইশশালা গাজীতেও নাই ?

আমার ফোনটা দে । ফেসবুক খুইলা দে ! দেশের এই অবিচার আর ভারতমুখী চ্যানেলগুলোরে নিয়ে কিছু একটা না লিখলে দেশ উদ্ধার হইবে কি করিয়া ?

“গুপ্তজায়গার চুলের মাছরাঙা ! গুপ্তজায়গার চুলের গাজী টিভি ! ভারতের আইপিএল দেখাও ? হাজার মাইল দূরের ইংল্যান্ডদেশীয় ফুটবল প্রিমিয়ার লিগের আর্সেনাল দল আর চেলসি দলের ফুটবল খেলা দেখাও? এখানে যে বাংলাদেশে বিশ্বকাপের খেলা হচ্চে , এটা কি আমার জ্যাঠা দেখাবে ? আমার কাকার ক্যামেরার দোকান আছে নাকি রে ? থাকলে তো দশটা ক্যামেরা ভাড়া লইয়া আমিই ভিড্যু চ্যানেলে টেলিকাস্ট করাইতাম … ”

সাইডনোটঃ প্রত্যেকটা টুর্নামেন্টের অফিসিয়াল ব্রডকাস্টার আছে। তারা যেই কয়েকটা ম্যাচ দেখায় , তার বাইরে একটা খেলা দেখানোরও এখতিয়ার আমাদের গাজী বা মাছরাঙার নাই এই সোজা হিসেব ফেসবুক জনতারে কে বোঝাবে ? খেলা দেখানো মানে স্রেফ ক্যামেরা নিয়ে মাঠে ঢুকে ছেড়ে দেওয়াই না এটাও মাথাতে যায় না ।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

five × five =