অন্য চোখে…

কাইল কোয়েটজার দেড়শো মেরে দিয়েছে-পুরানা নিউজ !

তামিম,সাকিব, রিয়াদ,মুশি আর সাব্বিরের কমবাইন্ড টীম পারফরম্যান্সে বাংলাদেশ সেটা টপকে পরের রাউন্ডে যাবার আশাকে ভালোই অক্সিজেন দিয়েছে- এটাও সবার জানা । তবে ম্যাচের শেষে ক্রিকেটের লোকেরা কিছু কিছু জিনিস না ভুললেই মনে হয় সবচাইতে ভালো হয় । আসলে , ক্রিকেটকে আপনি একদম কাছে থেকে ফলো করলে ভুলতে আপনি পারবেন না ।

ভোরবেলা ঢুলুঢুলু চোখে আপনি যখন উঠেছেন খেলা দেখার জন্যে , স্কোয়াডটি দেখে একটু হলেও অবাক হয়েছেন । অবাক হবার এরিয়াটা ছিলো , আপনি হয়তো একজন স্পিনার চেয়েছিলেন স্কটিশদের সাথে । একজন স্পেশালিস্ট স্পিনার ! আরাফাত সানি বা তাইজুল ইসলাম সাকিব আল হাসানের সাথে !

তবে খেলা শুরু হবার আগে অভিযোগ করেন নি । মাশরাফির সাথে নতুন বল হাতে নিতে হলো সাকিব আল হাসানকে । সাকিবকে দিয়ে দুই তিনটা ওভার করানোর পরে আস্তে আস্তে তাসকিন আর রুবেল দুজনকেই আনলেন মাশরাফি । ৩৮ রানে ২ উইকেট পড়লেও খেলার পরে ঐ জায়গাটায় চিন্তা করার মত যথেষ্ট উপাদান ছিলো । আমার চিন্তার জায়গাটা ছিলো রুবেলের আর তাসকিনের স্কটল্যান্ডের সাথেই কোন রকম প্রভাব বিস্তার না করতে পারা । রুবেল টানা মারার মত শর্টপিচ বল করে গেছেন । আর তাসকিনও একই কাজ করেছেন । তবে তাসকিনের কাছে থেকে তাও মাঝে মাঝে ভালো কিছু উইকেট পাবার মত বল এসেছে, রুবেলের কাছে থেকে আসে নি তাও।

সবচাইতে আফসোসের জায়গা হলো , আমরা পেসার নিলাম ৩ টা । তিনজনই স্পেশালিস্ট ! ফুলটাইম পেসার ! মুর্তজা, তাসকিন, রুবেল । ৫০ ওভার শেষে তাদের দিয়ে আমরা ৩০ ওভারের কোটার মধ্যে পুরো করলাম মাত্র ২৩ ওভার ! তাতে ম্যাশের আর রুবেলের সমান খরচা ৮ ওভারে ৬০ ! গেল ১৬ ওভার । আর ৭ ওভার তাসকিনের । তাতে ওর খরচা ৪৩ রান । কোয়েশ্চেন থেকে যায় অনেক । আমাদের পেসারেরা ঠিক কোন জায়গায় আছে যে তারা তাদের কোটা পুরো করার মতো সুযোগটা পাচ্ছে না ? টিম ম্যানেজমেন্টই বা স্কটল্যান্ডের মতো একটা দলের সাথে সাকিবের বাইরে আর স্পিনার রাখার কথাটা মাথায় কেনো আনলো না ? মাঠে তো কাজটা চালাতে হলো স্পিন দিয়েই ! ১২ ওভারের মতো বল করতে হলো নাসির আর সাব্বিরকে মিলে ! যারা অধিকাংশ সময় হিসেবেরই বাইরে থাকে ।

ইকোনোমি রেট ফেট নিয়ে কথা বলার দরকারটা খুব একটা বোধ করি না । তার চাইতে বেশি দরকারি লাগছে পেসার তিনজন কোথায় বল ফেললো সেটা নিয়ে কথা বলাটা । মাশরাফির ছিলো এটা বাজে দিন । কিন্তু রুবেলের তো প্রতিটা দিনই এমন ! এত শর্ট বল ফেলার টেনডেন্সি ওভারকাম না করতে পারলে ইংল্যান্ডের সাথে কিন্তু খারাপ দিন ! শ্রীলংকার যদি সাঙ্গাকারা  আর দিলশান থাকে , ইংলিশদেরও জেমস টেলর, রুট আর মরগান আছে  । আজকে স্কটল্যান্ডের কিন্তু ম্যাট মাচান আর কোয়েটজার ছাড়া তেমন টাইপের কেউ ছিলো না !

মাথায় রাখবেন , মারকাটারি ব্যাটিং এর এই জমানায় শেষের দিকে ব্যাসিকে লেগে থাকলেও মার খেতে হয় । আর আমাদের দুজন পেসারের বল করার জায়গাটা ব্যাসিকের থেকেও খারাপ । খুব  আশাবাদী হবার সুযোগ নেই ।

সাবধান বাংলাদেশের পেইস ব্যাটারি! সামনের রাস্তাটা আরো কঠিন । যে মেসেজটা কোয়েটজার আর মাচানেরা দিয়ে গেলো , তাতে ম্যাককুলাম আর মরগানদের সাথে খেলার আগে স্বস্তিতে আপনি কীভাবে থাকবেন এ দলের শুভাকাঙ্খী হয়ে ?

কমেন্টস

কমেন্টস